Murder Accused: পুলিশের হেফাজত থেকে পালিয়ে কিশোরকে অপহরণ! খুনে অভিযুক্তের বাংলাদেশ পালানোর ছক ভেস্তে দিল পুলিশ

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: অংশুমান গোস্বামী

Updated on: Jun 17, 2022 | 4:30 PM

Kidnapping: ১৭ মে ভোরে বৈদ্যবাটি পুরসভার এক নম্বর ওয়ার্ড ঘোষালপাড়া থেকে আকাশ দে নামে এক ১৬ বছরের কিশোরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় কৃষ্ণ।

Murder Accused: পুলিশের হেফাজত থেকে পালিয়ে কিশোরকে অপহরণ! খুনে অভিযুক্তের বাংলাদেশ পালানোর ছক ভেস্তে দিল পুলিশ
ধৃত অভিযুক্ত কৃষ্ণ সরকার

শ্রীরামপুর: খুনের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছিল কৃষ্ণ সরকার নামের এক ব্যক্তিকে। কিন্তু পুলিশি হেফাজত থেকে পালিয়ে যায় সে। পালানোর সময় এক কিশোরকে অপরহণ করে। তার পর বাংলাদশ সীমান্ত লাগোয়া একটি গ্রামে গা ঢাকা দিয়ে ছিল সে। প্রায় এক মাস পর অভিযুক্ত কৃষ্ণকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অপহৃত কিশোরকেও উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে ফের গ্রেফতারের পর শ্রীরামপুর থানার পুলিশ জানিয়েছে, সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে যাওয়ার ছক কষেছিল অভিযুক্ত। খুনের মামলা ছাড়াও পুলিশের হেফাজত থেকে পালানো ও অপরহরণের মামলা দায়ের করা হয়েছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে।

১২ মে শ্রীরামপুরের রাজ্যধরপুরের দাসপাড়ায় খুন হন বৃদ্ধ গৌতম দাস। পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে, সম্পত্তির লোভে তাঁর ভাই উজ্জ্বল দাস ও ভগ্নিপতি বিজয় মণ্ডল সুপারি কিলার দিয়ে দাদাকে খুন করিয়েছে। সেই ঘটনায় সুপারি কিলাররা ছিল এলাকারই দুষ্কৃতী কৃষ্ণ সরকার সহ তিন জন। ১৩ মে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় ১৬ মে শ্রীরামপুর ওয়ালস হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায় কৃষ্ণ। পুলিশ তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করে।

১৭ মে ভোরে বৈদ্যবাটি পুরসভার এক নম্বর ওয়ার্ড ঘোষালপাড়া থেকে আকাশ দে নামে এক ১৬ বছরের কিশোরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় কৃষ্ণ। নাতির অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন আকাশের দাদু। পুলিশ হন্যে হয়ে খুঁজতে শুরু করে অভিযুক্ত কৃষ্ণকে। ঠিক এক মাস পর কৃষ্ণের সন্ধান পায় পুলিশ। গত পরশু তার বাড়িতে ফোন করে কৃষ্ণ। সেই সূত্র ধরে পুলিশ খোঁজ শুরু করে। সূত্র মারফত জানতে পারে, নদিয়ার ধানতলা থানা এলাকায় কৃষ্ণকে দেখা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে শ্রীরামপুর থানার একটি দল রওনা দেয় ধানতলা। রাত ১টা নাগাদ নারায়ণপাড়া গ্রামে একটি বাড়ি থেকে কৃষ্ণকে গ্রেফতার করা হয়। উদ্ধার হয় অপহৃত কিশোরও।

বাংলাদেশ সীমান্তের খুব কাছে নারায়ণপাড়া গ্রাম। পুলিশের অনুমান বাংলাদেশ পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল কৃষ্ণের। গত ১৫ দিন ধরে সে আকাশকে নিয়ে ধানতলাতেই ছিল। শুক্রবার ধৃতকে শ্রীরামপুর আদালতে তোলা হয়েছে। খুনের মামলা ছাড়াও পুলিশ হেফাজত থেকে পালানো এবং অপহরনের মামলা দায়ের হয়েছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla