Mahua Moitra: লাল শাড়ি-হালকা লিপস্টিকে ‘ভাবলেশহীন’ মহুয়া, সংসদ থেকে বেরিয়ে কী জানালেন?

Mahua Moitra: এদিন শেষ পর্যন্ত তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রের সাংসদ পদ খারিজের রিপোর্ট লোকসভায় পেশ করা হয়নি। কবে রিপোর্ট পেশ করা হবে তা স্পষ্ট করেনি এথিক্স কমিটি। তবে যেদিনই রিপোর্ট পেশ হোক, বিষয়টি নিয়ে যে তিনি এতটুকু ভাবিত হন, তা মহুয়া মৈত্রের কথাবার্তাতেই স্পষ্ট।

Mahua Moitra: লাল শাড়ি-হালকা লিপস্টিকে 'ভাবলেশহীন' মহুয়া, সংসদ থেকে বেরিয়ে কী জানালেন?
সংসদে ঢোকার মুখে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র।Image Credit source: PTI
Follow Us:
| Edited By: | Updated on: Dec 04, 2023 | 5:45 PM

নয়া দিল্লি: বিতর্ক বিতর্কের জায়গায়! আজ, সোমবার সংসদের শীতকালীন অধিবেশন শুরু হয়। এদিনই মহুয়া মৈত্রের সাংসদ পদ খারিজের সুপারিশের রিপোর্টটি লোকসভায় পেশ করার কথা ছিল এথিক্স কমিটির। স্বাভাবিকভাবেই সকাল থেকে সকলের নজর ছিল কৃষ্ণনগরের সাংসদ (TMC MP) মহুয়া মৈত্র এবং সংসদের অভ্যন্তরের কাজকর্মের উপর। আপাতত এদিনই মহুয়ার সংসদে শেষ দিন হতে পারে বলে উৎকণ্ঠায় ছিলেন মহুয়া-অনুরাগীদের অনেকেই। কিন্তু, মহুয়ার চেহারায় সেই উৎকণ্ঠা-উদ্বেগের বিন্দুমাত্র ছাপ ছিল না। বরং অনেকটাই হালকা মেজাজে দেখা যায় তৃণমূল সাংসদকে (Mahua Moitra)।

সাজপোশাকের ব্যাপারে বরাবরই ওয়াকিবহাল তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। বলা ভাল, দলীয় কাজকর্ম থেকে সংসদে যাওয়ার ক্ষেত্রে শাড়ি নির্বাচন থেকে সানগ্লাস- সমস্ত বিষয়েই বিশেষ যত্নশীল তিনি। এদিনও তার ব্যতিক্রম হয়নি। বরং লাল রঙের শাড়ি ও চোখে চেনা সেই সানগ্লাসে এদিন আরও বেশি গ্ল্যামারাস হয়ে ওঠেন কৃষ্ণনগরের সাংসদ। বিশেষ কোনও মেকআপ নয়, চুল খোলা, কানে সাদা পাথরের বসা দুল, একহাতে সাদা পাথর খচিত বালা এবং অপর হাতে দামি সাদা পাথরের আংটি এবং ঠোঁটে হালকা লিপস্টিকে সজ্জিত মহুয়া এদিন সকলের মধ্যে বিশেষভাবে নজর কাড়েন।

কেবল পোশাক-পরিচ্ছদ নয়, হাতে বড় লেদারের ব্যাগ, ফাইল এবং স্মার্ট ফোন হাতে নিয়ে সংসদে ঢোকার সময় তৃণমূল সাংসদকে এতটুকু উদ্বিগ্ন দেখায়নি। বরং তাঁর ঠোঁটের কোণে ধরা পড়ে হাসির ঝিলিক। যেন কিছুই হয়নি। এথিক্স কমিটির রিপোর্ট নিয়ে যে তিনি এতটুকু ভাবিত নন, বরং পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করে রেখেছেন, তা সাংবাদিকদের কাছে স্পষ্ট করে দেন মহুয়া মৈত্র।

এদিন প্রথম পর্যায়ের অধিবেশন শেষে সাংবাদিকেরা মহুয়া মৈত্রের কাছে এথিক্স কমিটির রিপোর্টের প্রেক্ষিতে তিনি কী পদক্ষেপ করবেন, সে বিষয়ে প্রশ্ন করেন। জবাবে সাংবাদিকদের একেবারে ‘সোয়াইপ আউট’ করে দেন তৃণমূল সাংসদ। বলেন, “এটা যখন টেবিলে (সংসদ) পেশ করা হয়নি, তখন আমি কী বলতে পারি? যদি উপস্থাপন করত, তাহলে আমি কিছু বলতাম। যখন এটি টেবিলে পেশ করা হবে, তখন আমি এটা নিয়ে কথা বলব…।”

এদিন শেষ পর্যন্ত তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রের সাংসদ পদ খারিজের রিপোর্ট লোকসভায় পেশ করা হয়নি। কবে রিপোর্ট পেশ করা হবে তা স্পষ্ট করেনি এথিক্স কমিটি। তবে যেদিনই রিপোর্ট পেশ হোক, বিষয়টি নিয়ে যে তিনি এতটুকু ভাবিত হন, তা মহুয়া মৈত্রের কথাবার্তাতেই স্পষ্ট।