সন্দেহ এড়িয়ে, স্ত্রী বা প্রেমিকার মোবাইল ট্র্যাক করবেন কীভাবে?

কী করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না! টাকা খরচ করে গুপ্তচর না রেখে নিজেই স্ত্রী বা প্রেমিকার মোবাইল ট্রাক করুন আপনার স্মার্টফোন থেকেই।

  • Publish Date - 8:19 pm, Mon, 17 May 21
সন্দেহ এড়িয়ে, স্ত্রী বা প্রেমিকার মোবাইল ট্র্যাক করবেন কীভাবে?
স্ত্রী বা প্রেমিকার মোবাইল ট্র্যাক করবেন কীভাবে?

বেশ কয়েকদিন ধরে লক্ষ্য করছেন, আপনার স্ত্রী বা প্রেমিকা অদ্ভূত আচরণ করছেন। সন্দেহ করছেন গোপনে কারোর সঙ্গে কথাবার্তা বলছে, তাঁর সঙ্গেই কোথাও যাচ্ছে। এমনকি এও বিশ্বাস করতে শুরু করেছেন যে, তাঁর জীবনে আপনি ছাড়া আরও অন্য কেউ উড়ে এসে জুড়ে বসেছে! কিন্তু স্ত্রী সবসময় মোবাইল আগলে রাখেন। কে প্রতিদিন ফোন করে, কার সঙ্গেই বা এত গল্প, কোথায় যাচ্ছে! মোবাইলের কললিস্ট দেখে জানার উপায় নেই। তাহলে কী করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না! টাকা খরচ করে গুপ্তচর না রেখে নিজেই স্ত্রী বা প্রেমিকার মোবাইল ট্রাক করুন আপনার স্মার্টফোন থেকেই। এর জন্য রয়েছে বিশেষ কয়েকটি ট্র্যাকিং অ্যাপ্লিকেশন, যা ডাউনলোড করে কাজ শুরু করলেই হদিশ পাবেন আপনার স্ত্রী বা প্রেমিকার মোবাইলের অবস্থান।

বেস্ট ফোন ট্র্যাকার Spyic

প্রযুক্তি এখন কোথায় চলে গিয়েছে, তা আপনার ধারণার বাইরে। সঙ্গী বা সঙ্গিনীর ডিভাইসে গুপ্তচরের কাজ করা অসম্ভব বলে মনে হলে আপনার জন্য রয়েছে সবচেয়ে কার্যকরী ফোন ট্র্যাকারের হদিশ। ১৯০টিরও বেশি দেশের কয়েক হাজার লক্ষ মানুষ এই অ্যাপের সাহায্যে নিজের জীবন বাঁচিয়েছে। এই অ্যাপের মাধ্যমে স্ত্রী বা প্রেমিকার অজান্তেই ফোনটি ট্র্যাক করবেন কীভাবে, জেনে নিন…

আরও পড়ুন- জুন থেকেই বন্ধ হচ্ছে Google Photos! কীভাবে ছবি ডাউনলোড করবেন, পদ্ধতিগুলি জেনে নিন

এটি অ্যান্ডড্রয়েড ও আইওএস দুটি প্ল্যাটফর্মেই উপযুক্ত। অ্যান্ডড্রয়েড ফোনের জন্য যদি ২ এমবি লাইটওয়েট Spyic অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনার স্ত্রী বা পার্টনারের ফোনের কোনও যোগাযোগ করার প্রয়োজন নেই। বহুদূরের জায়গাতে স্ত্রীর গ্য়াজেটের নানান প্রয়োজনীয় তথ্য পেয়ে যাবেন নিমেষের মধ্যে। কোনও রকম প্রযুক্তিগত দক্ষতা ছাড়াই আপনার স্ত্রীর ফোনটি সহজেই ট্র্যাক করতে পারবেন। শুধু প্রয়োজন কম্পিউটার বা স্মার্টফোন, ভাল ইন্টারনেট কানেকশন ও সক্রিয় ইমেইল অ্যাডড্রেস।

স্টেপ ১- Spyic -এ একটি নিজের অ্যাকাউন্ট খুলুন। তাতে আপনার ইমেইল আইডি ও পাসওয়ার্ড দিতে হবে। এবার টারগেট ডিভাইস সিলেক্ট করে সাবস্ক্রিপসন প্ল্যান অনুযায়ী টাকা দিয়ে অ্যাপটি ডাউনলোড করুন।

স্টেপ ২- সঙ্গে সঙ্গে আপনার স্ক্রিনে লগ-ইন করার পর একটি সেট আপ গাইডলাইনও চলে আসনে।

স্টেপ ৩- অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীরা ডাউনলোড ও ইনস্টল করুন ইমেইলের মাধ্যমে। ইমেইল লিংক দিলেই ইনস্টল করতে পারবেন Spyic অ্যাপ। অন্যদিকে iOS ব্যবহারকারীরা iCloud-এ ইউজারনেম ও পারওয়ার্ড দিয়ে সিঙ্ক্রোনাইজেশনের জন্য অপেক্ষা করুন।

স্টেপ-৪- আপনার ওয়েব-বেসড অ্যাকাউন্টটি রি-অ্যাকসেস করুন। ড্যাশবোর্ডেই দেখতে পাবেন Spyic-এর অত্যাধুনিক ফিচার ও টারগেট গ্যাজেট নিয়ে তথ্য। ড্যাশবোর্ডের বাঁদিকের একটি অংশে লোকেশন ফিচারে গিয়ে ক্লিক করুন। আপনার স্ত্রী বা প্রেমিকার লোকেশনও পেয়ে যাবেন সেখানে।

আরও পড়ুন- লকডাউনে শিশুদের নতুন বন্ধু হেডফোন! ডেসিবলের মাত্রা কত থাকলে কান থাকবে নিরাপদ, জেনে নিন…

কিছু দরকারি পরামর্শ

উচ্চতর প্রযুক্তির কারণে Spyic-এর জন্য কখনও ডিভাইস কাস্টমাইজেশনের প্রয়োজন হয় না। iOS ও অ্যান্ড্রয়েড উভয় ফোনেই সহজ উপায়ে ও দ্রুততার সঙ্গে ইনস্টল হয়ে যায়। মোটামুটি পাঁচ মিনিটের মধ্যেই আপনি এই অ্যাপের সাহায্যে কাজ শুরু করতে পারবেন।

iOS ব্যবহারকারীদের জন্য iCloud ব্যবহার করে Spyic । সেক্ষেত্রে অ্যান্ড্রয়েডে সাধারণ ইমেইল লিংক থাকলেও চালু হয়ে যায়। ভাবছেন ইনস্টল করার পর কোনও ভাউরাসের খপ্পরে পড়বেন কিনা।এদিক থেকে Spyic যথেষ্ট সুরক্ষিত।যে কোনও ওয়েবব্রাউজার থেকেই এই অ্যাপ ওপেন করতে পারবেন। অনলাইন ড্যাশবোর্ড থাকলে Spyic আনইনস্টল করেও স্ত্রী বা পার্টনারের ফোন ট্র্যাক করতে পারবেন।