COVID-19 vaccination: ভ্যাকসিন মিলবে দুয়ারেই! তবে থাকছে বিশেষ শর্ত

Door to door vaccination: বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। জানালেন নীতি আয়োগের সদস্য ড. ভিকে পাল।

COVID-19 vaccination: ভ্যাকসিন মিলবে দুয়ারেই! তবে থাকছে বিশেষ শর্ত
বয়স্ক বা প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে বাড়িতে গিয়ে ভ্যাকসিন দেবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা (ফাইল ছবি- পিটিআই)

নয়া দিল্লি: চলতি বছরের শুরুতেই ভারতে টিকাকরণ (Vaccination) প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই ভ্যাকসিন পেয়েছেন কয়েক কোটি মানুষ। কেন্দ্রে নির্দেশিকা অনুযায়ী, কো-উইন (CoWin) পোর্টারে নাম নথিভুক্ত করিয়েই টিকাকরণ কেন্দ্রে গিয়ে টিকা নিতে হয়। কিন্তি সে ক্ষেত্রে কিছু সমস্যা রয়ে গিয়েছে। এত মাস পরও ভ্যাকসিন সেন্টারগুলিতে চোখে পড়ছে লম্বা লাইন। সে ক্ষেত্রে বৃদ্ধ বা অসুস্থ ব্যক্তিদের ওই লাইনে দাঁড়িয়ে টিকা নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ফলে, সরকার টিকাকরণের লক্ষ্যমাত্রা নিলেও বাদ পড়ছেন অনেকেই। তাই এবার বাড়িতে গিয়ে ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে অনুমোদন দিল কেন্দ্র। এই উদ্যোগের জন্য প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও বৃহস্পতিবার জানালেন নীতি আয়োগের (Niti Ayog) সদস্য ড. ভিকে পাল (Dr. VK Paul)।

এ দিন সাংবাদিক বৈঠকে ড. ভিকে পাল বলেন, ‘যারা টিকাকরণ কেন্দ্রে যেতে অক্ষম, তাদের জন্য আমরা বাড়িতে ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করছি। যাঁরা শারীরিকভাবে অক্ষম বা যাঁরা যাতায়াত করতে পারেন না, তাঁদের জন্য এই পরিষেবা চালু করা হচ্ছে। নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে ইতিমধ্যেই।’ এই প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ বলেন, ‘আমরা বুঝতে পারছি যে এমন অনেক মানুষ আছেন যাঁরা শয্যাশায়ী, যাঁদের যাতায়াত করার ক্ষমতা নেই। টিকাকরণ কেন্দ্রে যেতে যাঁরা অক্ষম।’ সেই সব মানুষের তালিকা তৈরি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। জেলা স্তরে তৈরি করতে হবে সেই তালিকা।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, ভারতের প্রায় এক তৃতীয়াংশ নাগরিক ইতিমধ্যেই করোনা ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ পেয়ে গিয়েছে। আর সেই পরিসংখ্যানকে ‘মাইলস্টোন’ বলে উল্লেখ করেছে কেন্দ্র। দুই তৃতীয়াংশ মানুষ পেয়েছেন অন্তত একটি ডোজ। দেশের ১৮ বছরের বেশি বয়সি মোট জনসংখ্যার ৬৬ শতাংশই অন্তত একটি ডোজ পেয়েছেন বলে দাবি স্বাস্থ্য মন্ত্রকের।

আরও পড়ুন:  BJP: ‘আর কত লাশ দেখলে শান্ত হবেন?’ মৃত বিজেপি প্রার্থীর দেহ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ রাজ্য সভাপতির

এ দিন আরও জানানো হয়েছে যে, দেশের মধ্যে কেরলই একমাত্র রাজ্য যেখানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা এই মুহূর্তে ১ লক্ষেরও বেশি। গত ২৪ ঘণ্টা সেই দেশে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৩১ হাজার ৯৯৩ জন। একটানা তিনদিন আক্রান্তের সংখ্যা তিরিশ হাজারের নীচে থাকার পরে দৈনিক সংক্রমণ ফের তিরিশ হাজারের গণ্ডি ছাড়িয়েছে। কয়েকদিন আগেও হু-হু কে বেড়ে গিয়েছিল সংক্রমণের গ্রাফ। এরপর কয়েকদিন সংখ্যাটা ৩০ হাজারের নীচে ছিল। পরে সংখ্যাটা আবার ৩০ হাজার ছাড়ায়। দেশের মোট আক্রান্তের সংখ্যা এই মুহূর্তে ৩ কোটি ২৮ লাখ ১৫ হাজার ৭৩১ জন। গতকাল মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৩৫ লাখ ৩১ হাজার ৪৯৮ জন।

আরও পড়ুন: Child Death: মাঝরাতে উঠে মা দেখলেন মেয়ে ভাসছে, ঘরে জমে থাকা হাঁটু জলে পড়ে মৃত্যু ঘুমন্ত একরত্তির

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla