UP Crime: তিন মাস আগে ‘ধর্ষণ’, বিয়ের পিঁড়িতে বসার আগেই জ্বালিয়ে দেওয়া হল অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীকে

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী

Updated on: Oct 09, 2022 | 12:27 PM

UP Crime: অভিযুক্তের মা ওই কিশোরীকে বাড়িতে ডাকেন বিয়ের প্রস্তুতি নিয়ে কথাবার্তা বলার জন্য। ওই কিশোরী অভিযুক্তের বাড়িতে যেতেই তাঁর গায়ে পেট্রোল ঢেলে দেওয়া হয় এবং আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

UP Crime: তিন মাস আগে 'ধর্ষণ', বিয়ের পিঁড়িতে বসার আগেই জ্বালিয়ে দেওয়া হল অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীকে
প্রতীকী চিত্র।

লখনউ: তিন মাস আগে নাবালিকাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বাড়ি থেকে। গ্রামেরই এক যুবক ধর্ষণ করে ওই কিশোরীকে। কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে মুখ খোলেনি ওই কিশোরী। পরে গর্ভবতী হয়ে পড়াতেই বিষয়টি জানাজানি হয়ে যায়। পঞ্চায়েতের তরফে নিদান দেওয়া হয়, ধর্ষক বিয়ে করবে ওই কিশোরীকে। কিন্তু বিয়ের পিড়ি অবধিও পৌঁছনো হল না বছর ১৬-র কিশোরীর। তার আগেই জীবিত অবস্থায় জ্বালিয়ে দেওয়া হল ওই কিশোরীকে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের মইনপুরী জেলায়। ইতিমধ্যেই পুলিশ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে এবং তাদের গ্রেফতার করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

জানা গিয়েছে, উত্তর প্রদেশের মইনপুরী জেলার কুরাভালী থানার অধীনে একটি গ্রামের বাসিন্দা ওই কিশোরীকে তিন মাস আগে ধর্ষণ করা হয়। ধর্ষিতার মায়ের অভিযোগ, গ্রামেরই বাসিন্দা এক যুবক তাঁকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে ওই কিশোরী চুপ করে থাকে, পরিবারের কাউকেও শারীরিক নির্যাতন সম্পর্কে কিছু জানায়নি সে।

কিছুদিন বাদেই পেটে ব্যাথা শুরু হয় ওই কিশোরীর। চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হলে জানা যায়, ওই কিশোরী গর্ভবতী। এরপরই পরিবারের তরফে চাপ সৃষ্টি করা হলে ধর্ষণের ঘটনা খুলে বলে ওই কিশোরী। সঙ্গে সঙ্গে পঞ্চায়েতকেও খবর দেওয়া হয়। গত ৬ অক্টোবর পঞ্চায়েতের সালিশী সভা বসানো হয়। সেখানেই নির্দেশ দেওয়া হয়, অভিযুক্ত যুবক ওই কিশোরীকে বিয়ে করবে।

কিন্তু এরপরই অভিযুক্তের মা ওই কিশোরীকে বাড়িতে ডাকেন বিয়ের প্রস্তুতি নিয়ে কথাবার্তা বলার জন্য। ওই কিশোরী অভিযুক্তের বাড়িতে যেতেই তাঁর গায়ে পেট্রোল ঢেলে দেওয়া হয় এবং আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। কিশোরীর আর্তচিৎকার শুনেই ছুটে আসেন আশেপাশের বাসিন্দারা। তারাই কোনওমতে উদ্ধার করেন ওই কিশোরীকে। গুরুতর দ্বগ্ধ অবস্থায় প্রথমে মইনপুরীর জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় কিশোরীকে, পরে সেখান থেকে সাইফাইয়ে স্থানান্তরিত করা হয়। গতকাল রাতে মারা যায় ওই কিশোরী।

মৃতার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৭, ৩৭৬ ধারা ও পকসো আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে, মামলা দায়েরের পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত যুবক ও তাঁর পরিবার। পুলিশের তরফে তাদের খোঁজ করা হচ্ছে, দ্রুতই তাদের গ্রেফতার করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla