Laxmi Puja: লক্ষ্মী লাভের আশায় ‘সরস্বতীর’ হাত ছাড়লো মাধবী!

Jalpaiguri: অভাবের সংসারে হাল ফেরাতে বাবার সঙ্গে পাকাপাকি ভাবে প্রতিমা বানাতে লেগে পড়েছে সে।

Laxmi Puja: লক্ষ্মী লাভের আশায় 'সরস্বতীর' হাত ছাড়লো মাধবী!
প্রতিমা বানাতে বাবাকে সাহায্য করতে ব্যস্ত মাধবী (নিজস্ব ছবি)

ময়নাগুড়ি: পুজো আসে পুজো যায়। তবু ঘোরে না ভাগ্যের চাকা। তার উপর দোসর করোনা(Corona)। গতবছর পুজো হয়নি ঠিকমতো। যার কারণে চরম অসুবিধায় পড়েছিলেন মূর্তি বানানোর কারিগররা। তাই এই বছর লক্ষ্মীলাভের আশায় জোর কদমে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ওঁরা।

ময়নাগুড়ি রোড এলাকায় রয়েছে ২৫ থেকে ৩০ পাল পরিবার। যাঁদের মূল উপার্যনের পথ হল লক্ষ্মী, মনসা বিশ্বকর্মা ও সরস্বতী প্রতিমা বানিয়ে তা বিক্রি করা। এদের মধ্যেই একজন কার্তিক পাল। তার মেয়ে মাধবী পাল। দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে। অভাবের সংসারে হাল ফেরাতে বাবার সঙ্গে পাকাপাকি ভাবে প্রতিমা বানাতে লেগে পড়েছে সে।

মাধবী পাল জানালেন,”ছোটো থেকেই বাবার সঙ্গে হাতে-হাতে সাহায্য করছি। কিন্তু এখন বাড়িতে খুবই অভাব। বাবার পক্ষে একা আর প্রতিমা বানানো সম্ভব নয়। এদিকে যে কারিগর রাখব তার খরচ জোগাবে কে? তাই বাবাকে সাহায্য করতে পড়াশোনা বাদ দিয়ে এখন প্রতিমা বানাচ্ছি।”

প্রতিবেশী আল্পনা পাল। তিনি জানালেন,বিয়ের আগে এই কাজের সঙ্গে তিনি যুক্ত ছিলেন না। বিয়ের পর থেকে গত ছয় বছর ধরে সংসারে লক্ষী লাভের আশায় প্রতিমা বানাচ্ছেন।

মূলত পাইকারি দড়ে শহরের দশকর্মা ভান্ডারে প্রতিমা বিক্রি করে থাকে। একেকটা প্রতিমা ২০ থেকে শুরু করে ৫০০টাকা পর্যন্ত দামে বিক্রি করে থাকেন এরা। একেকটি পরিবার ছোটো-বড় মিলিয়ে ৬০০ থেকে ১২০০ পিস লক্ষ্মী পর্যন্ত প্রতিমা বানিয়ে থাকেন।

গত দু বছর ধরে করোনা সংক্রমণের ঠেলায় বিভিন্ন ধরনের প্রতিমা বিক্রি প্রায় তলানিতে ঠেকেছে। এবছরেও বিভিন্ন সাইজের বিশ্বকর্মা ঠাকুর বানিয়েছিল এই পরিবার গুলি। কিন্তু তেমন ভাবে বিক্রি না হওয়ায় সমস্যায় পড়ে এই ক্ষুদ্র প্রতিমা শিল্পীরা।

ময়নাগুড়িতে এখন সাজো-সাজো রব। কারণ আগামী মঙ্গলবার ও বুধবার এই দুইদিন হবে কোজাগরী লক্ষ্মী পুজো। প্রতিমা তৈরির জন্য হাতে আর মাত্র এক রয়েছে। তাই এখন প্রচণ্ড ব্যস্ততা এইসকল এলাকায়। কারণ এবার করোনার প্রকোপ ক্ষানিকটা কম। তাই আশা এবার হয়তো ঘরে-ঘরে লক্ষ্মী পুজো মহা ধূমধামের সঙ্গে হবে। তাই বাড়ির বউ, ছেলে-মেয়ে,নাতি-নাতনি সকলকে নিয়ে প্রতিমা বানাতে নেমে পড়েছে পাল পরিবার গুলি।

এদিকে, লক্ষ্মীপুজোর আগে ফের দুর্যোগের (Weather Update) মুখে বাংলা। ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা দক্ষিণবঙ্গের ৭ জেলায়। উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলাতেও অতি ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা। সতর্কতা জারি কলকাতা, হাওড়া, হুগলিতে। উদ্বেগ বাড়াতে পারে ডিভিসি-র জলও। দক্ষিমবঙ্গে রয়েছে ঝোড়ো বাতাসের সতর্কতা। রবিবার দক্ষিণবঙ্গের ৭ জেলায় বৃষ্টির কমলা ও হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ২ জেলায় জারি অতি ভারী বৃষ্টির কমলা সতর্কতা। পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় জারি কমলা সতর্কতা। কলকাতা, হাওড়া, হুগলিতে জারি হলুদ সতর্কতা। উত্তর ২৪ পরগনা ও পশ্চিম মেদিনীপুরে হলুদ সতর্কতা জারি রয়েছে। পাঁচ জেলায় ভারী বর্ষণের হলুদ সতর্কতা জারি রয়েছে। সোমবার দক্ষিণবঙ্গের ৭ জেলায় বৃষ্টির কমলা সতর্কতা জারি রয়েছে। দার্জিলিং, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ারে হলুদ সতর্কতা জারি রয়েছে।

আরও পড়ুন: Naushad Siddique: ‘দোষীদের কড়া শাস্তি দিন’, শেখ হাসিনাকে চিঠি লিখলেন আইএসএফ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকি

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla