Extra Marital Affair: বিয়ের আগের ‘কীর্তি’ জেনেছিল, দেখেছিল প্রেমিকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তও! বৌদির হাতে খুন দেওর

Adultery: বৌদির বাপের বাড়ি এসে, বৌদিকে প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেছিলেন দেওর। তার পর আত্মীয় স্বজনের কাছে জেনেছিলেন বৌদির চরিত্রের কথা।

Extra Marital Affair: বিয়ের আগের ‘কীর্তি’ জেনেছিল, দেখেছিল প্রেমিকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তও! বৌদির হাতে খুন দেওর
প্রতীকী চিত্র
TV9 Bangla Digital

| Edited By: অংশুমান গোস্বামী

Jun 15, 2022 | 8:40 PM

ফরিদাবাদ: বিয়ের আগে একাধিক প্রেমিক ছিল। তাঁদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কও ছিল। এক জনের সঙ্গে পালিয়েও গিয়েছিলেন। তার পরই ওই যুবতীর বিয়ে দেয় পরিবারের লোক। বিয়ের পর বাপের বাড়ি এসেছিলেন। সেখান থেকে তাকে শ্বশুরবাড়ি নিয়ে যেতে এসেছিলেন দেওর। বৌদির বাপের বাড়ি এসে, বৌদিকে প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেছিলেন দেওর। তার পর আত্মীয় স্বজনের কাছে জেনেছিলেন বৌদির চরিত্রের কথা। বিয়ের আগে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার ইতিহাস। সে সব জেনে ফেলাতেই বৌদির হাতে খুন হতে হল দেওরকে। সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির কাছে ফরিদাবাদে। ঘটনার কথা মঙ্গলবার জানিয়েছে পুলিশ। ১৫ বছরের দেওরকে খুনের অভিযোগে ১৯ বছরের ওই মহিলাকে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, দেওরকে খুনে অভিযুক্ত ওই মহিলার নাম জাইতুন খাতুন। মৃতের দাদার সঙ্গে জাইতুনের বিয়ে হয় ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে। মৃতের দাদা লরির চালকের কাজ করেন। সম্প্রতি বাপের বাড়িতে ঘুরতে গিয়েছিল অভিযুক্ত জাইতুন। তাকে ফিরিয়ে আনতে ১১ জুন জাইতুনের বাপের বাড়ি যায় ১৫ বছরের ওই কিশোর। সেখানে গিয়েই একদিন প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় নিজের বৌদিকে দেখে ফেলে সে। তার পর বৌদির আত্মীয়ের কাছে বিয়ের আগে বৌদির একাধিক সম্পর্কের কথা জেনে ফেলে।

ঘটনা নিয়ে পুলিশ অফিসার নরেন্দ্র কাদিয়ান বলেছেন, “অভিযুক্তের বাড়িতে গিয়ে তাঁর বিয়ের আগের সম্পর্কের কথা জেনে ফেলে। বেশ কয়েক জনের সঙ্গে বিয়ের আগে সম্পর্ক ছিল অভিযুক্তের। এক জনের সঙ্গে বাড়ি থেকে পালিয়েও গিয়েছিল সে। এর পরই তাঁর বিয়ে দেয় পরিবারের লোকেরা।” গোটা বিষয় জেনে যাওয়ায় জাইতুন হুমকিও দিয়েছিল। জাইতুনের ভয় ছিল তার মাধ্যমে শ্বশুরবাড়িতে এ সব জানিয়ে দিতে পারে। সেই ভয়েই দেওরকে খুনের পরিকল্পনা করে জাইতুন। প্রেমিকের সঙ্গে পরামর্শ করেই এই কাজ করেছিল সে।

এই খবরটিও পড়ুন

দুধের সঙ্গে বিষ ওষুধ মিশিয়ে দেওরকে খেতে দিয়েছিলেন বৌদি। তার পর মুখে বালিশ চাপা দিয়ে মেরে ফেলেন। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। জেরার মুখে খুনের কথা অভিযুক্ত স্বীকার করেছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla