অন্তর্দ্বন্দ্বে চিন! বেজিংয়ের সঙ্গে উত্তেজনার আবহেই তাইওয়ানের আকাশ থেকে হারিয়ে গেল যুদ্ধবিমান

তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েন ইতিমধ্যেই সব এফ-১৬ কে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বেস ক্যাম্পে নামিয়ে আনার নির্দেশ দিয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে এখনই উদ্ধার কাজ থামিয়ে না দিতেও সব সংস্থাকে অনুরোধ করেছেন তিনি।

অন্তর্দ্বন্দ্বে চিন! বেজিংয়ের সঙ্গে উত্তেজনার আবহেই তাইওয়ানের আকাশ থেকে হারিয়ে গেল যুদ্ধবিমান
প্রতীকী চিত্র
সুমন মহাপাত্র

|

Nov 19, 2020 | 10:16 AM

TV9 বাংলা ডিজিটাল: তাইওয়ানের (Taiwan) আকাশ থেকে হারিয়ে গেল যুদ্ধ বিমান এফ-১৬। বেজিংয়ের সঙ্গে উত্তেজনার আবহে মঙ্গলবারের এমন ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। প্রশিক্ষণের জন্য কর্নেল চিয়াং চেং-চি মঙ্গলবার রাতে এফ-১৬ বিমান উড়িয়ে ছিলেন। তারপর হঠাৎই তাঁর সঙ্গে সব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সংবাদ মাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন তাইওয়ান বায়ু সেনার কম্যান্ডার সিয়ে জি-শেং।

তবে এই ঘটনা প্রথম নয়। গত মাসেও হারিয়ে গিয়েছিল অন্য একটি বিমান। পরে জানা যায় সেটি ভেঙে সমুদ্রে পড়ে গিয়েছিল। বেজিংয়ের সঙ্গে তাইপেইর উত্তেজনা এখন চরমে। মাঝে মাঝেই তাইওয়ানের আকাশে ঢুকে পড়ছে বেজিংয়ের যুদ্ধ বিমান। সেক্ষেত্রে মাত্র ৬ হাজার ফুট উচ্চতা থেকে এই ভাবে এফ-১৬ এর হারিয়ে যাওয়ায় বেজিংয়ের কোনও যোগসূত্র থাকার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না বিশেষজ্ঞরা।

তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েন ইতিমধ্যেই সব এফ-১৬ বেস ক্যাম্পে নামিয়ে আনার নির্দেশ দিয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে এখনই উদ্ধার কাজ থামিয়ে না দিতেও সব সংস্থাকে অনুরোধ করেছেন তিনি। গত মাসেই তাইওয়ানের এফ-৫ যুদ্ধবিমান আকাশ থেকে সমুদ্রে পড়ে গিয়েছিল। যার ফলে মৃত্যু হয়েছিল পাইলটের। সেখানে প্রশ্ন উঠেছিল পুরোনো যুদ্ধ বিমান চালানোর ফলেই এমন বিপত্তি হচ্ছে।

অগস্ট মাসেই আমেরিকার সঙ্গে নতুন এফ-১৬ কেনার চুক্তি করেছে তাইওয়ান। চিন কোনও দিন চায়নি তাইওয়ান আমেরিকার সঙ্গে চুক্তি করুক। তাই বিগত ৩০ বছর ধরে চেষ্টা করেও এই স্বশাসিত অঞ্চল আমেরিকার সঙ্গে চুক্তি করতে পারেনি। কিন্তু এইবার প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েন তা করে দেখিয়ে ছিলেন।

তাইপেইর একটি সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে ১৯৯৭ সাল থেকে তাইওয়ানের আকাশে উড়ছে এফ-১৬। তারপর থেকে ২৪ বছরে মোট সাতটি বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে। চলতি বছরের জুলাই মাসের একটি হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় সেদেশে প্রাণ হারিয়ে ছিলেন ২ জন। জানুয়ারিতেও একটি হেলিকপ্টার ভেঙে পড়েছিল, তখনও মৃত্যু হয়েছিল ১২ জনের।

আরও পড়ুন: করোনার বর্ষপূর্তি! এখনও রোজ আক্রান্ত হচ্ছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ, মৃত্যু হচ্ছে হাজারে হাজারে

কয়েক দিন আগেই ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য সংক্রান্ত বৈঠক করতে চেয়েছিল তাইওয়ান। যার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে ছিল বেজিং। স্বশাসিত অঞ্চল হলেও বেজিং দাবি করে তাইওয়ান চিনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। যদিও তাইওয়ানবাসীদের এই বিষয়ে ভিন্ন ধারণা। তবে তাইওয়ানকে রক্তচক্ষুর আড়ালে রেখে সারা বিশ্বের সঙ্গে তাইপেইর যোগাযোগ বন্ধ করতে চায় বেজিং। কিন্তু তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টের একাধিক পদক্ষেপে বেজিংয়ের সেই অভিসন্ধি কাজ করছে না। তাই তাইওয়ান ও বেজিংয়ের মধ্যে উত্তেজনা চরমে।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla