Opposition Parties Boycott Constitution Day: অধিবেশন শুরুর আগেই ফের একজোট বিরোধীরা, সংবিধান দিবস বয়কট ১৪ দলের

Opposition Parties Boycott Constitution Day: এদিনের অনুষ্ঠানে যোগদান না করার প্রসঙ্গে কংগ্রেস নেতা মানিকম ঠাকুর বলেন, "এই সরকার সংবিধানকে সম্মান করে না। সংবিধান মেনে তারা দেশ পরিচালন করছেন না, কিন্তু সংবিধান দিবস পালন করতে চান। এটা আসলে একটি জনসংযোগের অনুষ্ঠান, যা বিজেপি ২০১৯ সাল থেকে শুরু করেছে।"

Opposition Parties Boycott Constitution Day: অধিবেশন শুরুর আগেই ফের একজোট বিরোধীরা, সংবিধান দিবস বয়কট ১৪ দলের
সংসদে গেলেনই না বিরোদী নেতারা। ছবি: সংসদ টিভি

নয়া দিল্লি: সংবিধান দিবসের (Constitution Day) অনুষ্ঠান এড়িয়ে গেল বিরোধী দলগুলি (Opposition Parties)। কংগ্রেস (Congress), শিবসেনা (Shiv Sena), তৃণমূল (TMC) সহ মোট ১৪টি বিরোধী দলই এদিন সংসদের সেন্ট্রাল হলে আয়োজিত সংবিধান দিবসের অনুষ্ঠানে যোগদান করেনি। বিরোধী দলগুলির এই আচরণে দুঃখ প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী(Narendra Modi), বক্তব্যের শেষভাগে তিনি বলেন, “এই অনুষ্ঠান কোনও রাজনৈতিক দল বা প্রধানমন্ত্রী আয়োজন করেননি। এই অনুষ্ঠান সংসদের। সংবিধান, সংসদ ও স্পিকারের কিছু গরিমা রয়েছে, তার সম্মান রক্ষা করা উচিত।”

আগামী সোমবার থেকেই শুরু হচ্ছে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন(Parliament’s Winter Session)। তারই আগে ফের একবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে একজোট হয়েছে বিরোধী দলগুলি। গতকালই কংগ্রেসের বৈঠক ছিল অধিবেশন নিয়ে। এরপরই বিরোধী দলগুলির সঙ্গে কথা বলেন কংগ্রেস সাংসদ তথা রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ যে ১৪টি দল সংবিধান দিবসের অনুষ্ঠান বয়কট করেছেন, তারা সকলেই শীতকালীন অধিবেশনে একজোট থাকার প্রস্তাবে সম্মতি জানিয়েছেন।

এদিনের অনুষ্ঠানে যোগদান না করার প্রসঙ্গে কংগ্রেস নেতা মানিকম ঠাকুর বলেন, “এই সরকার সংবিধানকে সম্মান করে না। সংবিধান মেনে তারা দেশ পরিচালন করছেন না, কিন্তু সংবিধান দিবস পালন করতে চান। এটা আসলে একটি জনসংযোগের অনুষ্ঠান, যা বিজেপি ২০১৯ সাল থেকে শুরু করেছে।”

লোকসভায় কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীও বলেন, “আমরা এই অনুষ্ঠানে যোগ দেব না। এই সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না, তারা প্রতিটি গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে। তাছাড়া রাজ্য়সভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গেকেও মঞ্চে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। বিরোধী দলনেতার অফিসও একটি প্রতিষ্ঠান। কিন্তু এই সরকার তাকেও সম্মান করে না।”

তৃণমূল কংগ্রেসের তরফেও জানানো হয়, বিরোধী ঐক্যের সঙ্গে একমত হয়েই তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে কোনও সাংসদ এই অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন না। অনুষ্ঠানে যোগদান করতে অস্বীকার করে শিবসেনা, এনসিপি, ডিএমকে, আরজেডি, বাম, আম আদমি পার্টি, শিরোমণি আকালি দল, সমাজবাদী পার্টিও।

এদিকে, বিরোধীদের এই বয়কটের সমালোচনা করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘওয়াল বলেন, “এই বয়কট সংবিধানের অসম্মান। এই অনুষ্ঠান বয়কটের ডাক দিয়ে কংগ্রেস প্রমাণ করে দিল যে তারা কেবল নেহেরু পরিবারের নেতাদেরই সম্মান করতে পাপে, বাকি কোনও নেতাকে নয়। এমনকি সংবিধানের প্রতিষ্ঠাতা বিআর আম্বেদকরকেও নয়।”

আগামী ২৯ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া শীতকালীন অধিবেশনে বিরোধী দলগুলির ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্যের  গ্য়ারান্টি, পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি, অত্যাবশ্য়কীয় পণ্য়ের মূল্যবৃদ্ধি, লখিমপুর খেরি কাণ্ডতে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অজয় কুমার মিশ্রের ইস্তফা সহ একাধিক ইস্যুতে সরব হওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

আরও পড়ুন: PM Modi on Constitution Day: ‘গণতন্ত্রের জন্য বিপজ্জনক পরিবারতন্ত্র’, সংবিধান দিবসে কর্তব্যের পথে চলার বার্তা প্রধানমন্ত্রীর 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla