‘বছরে ৩০০০ ইউকে ভিসার বদলে অবৈধ অভিবাসীদের ফিরিয়ে নেবে ভারত’, চুক্তি নিয়ে আলোচনা মোদী-জনসনের

মঙ্গলবার দুই রাষ্ট্রনেতার মধ্যে ভার্চুয়াল বৈঠক হয়। আর সেখানে তৈরি হয় দুই দেশের এক রোডম্যাপ।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 23:27 PM, 4 May 2021
'বছরে ৩০০০ ইউকে ভিসার বদলে অবৈধ অভিবাসীদের ফিরিয়ে নেবে ভারত', চুক্তি নিয়ে আলোচনা মোদী-জনসনের
ভার্চুয়াল বৈঠক হয় দুই প্রাধনমন্ত্রীর

নয়া দিল্লি: করোনা পরিস্থিতির মধ্যে ইউকে-র প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক সারলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার সেই বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে একাধিক চুক্তি সংক্রান্ত আলোচনা হয়েছে দুই রাষ্ট্রনেতার মধ্যে। যার মধ্যে অন্যতম ‘মাইগ্রেশন অ্যান্ড মোবিলিটি পার্টনারশিপ’। আর সেই চুক্তিতে দুই দেশের অবৈধ অভিবাসীর সমস্যা মিটবে বলে মনে করা হচ্ছে। বৈঠকের পর বিদেশ মন্ত্রকের তরফে দেওয়া এক বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়েছে।

দুই দেশের মধ্যে ৯টি চুক্তি হয়েছে এ দিন। যার মাধ্যমে প্রত্যেক বছর ৩০০০ ভারতীয় ইউকে-তে গিয়ে কোনও লেবার টেস্ট না দিয়েই দু’বছর চাকরি করার সুযোগ পাবেন। লন্ডনে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে ইউকে-র স্বরাষ্ট্র সচিব প্রীতি পটে ও ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের মধ্যে। এই চুক্তি অনুযায়ী ভারতীয়দের চাকরি দেওয়ার বদলে ভারত ইউকে-তে বসবাসকারী অবৈধ অভিবাসীদের ফিরিয়ে নেবে।

এ ছাড়া বিদেশমন্ত্রক আরও জানিয়েছে যে, বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী মোদীকে জানিয়েছিলেন যে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট ব্রিটেনে বিনিয়োগ করছে এবং ব্রিটেনে এই ভ্যাকসিন তৈরি করবে। দুই নেতা করোনার ভাইরাসের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেছেন। সহযোগিতাযর জন্য ব্রিটেনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন মোদী। সেরাম ইনস্টিটিউট এবং অক্সফোর্ডের মধ্যে অংশীদারিত্বও আলোচনা করা হয়েছে।”

আরও পড়ুন: কোভিডে বাবা-মা হারা অনাথ শিশুদের যত্ন নেবে কে? ‘আইনি দায়িত্ব’ দিলেন স্মৃতি ইরানি

কথোপকথনের পর প্রধানমন্ত্রী মোদী টুইট করে জানিয়েছেন, ‘বন্ধু তথা ইউকে-র প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে আমার একটি ভার্চুয়াল সম্মেলন হয়েছে। আমরা ভারত-ইউকে-র সম্পর্কের ক্ষেত্রে ব্যাপক কৌশলগত অংশীদারিত্বের একটি রোডম্যাপ ২০৩০ তৈরি করেছি। তিনি আরও যোগ জানান, করোনার ভাইরাস পরিস্থিতি ও সহযোগিতা নিয়েও আলোচনা হয়েছে।