‘দলে থেকেও দলবিরোধী কাজ’! পঞ্চায়েত উপপ্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা পেশ তৃণমূলের

TMC brings No Confidence Motion: প্রসঙ্গত, নির্বাচনের পর থেকেই জেলার একাধিক পঞ্চায়েতে প্রধান বা উপপ্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা পেশ করেছেন পঞ্চায়েতের সদস্যরা।

'দলে থেকেও দলবিরোধী কাজ'! পঞ্চায়েত উপপ্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা পেশ তৃণমূলের
চলছে অনাস্থা ভোটপর্ব, নিজস্ব চিত্র

বীরভূম: বিধানসভা নির্বাচনের (West Bengal Assembly Election 2021) পর থেকেই যেমন ঘাসফুলে বেড়েছে যোগদানের হিড়িক তেমনই দলের অভ্য়ন্তরে ছাইচাপা আগুনের মতো বাড়ছে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। বুথস্তরে বা পঞ্চায়েতে একের পর এক নেতৃত্বের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনা হয়েছে। ফের, দলবিরোধী কাজ করার অভিযোগে, সিউড়ী এক নম্বর ব্লকের করিধ্যা পঞ্চায়েতে উপপ্রধান উজ্জ্বল সিংয়ের বিরুদ্ধে তৃণমূলের (TMC) পঞ্চায়েত সদস্যরা  অনাস্থা প্রস্তাব পেশ করে। শুক্রবার হয় নির্বাচনও।

এদিন, তৃণমূলের তরফে করিধ্যা অঞ্চল সভাপতি প্রবীর ধর বলেন, “উজ্জ্বলবাবু কোনওদিন দলের হয়ে কাজ করেননি। বিধানসভা নির্বাচনেও ওঁ বিজেপির তরফে কাজ করেছেন। গোপনে অন্য দলের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছিলেন। সেইজন্যেই আমরা অনাস্থা এনেছি। করিধ্যা পঞ্চায়েতের ১৫ জন সদস্যের মধ্যে ১৩জনই আজ ভোট দিয়েছেন।” পাল্টা বিজেপি (BJP) জেলা সভাপতি ধ্রুব সাহা বলেন, “তৃণমূল দলটা নিজেদের মধ্য়ে ভাগাভাগি করেই শেষ হয়ে যাবে। এ ওর নামে, ও তার নামে খালি অনাস্থা আনছে। ওদের অন্তর্কলহ ওদের পতনের কারণ। কেউ চুপচাপ থাকলেই বলে দিচ্ছে বিজেপির সঙ্গে যোগ আছে। কিছু হলেই এখন বিজেপির দোষ। সময়ে মানুষই এর জবাব দেবে।”

প্রসঙ্গত, নির্বাচনের পর থেকেই জেলার একাধিক পঞ্চায়েতে প্রধান বা উপপ্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা পেশ করেছেন পঞ্চায়েতের সদস্যরা। দলের আগাম অনুমতি ছাড়া এইভাবে আর যখন তখন অনাস্থা পেশ করা যাবে না তা আগেই ঘোষণা করেছিল তৃণমূল। শুধু তাই নয়, এতদিন পর্যন্ত পেশ করা অনাস্থা প্রস্তাব প্রত্যাহারের নির্দেশও দিয়েছে রাজ্য নেতৃত্ব। তারপরেও শুক্রবার. কী করে করিধ্যায় অনাস্থা পেশ করল তৃণমূল? সে প্রসঙ্গে, প্রবীরবাবু জানিয়েছেন, সিউড়ির বিধায়ক বিকাশ রায় চৌধুরীর উপস্থিতিতেই এই অনাস্থা প্রস্তাব আনা হয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘কথা দিয়ে কথা রাখেনি’, রায়গঞ্জে ভাঙন পদ্মে, ঘর ভরল ঘাসফুলের

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla