‘টাকা না দিলে এ বার গাড়ি চাপা দেব’, দায়স্বীকার করে অম্বানীকে হুঁশিয়ারি জইশ-উল-হিন্দের

মুকেশ অম্বানী(Mukesh Ambani)-র পরিবারকে হুমকি দিয়ে জইশ-উল-হিন্দ (Jaish-ul-Hind) বলে, "যদি আমাদের দাবি পূরণ না করা হয়, তবে পরেরবার আপনাদের সন্তানদের উপর দিয়েই গাড়ি চালিয়ে দেওয়া হবে। আগে যে কথা বলা হয়েছিল, সেই অনুযায়ী টাকা ট্রান্সফার করে দিন।"

‘টাকা না দিলে এ বার গাড়ি চাপা দেব’, দায়স্বীকার করে অম্বানীকে হুঁশিয়ারি জইশ-উল-হিন্দের
ফাইল চিত্র।

মুম্বই: ধনকুবের মুকেশ অম্বানী(Mukesh Ambani)-র প্রাসাদ প্রমাণ বাড়ি “অ্যান্টিলিয়া” (Antilia)-র সামনে বিস্ফোরক রাখার দায় স্বীকার করে নিল জইশ-উল-হিন্দ (Jaish-ul-Hind) জঙ্গি সংগঠন। একইসঙ্গে হুমকি দেওয়া হল, “এটা তো সবে ট্রেলর, আসল ছবি প্রকাশ হতে এখনও বাকি।” সংগঠনের তরফে দাবি করা নির্দিষ্ট অঙ্ক না মেটালে অম্বানির সন্তানদের গাড়ি চাপা দেওয়া হবে বলেও হুমকি দিল তাঁরা।

গত বৃহস্পতিবার মুম্বইয়ে মুকেশ অম্বানীর বাড়ি অ্যান্টিলিয়া থেকে মাত্র এক কিলোমিটার দূরেই একটি স্করপিও গাড়ি থেকে ২০টিরও বেশি জিলেটিন স্টিক (Gelatin Stick) ও ডিটোনেটর (Degtonator) উদ্ধার করা হয়। একইসঙ্গে একটি চিঠিও পাওয়া যায়। সেখানে লেখা ছিল, “এটা নিছকই ট্রেলার। নীতা ভাবি, মুকেশ ভাইয়া এটা তো সবে একটি ঝলক দেখলেন। পরের বার সব ব্যবস্থা সম্পূর্ণ করেই আসব। সব প্রস্তুতি হয়ে গিয়েছে।” এরপরই কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয় অম্বানি ভবন।

মুম্বই পুলিশ (Mumbai Police)-র তরফে তদন্ত শুরু করা হয়। পুলিসের হাতে উঠে আসে একাধিক সিসিটিভির ফুটেজ(CCTV Footage)। এরপরই শনিবার টেলেগ্রাম (Telegram) মেসেজিং অ্যাপে জইশ-উল-হিন্দ এই ঘটনার দায়স্বীকার করে নেওয়া হয়। বিটকয়েন (Bitcoin)-র মাধ্যমে টাকাও দাবি করা হয়। জঙ্গি সংগঠনের তরফে চ্যালেজ্ঞ ছুড়ে দেওয়া হয়েছে তদন্তকারী সংস্থার দিকেও। মেসেজে বলা হয়েছে, “সাহস থাকলে আমাদের আটকে দেখাও।”

আরও পড়ুন: বেসরকারি হাসপাতালেও ভ্যাকসিনের খরচ সাধ্যের মধ্যেই, ঘোষণা কেন্দ্রের

অম্বানী পরিবারকেও ফের একবার হুমকি দিয়েছেন জইশ-উল-হিন্দ। তাঁদের উদ্দেশে বলা হয়েছে, “যদি আমাদের দাবি পূরণ না করা হয়, তবে পরেরবার আপনাদের সন্তানদের উপর দিয়েই গাড়ি চালিয়ে দেওয়া হবে। আপনারা জানেন ঠিক কী করতে হবে। আগে যে কথা বলা হয়েছিল, সেই অনুযায়ী টাকা ট্রান্সফার করে দিন।” টাকার দাবি সামনে আসায় আগেও টাকা চেয়েছিল কিনা, সেই বিষয়টি খুঁজে দেখছে তদন্তকারী সংস্থা।

পুলিশের উদ্দেশ্যে মেসেজে বলা হয়েছে, “আপনারা ভাবছেন আমরা কারা। আমরা সেই মানুষ, যাদের একটা গরুর জন্য আপনারা খুন করেছিলেন। আমরা সেই বোন, যাদের গুজরাটে ধর্ষণ করেছিলেন। আপনাদের পাশ দিয়েই আমরা সাধারণ মানুষের পাশ দিয়ে যাতায়াত করি। আমরা সব জায়গায় রয়েছি। আপনারা যাঁরা নিজেদের অন্তরাত্মা বিজেপি ও আরএসএসের কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন, তাদের নিয়েই আমাদের সমস্যা।”

উল্লেখ্য, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে দিল্লিতে ইজরায়েল দূতাবাসের (Israel Embassy Blast) সামনে হামলার ঘটনার দায়স্বীকার করে নিয়েছিল এই জঙ্গি সংগঠনই। গতকালের বার্তায় তারা সেই প্রসঙ্গ টেনেও বলে, “যখন আপনাদের নাকের ডগায় দিল্লিতে হামলা চালিয়েছিলাম, তখনও কিছু করতে পারেননি। আপনারা মোসাদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তদন্তে নামলেন, তবুও ব্যর্থ হলেন। আল্লাহর কৃপায় এবারও ব্যর্থ হবেন আপনারা।”

আরও পড়ুন: আম্বানি-বেজ়োসদের লড়াই, কাজ হারাতে পারেন ১১ লক্ষ কর্মী