Cough Syrup smuggling: বাংলাদেশে মাদকযুক্ত কাশির সিরাপ পাচার, গ্রেফতার চিকিৎসক সহ ৬

Drug Smuggling: বৃহস্পতিবার, নিজেদের সোর্সের থেকে খবর পেয়ে এনসিবি কলকাতা জ়োনের আধিকারিকরা ব্যারাকপুরে হানা দিয়েছিলেন। সেখানেই ওই ৬ জনকে আটক করেন তাঁরা। জানা গিয়েছে, তাঁরা কোডিন সিরাপ পাচার সিন্ডিকেটের সঙ্গে যুক্ত।

Cough Syrup smuggling: বাংলাদেশে মাদকযুক্ত কাশির সিরাপ পাচার, গ্রেফতার চিকিৎসক সহ ৬
ছবি- প্রতীকী চিত্র

কলকাতা: বড়সড় সাফল্য পেল মাদক নিয়ন্ত্রক সংস্থা বা এনসিবি (Narcotics Control Bureau)। মাদকযুক্ত নিষিদ্ধ কাশির সিরাপ পাচারের অভিযোগে ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে এক চিকিৎসক সহ মোট ৬ জনকে আটক করল এনসিবি। জানা গিয়েছে কোডিন যুক্ত এই কাশির সিরাপ ‘লিন’ বা ‘সিজার্প’ নামেই মাদকসেবনকারীদের কাছে বেশি পরিচিত, শনিবার কলকাতা জ়োনের এক এনসিবি আধিকারিক এমনটাই জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার, নিজেদের সোর্সের থেকে খবর পেয়ে এনসিবি কলকাতা জ়োনের আধিকারিকরা ব্যারাকপুরে হানা দিয়েছিলেন। সেখানেই ওই ৬ জনকে আটক করেন তাঁরা। জানা গিয়েছে, তাঁরা কোডিন সিরাপ পাচার সিন্ডিকেটের সঙ্গে যুক্ত। মাদক সেবনকারীদের মধ্যে দ্রুত নেশা করার জন্য এই মাদক সিরাপ বেশ জনপ্রিয় বলেই জানিয়েছেন এনসিবি আধিকারিকরা। এনসিবি আধিকারিকরা কোডিন সিরাপে মোট ২ হাজার ২৪৫ টি বোতল বাজেয়াপ্ত করেছে। জানা গিয়েছে, এই বিপুল পরিমাণ মাদক সিরাপ বাংলাদেশে পাচারের জন্যে সেখানে মজুত করে রাখা ছিল বলেই জানা গিয়েছে।

এনসিবি আধিকারিক জানিয়েছেন, “মাঝারি মাল পরিবহণকারী গাড়িতে ব্যারাকপুর থেকে ওই বিপুল পরিমাণ মাদক সিরাপ নদিয়াতে পাঠানোর কথা ছিল। প্রথমে আমরা দু’জনকে গ্রেফতার করি। তারপর সেই সূত্রেই আমরা ওই ডাক্তারে হদিশ পাই সেই ডাক্তার ও ডঃ রেড্ডির এক প্রতিনিধিকে আমরা গ্রেফতার করি।” ওই অভিযুক্ত ডাক্তার নিজের গোডাউনে কোডিনযুক্ত কাশির সিরাপ মজুত করে রেখেছিল। এবং ডাক্তারের ওই প্রতিনিধি যাবতীয় কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছিল বলেই জানা গিয়েছে। এনসিবি আধিকারিক জানিয়েছেন, ওই গোডাউনের কোনও লাইসেন্সও নেই।

চলতি বছরেই, মিয়ানমারের “ইয়াবা” ট্যাবলেট এবং ভারতীয় তৈরি কোডাইন ভিত্তিক সিরাপ চোরাচালান রোধে ভারতের সহায়তা চেয়েছিল বাংলাদেশ। যদিও ভারতে এই কাশির সিরাপ বৈধভাবেই উৎপাদিত হয়। তবে বাংলাদেশে অল্প দামে নেশার করার জন্য এই সিরাপের যথেষ্ট জনপ্রিয়তা রয়েছে। বাংলাদেশের সাধারণভাবে মদ পাওয়া যায় না। সেদেশের মদের ওপর আংশিক নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেই কারণে নেশাগ্রস্তরা নেশা করার জন্য বিভিন্ন উপায় খুঁজে নেন। এনসিবি আধিকারিক জানিয়েছেন, কাশি চিকিৎসায় জনপ্রিয় ফেনসেডাইল সিরাপ ভারতীয় মুদ্রায় ১০০ টাকাতে পাওয়া গেলেও বাংলাদেশে বেআইনি বাজারে এই সিরাপই ১ হাজার বাংলাদেশি টাকায় মেলে।

আরও পড়ুন Repeal Farm Laws: এখনও রাজপথ দখল করে বসে কৃষকরা, বাড়ি ফিরে যাওয়ার অনুরোধ কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রীর

আরও পড়ুন South Dinajpur: চক-ডাস্টার হাতে শিক্ষকের পুলিশ সুপার, পড়ালেন সিভিল সার্ভিস পরীক্ষার পরীক্ষার্থীদের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla