স্ক্রিন জুড়ে বই-মলাট, সাক্ষী থাকল বইপ্রেমী কলকাতা

১৮ টি বুক কভারে লম্বা তালিকা। এই ১৮টি বই বেছেছেন প্রীতি পল, লেখক কুণাল বসু, নমিতা গোখলে, শশী থারুর, শোভা দে-রা। যাঁরা এই বইয়ের মলাট আঁকিয়ে অর্থাৎ ডিজাইনার, তাঁদের দেওয়া হবে পুরস্কার। লম্বা তালিকা ক্রমশ ছোট হয়ে আসবে ভোটাভুটিতে।

স্ক্রিন জুড়ে বই-মলাট, সাক্ষী থাকল বইপ্রেমী  কলকাতা
শুরু হল এপিজে কলকাতা লিটরারি ফেস্টিভ্যাল
বিহঙ্গী বিশ্বাস

|

Jan 22, 2021 | 9:51 PM

‘সাইজ ডাজ ম্যাটার’-এর মতো ‘লুকস ম্যাটার’।

মুষ্টিমেয় কিছু গুণীজনকে নিয়ে ডালহৌসির কারেন্সি বিল্ডিং-এ আজ, শুক্রবার শুরু হল যে এপিজে কলকাতা লিটরারি ফেস্টিভ্যাল ২০২১ (দ্বাদশ অধ্যায়) (APEEJAY KOLKATA LITERARY FESTIVAL 2021) , তাতে ঘুরেফিরে উঠে এল এই ‘লুকস’-এর কথা। বইয়ের ‘লুকস’। আরও সহজ করে বললে ‘বুক কভার’। এলইডি স্ক্রিনে উঠে এল একের পর এক বুক কভার-এর স্লাইড। কখনও তাতে দেখা গেল লেখিকা শোভা দের বই ‘মুম’, আবার কখনও উঠে এল অমিতাভ ঘোষের বই ‘গান আইল্যান্ড’-এর কভার। একের পর এক রঙ-বেরঙের বই ‘মলাট’-এ ভরে উঠল স্ক্রিন। তিন দিনব্যাপী এই সাহিত্য উৎসবের উদ্বোধন করেন এপিজে সুরেন্দ্র গ্রুপের পরিচালক, প্রীতি পল এবং এপিজে কলকাতা সাহিত্য উৎসব এবং অক্সফোর্ড বুকস্টোরের পরিচালক, ময়না ভগৎ। এপিজে কলকাতার সাহিত্য উৎসবের দ্বাদশ সংস্করণ শুরু হল ডিজিটালি। আরও পরিষ্কারভাবে বলতে গেলে হাইব্রিড অনলাইন সেশন। বিশিষ্ট লেখিকা শোভা দে এবং রাজনীতিক-লেখক শশী থারুর অনলাইন সেশনে উপস্থিত থাকতে পারেননি। সাদামাটা এক জমায়েতে উঠে এল নানা প্রসঙ্গ। বই পড়া এবং বই পড়া উদযাপনের যে আনন্দ, তা নিয়ে কথা বললেন অনেকে।

১৮ টি বুক কভারে লম্বা তালিকা। এই ১৮টি বই বেছেছেন প্রীতি পল, লেখক কুণাল বসু, নমিতা গোখলে, শশী থারুর, শোভা দে-রা। যাঁরা এই বইয়ের মলাট আঁকিয়ে অর্থাৎ ডিজাইনার, তাঁদের দেওয়া হবে পুরস্কার। লম্বা তালিকা ক্রমশ ছোট হয়ে আসবে ভোটাভুটিতে।

literary film festival

অনলাইনে সান্ধ্যআড্ডা 

বই আঁকিয়েদের স্বীকৃতি দেওয়ার ভাবনা প্রশংসাযোগ্য। ঠিক যেমন কোনও বিরাট বাজেটের ফিল্ম রিলিজ করার আগে টিজার দর্শকদের উৎকণ্ঠা বাড়িয়ে দেয়, তেমনই বইমলাটও বইপ্রেমীদের কাছে সমান আগ্রহের এক বিষয়। বই সমালোচকদের একাংশের মতে, ভারতীয় লেখকদের ইংরেজি বইয়ের বাজারে রমরমার কারণে নতুন করে নজর পড়েছে ‘বুক কভার’ ডিজাইনে। বুকস্টোরে ঢোকা মাত্র প্রাথমিকভাবে যা আকৃষ্ট করে পাঠক-পাঠিকাকে, তা হল বুক কভার।

এপিজে সুরেন্দ্র গ্রুপের পরিচালক, প্রীতি পল এ দিন বলেন, “এপিজে কলকাতা সাহিত্য উৎসবের দ্বাদশ সংস্করণে আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি হাইব্রিড/ভার্চুয়াল মাধ্যমের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে ২৪-টি টাইমজোন জুড়ে ছড়িয়ে থাকা প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণ সুনিশ্চিত করার। এ বছর ডিজিটাল মাধ্যমের বাধা অতিক্রম করে আমরা আমাদের মূল উদ্যোগগুলিকে তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছি!”

সমস্ত অধিবেশনগুলি বিশ্বব্যাপী দর্শকদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য এপিজে কলকাতা সাহিত্য উৎসব ফেসবুক এবং ইউটিউব হ্যান্ডলগুলির মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচারিত হতে চলেছে। বিশেষ সেশনগুলির পাশাপাশি, উৎসবের দ্বাদশ সংস্করণে দুটি উল্লেখযোগ্য সাহিত্য পুরষ্কার দেওয়া হবে, যথাক্রমে রোমা রোলা পুরস্কারের বিজয়ীদের এবং অক্সফোর্ড বুকস্টোর বুক কভার প্রাইজের লংলিস্ট ঘোষণার মাধ্যমে।

ইংরেজি প্রবাদ বলে ‘ডোন্ট জাজ এ বুক বাই ইটস কভার’। কিন্তু এপিজে কলকাতা লিটরারি ফেস্টিভ্যাল ২০২১ (দ্বাদশ অধ্যায়)-এর প্রথম দিনের পর এই প্রবাদে কত ‘লাইকস’ পড়বে, তা নিয়ে কিন্তু এক প্রশ্নচিহ্ন থেকেই যাবে।

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla