Shringla meets Momen: ‘ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের সোনালি অধ্যায় চলছে’, ঢাকা সফরে বন্ধুত্বের নতুন সংজ্ঞা শ্রিংলার

India-Bangladesh Relation: ভারত - বাংলাদেশ বাণিজ্যিক সম্পর্ক কীভাবে আরও মজবুত করা যায়, তা নিয়ে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে বলে খবর। এর পাশাপাশি দ্বিপাক্ষিক কৌশলগত সম্পর্ক নিয়েও কথা হয় শ্রিংলা ও মোমেনের।

Shringla meets Momen: 'ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের সোনালি অধ্যায় চলছে', ঢাকা সফরে বন্ধুত্বের নতুন সংজ্ঞা শ্রিংলার
বাংলাদেশ বিদেশ সচিব মোমেনের সঙ্গে ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা (ছবি- টুইটার)

ঢাকা : ভারত – বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও মজবুত করতে দুই দিনের ঢাকা সফরে গিয়েছেন ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। মঙ্গলবার বাংলাদেশ বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেন সঙ্গে এক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকও করেন তিনি। বৈঠক শেষে শ্রিংলা জানিয়েছেন, “দুই দেশের সম্পর্কের এক সোনালি অধ্যায় চলছে।”

আজ দুপুর ১২ টা নাগাদ ঢাকার ফরেন সার্ভিস অ্যাকাডেমিতে বৈঠকে বসেন শ্রিংলা এবং মোমেন। একাধিক ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে দুই দেশের বিদেশ সচিবের মধ্যে। ভারত – বাংলাদেশ বাণিজ্যিক সম্পর্ক কীভাবে আরও মজবুত করা যায়, তা নিয়ে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে বলে খবর। এর পাশাপাশি দ্বিপাক্ষিক কৌশলগত সম্পর্ক নিয়েও কথা হয় শ্রিংলা ও মোমেনের।

আগামী ১৫ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সফরে যাচ্ছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। রাষ্ট্রপতির সফরের প্রস্তুতি পর্ব খতিয়ে দেখতেই আজ ঢাকায় পৌঁছে যান বিদেশ সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। আজ মোমেনের সঙ্গে বৈঠক শেষে শ্রিংলা জানিয়েছেন, “ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যে অমীমাংসিত দ্বিপাক্ষিক ইস্যুগুলি নিয়ে খুব একটা মতানৈক্য নেই।” একই কথা বলছেন বাংলাদেশ বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেনও। দুই দেশের বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠকে ওই অমীমাংসিত ইস্যুগুলির সমাধানে কীভাবে কাজ করা যায়, সেই নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

মোমেনও জানিয়েছেন, “বহুমুখী ইস্যু নিয়ে দুই দেশের মধ্যে কথা হয়েছে। বিভিন্ন অমীমাংসিত বিষয়ে কথা হয়েছে। আমাদের মধ্যে বৈঠক ফলপ্রসু হয়েছে।” তিনি আরও বলেন, “দুই দেশ কীভাবে সীমান্তে শান্তি পরিস্থিতি বজায় রাখতে পারে, সেই বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।”

মঙ্গলবার দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা জানিয়েছেন, সবুজ শক্তি, পুনর্নবীকরণ যোগ্য জ্বালানি এবং উভয় দেশের যুব প্রজন্মের কর্মসংস্থান সহ অন্যান্য বেশ কিছু ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বিদেশ সচিব বলেন, “দুই দেশের মধ্যে যোগাযোগের ক্ষেত্রে খুব ভাল কাজ চলছে। এখনও পর্যন্ত ছয়টি রেল সংযোগের মধ্যে পাঁচটি পুনরায় চালু হয়েছে এবং ষষ্ঠটির কাজ এই বছরের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে।” এর পাশাপাশি বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের পরিবেশ-বান্ধব রেলপথ এবং জলপথ আরও উন্নত করার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে দুই বিদেশ সচিবের।

আরও পড়ুন : WHO on Omicron: ওমিক্রনে পুনরায় সংক্রমণের ক্ষমতা ডেল্টার তিন গুণ, আশঙ্কা শিশুদের নিয়েও; সতর্ক করলেন সৌম্যা স্বামীনাথন

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla