Pawan Verma: ২০২৪ সালে মমতাকে দেখতে চান দিল্লিতে, তৃণমূলে যোগ দিয়ে বললেন পবন বর্মা

Pawan Verma joins TMC : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক শেষে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পবন বর্মা বলেন, "আমি বিশ্বাস করি ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লিতে থাকবেন।"

Pawan Verma: ২০২৪ সালে মমতাকে দেখতে চান দিল্লিতে, তৃণমূলে যোগ দিয়ে বললেন পবন বর্মা
তৃণমূলে যোগ দিলেন পবন বর্মা (নিজস্ব চিত্র)

নয়া দিল্লি : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিল্লির সফরে যে বেশ কিছু চমক থাকতে পারে, এমন ইঙ্গিত আগেই পাওয়া যাচ্ছিল। সেই মতো আজ সকাল থেকেই ঠাসা কর্মসূচি। প্রথমে দেখা করেন জাভেদ আখতার এবং সুধীন্দ্র কুলকার্নির সঙ্গে। আর সেই বৈছক যে নিছকই সৌজন্য সাক্ষাৎ ছিল না, তা বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট থেকেই স্পষ্ট। জোর জল্পনা চলছে দিল্লির রাজনীতির আনাচে কানাচে। আর এর মধ্যেই তৃণমূলে যোগ দিলেন প্রাক্তন জেডিইউ নেতা পবন বর্মা।

পবন বর্মা একজন দক্ষ কূটনীতিবিদ। ভুটানে ভারতের রাষ্ট্রদূত ছিলেন এক কালে। পরবর্তী সময়ে রাজনীতিতে পা রেখেন। প্রথমে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের উপদেষ্টার পদে ছিলেন তিনি। পরে জেডিইউয়ের টিকিটেই রাজ্যসভার সাংসদ হয়েছিলেন। নীতীশ কুমারও যথেষ্ট ভরসা রাখতেন এই দুঁদে কুটনীতিকের উফর। এককালে জনতা দল ইউনাইটেডের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বও সামলেছিলেন পবন বর্মা। দলের মুখপাত্রের ভূমিকাতেও দেখা গিয়েছিল তাঁকে।

এবার সেই পবন বর্মা যোগ দিলেন তৃণমূল শিবিরে। আজ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে হাতে তাঁকে স্বাগত জানান দলে। গলায় পরিয়ে দেন তৃণমূলের উত্তরীয়। এদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক শেষে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পবন বর্মা বলেন, “আমি বিশ্বাস করি ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিল্লিতে থাকবেন।”

উল্লেখ্য, গতকালই দিল্লি পৌঁছেছেন মমতা। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাসভবনে রয়েছেন তিনি। আজ সেখানেই দেখা করতে যান বিশিষ্ট গীতিকার জাভেদ আখতার। সক্রিয়ভাবে রাজনীতি না করলেও বিভিন্ন ইস্যুতেই একাধিকবার সরব হয়েছেন তিনি, জড়িয়েছেন বিতর্কেও। এর আগে গত জুলাই মাসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিল্লি সফরকালে তাঁর সঙ্গে দেখা করেছিলেন জাভেদ আখতার ও তাঁর স্ত্রী তথা বিশিষ্ট অভিনেত্রী শাবানা আজমি। কেন্দ্র সরকার বিরোধী স্বর তাঁদের গলায় পাওয়া গিয়েছে বারবার, তাই রাজনৈতিক মহলের অনুমান তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন জাভেদ আখতার।

জুলাই মাসে সাক্ষাতের পর জাভেদ আখতার বলেছিলেন,  ‘দেশ জুড়ে পরিবর্তন চাই।’ তবে সেই পরিবর্তনের মুখ কে হবেন? অর্থাৎ বিরোধীদের জোট তৈরি হলে কাকে প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী করা হবে? সেই প্রশ্নের উত্তরে জাভেদ আখতারের উত্তর ছিল, ‘মমতা সেই নেতা বা নেত্রী বাছতে চান না। তিনি শুধু পরিবর্তন চান, ঠিক যেমনটা বাংলায় হয়েছে।’ শুধু তাই নয়, সে সময় ‘খেলা হবে’ স্লোগান প্রসঙ্গে জাভেদ আখতার বলেছিলেন,  ‘এখনই প্রমাণ চান আপনারা? এই স্লোগান নিয়ে কোনও কথা হবে না।’ এমনকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এগিয়ে জাভেদ আখতারকে অনুরোধ করেছিলেন যাতে তিনি ‘খেলা হবে’ স্লোগান নিয়ে তিনি একটা গান লিখে দেন।

শুধু জাভেদ আখতারই নয়, প্রাক্তন বিজেপি নেতা সুধীন্দ্র কুলকার্নিও এ দিন মমতার সঙ্গে সাক্ষাৎ সেরেছেন।  সুধীন্দ্র কুলকার্নি প্রাক্তন বিজেপি নেতা। একসময় অটল বিহারী বাজপেয়ী ও লালকৃষ্ণ আদবানির ঘনিষ্ঠও ছিলেন তিনি। আদবানির রাজনৈতিক কৌশলী হিসেবে কাজ করতেন একসময়, বাজপেয়ীর বক্তৃতাও লিখতেও সাহায্য় করতেন। সেরকম একজন নেতার মমতার সঙ্গে সাক্ষাৎও যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

আরও পড়ুন : Mamata in Delhi: মমতার সঙ্গে সাক্ষাতে জাভেদ আখতার, রয়েছেন সুধীন্দ্র কুলকার্নি

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla