Kanhaiya Kumar: মালা পরানোর নামে ঠাটিয়ে চড় কানহাইয়া কুমারকে! ছেটানো হল কালিও

Kanhaiya Kumar Attacked: কংগ্রেস নেতার উপরে সাত-আটজন মিলে চড়াও হয়েছিল। দলীয় বৈঠক থেকে কানহাইয়া বের হতেই তাঁকে ঘিরে ধরেন সমর্থকরা। ওই ভিড় থেকেই আক্রমণকারীরা মালা পরানোর নাম করে এগিয়ে আসেন। কানহাইয়ার গলায় মালা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সপাটে চড় মারেন।

Kanhaiya Kumar: মালা পরানোর নামে ঠাটিয়ে চড় কানহাইয়া কুমারকে! ছেটানো হল কালিও
আক্রান্ত কানহাইয়া কুমার।Image Credit source: Twitter
Follow Us:
| Edited By: | Updated on: May 18, 2024 | 6:29 AM

নয়া দিল্লি: প্রচারে বেরিয়ে আক্রান্ত কানহাইয়া কুমার। উত্তর দিল্লির কংগ্রেস প্রার্থীকে খেতে হল চড়! মুখে-গায়ে ছেটানো হল কালো কালি। দিল্লির উসমানপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। কানহাইয়া কুমারের সঙ্গে থাকা আম আদমি পার্টির এক কাউন্সিলরকেও হেনস্থা করা হয়েছে বলে অভিযোগ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরালও হয়েছে সেই ভিডিয়ো।

জানা গিয়েছে, কংগ্রেস নেতার উপরে সাত-আটজন মিলে চড়াও হয়েছিল। দলীয় বৈঠক থেকে কানহাইয়া বের হতেই তাঁকে ঘিরে ধরেন সমর্থকরা। ওই ভিড় থেকেই আক্রমণকারীরা মালা পরানোর নাম করে এগিয়ে আসেন। কানহাইয়ার গলায় মালা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সপাটে চড় মারেন। গোটা ঘটনায় হকচকিয়ে যান কংগ্রেস প্রার্থী। এরইমধ্যে হামলাকারীরা কালো কালি বের করেও কানহাইয়াকে লক্ষ্য করে ছুড়ে মারেন।

দুই অভিযুক্ত নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় কানহাইয়া কুমারের উপরে হামলার ভিডিয়ো করেছেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে, অভিযুক্তরা বলছেন তাঁরাই কানহাইয়া কুমারকে চড় মেরেছেন। কানহাইয়া কুমার দেশ ভাগের স্লোগান দিয়েছিলেন এবং ভারতীয় সেনাকে অপমান করেছেন। তার প্রতিশোধ নিতেই কংগ্রেস নেতার উপরে হামলা। নিজেদের ‘সনাতনী সিংহ’ বলে দাবি করেন ওই দু’জন।

অন্যদিকে, পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছেন আম আদমি পার্টির কাউন্সিলর ছায়া গৌরব শর্মা। তিনি দানান, কর্তার নগরের পার্টি অফিস থেকে বেরতেই সাত-আটজন এসে কানহাইয়া কুমারকে মালা পরান। এরপরই তাঁর উপর কালি ছোড়েন এবং তাঁকে চড় মারেন। গোটা ঘটনায় তিন-চারজন মহিলাও আহত হন। এক মহিলা সাংবাদিক ধাক্কাধাক্কিতে ড্রেনে পড়ে যান।

ছায়া শর্মার অভিযোগ, হামলাকারীরা তাঁর ওড়না ধরে টানতে টানতে এক কোণায় নিয়ে যায় এবং তাঁকে ও তাঁর স্বামীকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

দিল্লি পুলিশের তরফেও জানানো হয়েছে, তারা ভিডিয়োগুলি খতিয়ে দেখছেন। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।