Sunscreen Applying: রোদে পুড়ছে গা, কীভাবে সানস্ক্রিন মাখলে সূর্যালোকের হাত থেকে ত্বক সুরক্ষিত থাকবে?

Summer Skin: এই গরমে সুতির ফুলহাতা জামা পরুন। তাপপ্রবাহের হাত থেকে বাঁচতে চোখ-মুখ ঢেকে রাস্তায় বের হোন। সঙ্গে রাখুন ছাতা, সানগ্লাস, জলের বোতল আর সানস্ক্রিন। সানবার্ন, পিগমেন্টেশন, এজিং থেকে শুরু করে স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি কমায় সানস্ক্রিন। ত্বককে সুরক্ষিত রাখে সানস্ক্রিন।

Sunscreen Applying: রোদে পুড়ছে গা, কীভাবে সানস্ক্রিন মাখলে সূর্যালোকের হাত থেকে ত্বক সুরক্ষিত থাকবে?
Follow Us:
| Updated on: Apr 02, 2024 | 12:26 PM

তাপমাত্রা প্রায় চল্লিশ ছুঁইছুঁই। কিছু জায়গায় ৪০ ছুঁয়েও গিয়েছে। দক্ষিণবঙ্গে পোড়া গরম। সকাল ৮টা থেকেই যেন তাপপ্রবাহ চলছে। আর বেলা বাড়লে যেন বাইরে বেরোনো দায় হয়ে পড়েছে। কিন্তু স্কুল-অফিস ছুটি নেই। রোদের ভয়ে ঘরে বসে থাকারও অবকাশ নেই। যতই মুখ-চোখ ঢেকে রাস্তা বেরোন, গরমের হাত থেকে আর বাঁচা যায় নাকি! কিন্তু সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির হাত থেকে ত্বককে না বাঁচালেই বিপদ।

এই গরমে সুতির ফুলহাতা জামা পরুন। তাপপ্রবাহের হাত থেকে বাঁচতে চোখ-মুখ ঢেকে রাস্তায় বের হোন। সঙ্গে রাখুন ছাতা, সানগ্লাস, জলের বোতল আর সানস্ক্রিন। সানবার্ন, পিগমেন্টেশন, এজিং থেকে শুরু করে স্কিন ক্যানসারের ঝুঁকি কমায় সানস্ক্রিন। ত্বককে সুরক্ষিত রাখে সানস্ক্রিন। তাই পায়ের পাতা থেকে ঘাড়-গলা, যে সব অংশ রোদের সংস্পর্শে আসতে পারে, সেখানে সানস্ক্রিন মাখুন। শুধু সানস্ক্রিন মাখার সময় এই ৫টি বিষয়ের খেয়াল রাখুন। তবেই সানস্ক্রিন কাজ করবে।

১) সানস্ক্রিন কেনার সময় ‘এসপিএফ’ যাচাই করে নিন। ৩০ বা ৫০ যুক্ত এসপিএফ সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। যত বেশি মাত্রার এসপিএফ সানস্ক্রিন ব্যবহার করবেন, রোদ থেকে ত্বক তত বেশি সুরক্ষিত থাকবে। এসপিএফ ত্বককে ইউভি রশ্মির ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে বাঁচায়।

এই খবরটিও পড়ুন

২) মুখ ছাড়া হাত-পা, গলা-ঘাড় সব জায়গায় সানস্ক্রিন মাখুন। রোদে বেরোনোর কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে সানস্ক্রিন মাখুন। যদি রোদে ঘণ্টা দুয়েকের বেশি থাকতে হয়, তাহলে ২ ঘণ্টা অন্তর আবার সানস্ক্রিন মাখুন।

৩) সানস্ক্রিন মাখার আগে ত্বকের পরিচর্যা করা দরকার। ত্বক ভাল করে পরিষ্কার করে নিন। তারপর টোনার, সিরাম ও ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। একদম শেষে সানস্ক্রিন মাখুন। এতে সানস্ক্রিন ত্বকের গভীরে পৌঁছে সুরক্ষা প্রদান করবে।

৪) আপনি কতটা পরিমাণ সানস্ক্রিন মাখছেন, সেটার উপরও নজর দেওয়া জরুরি। ১/২ টেবিল চামচ সানস্ক্রিন মুখে মাখুন। এরপর হাত-পায়ে সানস্ক্রিন মাখার সময় পরিমাণটা বাড়িয়ে দিন। শুধু খেয়াল রাখুন যে, ত্বকের কোনও অংশ যে সানস্ক্রিন মাখা থেকে বাদ না পড়ে।

৫) ত্বকের যেসব অংশে ঘর্ম‌গ্রন্থি রয়েছে, অর্থাৎ যেসব অঙ্গে ঘাম বেশি হয়, সেখানে সানস্ক্রিন মাখবেন না। ঘামের মাধ্যমে সানস্ক্রিন উঠে যাবে। এতে কোনও কাজই হবে না। বরং, আপনাকে বার বার সানস্ক্রিন মাখতে হবে।