Abhishek Banerjee in Tripura: ‘এ রাজ্যে দুয়ারে গুন্ডার মডেল ঢুকে গিয়েছে’, ত্রিপুরায় কটাক্ষ অভিষেকের

Abhishek Banerjee: যে রাজনৈতিক দল কথায় কথায় অন্য রাজনৈতিক দলের ভুল ধরতে আগ্রহ দেখায়, সেই রাজ্যের নেতৃত্বাধীন রাজ্য সরকার সহিংস দমন-পীড়নের ঘটনায় প্রতিদিন নিজেদের রেকর্ড নিজেরা ভাঙছে''।

Abhishek Banerjee in Tripura: 'এ রাজ্যে দুয়ারে গুন্ডার মডেল ঢুকে গিয়েছে', ত্রিপুরায় কটাক্ষ অভিষেকের
সাংবাদিক বৈঠকে অভিষেক। নিজস্ব চিত্র।

আগরতলা: “যে পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে এ রাজ্য চলছে, দিনের আলোতেও মানুষের বেরনো মুশকিল হয়ে গিয়েছে। এমন একটা পরিস্থিতি, নৈরাজ্য, এমন একটা বাতাবরণ সারা রাজ্য জুড়ে তৈরি করা হয়েছে যা সারা ভারতবর্ষের মানুষ কোনওদিন দেখেনি”। ত্রিপুরায় (Tripura) সাংবাদিক বৈঠকে মন্তব্য তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee)।

বিপ্লব দেবের সরকারের উদ্দেশে কটাক্ষ ছুড়ে দিয়ে অভিষেক বলেন, “যে রাজনৈতিক দল কথায় কথায় অন্য রাজনৈতিক দলের ভুল ধরতে আগ্রহ দেখায়, সেই রাজ্যের নেতৃত্বাধীন রাজ্য সরকার সহিংস দমন-পীড়নের ঘটনায় প্রতিদিন নিজেদের রেকর্ড নিজেরা ভাঙছে”। তৃণমূল সাংসদ যোগ করেন, “মিটিংয়ের পারমিশন দেওয়া হয়না, মানুষের কাছে পৌঁছতে দেয়না এই সরকার (বিজেপি)।”

তাঁর দাবি ত্রিপুরায় সংবাদমাধ্যম থেকে চিকিৎসক, সবাই আক্রন্ত হন। তাঁর কটাক্ষ, যে রাজ্যে হাসপাতালে দুয়ারে গুন্ডার মডেল ঢুকে যাচ্ছে। “যে রাজ্যে পুলিশ থানায় দিবালোকে এক দিনে দু’ দু বার আক্রমণ করা হয়, থানার আইসি, ওসি তালা মেরে টেবিলের তলায় বসে থাকতে হচ্ছে। যারা আইন-শৃঙ্খলার পরিস্থিতি রক্ষার দায়িত্বে তাদের যদি এই দুরবস্থা হয়, পরিণতি হয়, তাহলে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা কোথায়?” ত্রিপুরায় সাংবাদিক বৈঠকে মন্তব্য অভিষেকের।

এর পর সায়নী ঘোষের গ্রেফতারি নিয়ে মুখ খোলেন অভিষেক। বলেন, কাল যে ঘটনা আগরতলা ইস্ট থানায় ঘটেছে, আপনারা সবাই উপলব্ধি করেছেন, নিজেদের চোখে দেখেছেন… পুলিশের সামনে ভারতীয় জনতা পার্টির মুখ্যমন্ত্রী, বিপ্লব দেবের ইন্ধনে দুয়ারে গুন্ডার সব মস্তানরা মাথায় হেলমেট পরে হাতে লাঠিসোটা নিয়ে নির্মম ভাবে আমাদের কর্মীসমর্থক, প্রার্থীদের পিটিয়েছেন। সেখান থেকে তাঁরা হাসপাতালে ভর্তি হতে গিয়েছেন, হাসপাতালেও ঢুকে পড়েছে!”

অভিষেক অভিযোগ করেন তাঁদের একাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বিজেপি আশ্রিত গুন্ডাদের মারে। এমনকি সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিকেও রেয়াত করা হয়নি বলে অভিযোগ। এর পর ত্রিপুরা রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের একহাত নেন তিনি। বলেন, “এমন না যে কোনও খেলার মাঠ, প্রাইভেট প্রোপার্টি-তে আক্রমণ হচ্ছে, এমন না যে কোনও পাড়ার ক্লাবে ক্লাবে ঝামেলায় দু পক্ষ একে অপরকে আক্রমণ করেছে। পুলিশের সামনে থানাতেই আক্রমণ করা হচ্ছে। আর পুলিশ নিরব দর্শক!”

অভিষেক যোগ করেন, “আমি প্রশাসনকে অনুরোধ করব, আপনারা আপনাদের কর্তব্য পালন করুন। আপনারা মানুষের জন্য কাজ করছেন, জন প্রতিনিধি বা রাজ্য সরকারের যে কোনও পদাধিকারী হোক না কেন, সবার উচিত মানুষের স্বার্থরক্ষা করা। এলাকার শান্তি-সংহতি বজায় রাখা। আপনারা সেটা করছেন না।”

পুলিশ প্রশাসনকে কটাক্ষ করে অভিষেকের মন্তব্য, “কয়েকজন বিজেপি নেতাকে খুশি করতে গিয়ে ত্রিপুরা রাজ্যের যে ভাবমূর্তি তৈরি করছেন, তাতে ত্রিপুরা রাজ্যকে আপনারা ৫০ বছর পিছিয়ে দিচ্ছেন।” তিনি আরও যোগ করেন, “ত্রিপুরা প্রশাসনের কাছে হাতজোড় করে অনুরোধ করব, কারও কথায়, রাজ্যটাকে কারও পৈতৃক সম্পত্তি ভেবে যা ইচ্ছে তা করা বন্ধ করুন।”

এর পর অভিষেক আক্রমণ করেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবকে। বলেন, “আপনি এতটাই নির্লজ্জ হয়েছেন যে ভারতের একটা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আপনি, যে সময়টা আপনি বিরোধীদের উপর অত্যাচার করছেন, হেলমেট বাহিনি, বাইক বাহিনি পাঠিয়ে তাণ্ডব করছেন পাড়ায় পাড়ায়। এই সময়টুকু যদি উন্নয়নমূলক কর্মসূচিতে দিতেন তাহলে ত্রিপুরার এই পরিণতি বা অবনতি হত না।”

পুরভোটে তৃণমূলকে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ” প্রথম দিন বলেছি, আজও একই কথা বলছি, আমরা আপনাদের উপর আসা আঘাত মাথা পেতে নেব, কিন্তু সাহস করে মাথা তুলে আপনাদেরই দাঁড়াতে হবে। আপনাদের ভোট যাতে আপনারা দিতে পারেন।”

আরও পড়ুন: Sukanta Majumdar: ‘কিম জং উনকে যদি কেউ চ্যালেঞ্জ করতে পারেন, তিনি মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী’ 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla