সিপিএম নেতাদের দেখিনি, এখন মোমবাতি পাওয়ার যোগ্যতা নেই লোকও নীলবাতি গাড়ি চড়ে: মদন

Madan Mitra: "সিপিএমের অনেক সিনিয়র লিডারদের দেখেছি তাঁরা কিন্তু সেই অর্থে ব্যবহার করে না। তৃণমূল কংগ্রেসেও ব্যবহার প্রায় কমে এসেছে বললেই হয়। তবে জেলা পর্যায়ে এর ম্যাসিভ অপব্যবহার হচ্ছে। সেটা সরকারি থেকে বেসরকারি পর্যায়ে। এই ক্ষমতার অপব্যবহার বা লাল-নীল বাতির অহংকার এবং ঔদ্ধত্য মানুষ মেনে নেয় না।''

সিপিএম নেতাদের দেখিনি, এখন মোমবাতি পাওয়ার যোগ্যতা নেই লোকও নীলবাতি গাড়ি চড়ে: মদন
ফাইল ছবি

কলকাতা: ভ্যাকসিন-কাণ্ডে (Fake Vaccine) উত্তাল গোটা রাজ্য। ভুয়ো ভ্যাকসিন-কাণ্ডের পাণ্ডা ভুয়ো আইআএস দেবাঞ্জন দেবের (Debanjan Deb) ঘটনার মধ্যেই এদিন সামনে এসেছে নকল ভিজিল্যান্স অফিসারের গ্রেফতার হওয়ার ঘটনা। এই বিষয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেছেন, শুধুমাত্র দেবাঞ্জন কেন, অনেকেই এরকম নীল বাতি গাড়িতে চড়েন বা লোগো ব্যবহার করেন। এই প্রেক্ষিতে দিলীপকে পাল্টা তোপ দাগলেন মদন মিত্র (Madan Mitra)।

মদনের কথায়, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার নিষেধ করার পরেও এবং নিজেও তার ব্যবহার ও কাজের মাধ্যমে এই লাল, নীল বাতির গাড়ি নিয়ে অবস্থান বোঝানোর পরেও অনেকে এমন গাড়ি ব্যবহার করেন। শুধু তৃণমূল কংগ্রেস নয়, বিজেপি, সিপিএম, কংগ্রেস কারও মধ্যেই এই নীল ও বাতি লাল বাতি গাড়ি ব্যবহার কমেনি। এর পরেই মদনের কটাক্ষ, “এমন এমন লোক আমি দেখেছি যে লালবাতি তো তাদের দূরের কথা তাদের মোমবাতি দেওয়াই উচিত না। এমনকি তৃণমূল কংগ্রেসের খায় না মাথায় দেয় জানে না। নাম বলতেও লজ্জা লাগে। তারাও লালবাতি (গাড়ি) চড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে।” যদিও এই নেতারা কারা তা বলেননি তৃণমূল বিধায়ক।

তবে প্রাক্তন মন্ত্রীর কথায়, “সিপিএমের অনেক সিনিয়র লিডারদের দেখেছি তাঁরা কিন্তু সেই অর্থে ব্যবহার করে না (নীল বা লাল বাতি দেওয়া গাড়ি)। তৃণমূল কংগ্রেসেও ব্যবহার প্রায় কমে এসেছে বললেই হয়। তবে জেলা পর্যায়ে এর ম্যাসিভ অপব্যবহার হচ্ছে। সেটা সরকারি থেকে বেসরকারি পর্যায়ে। এই ক্ষমতার অপব্যবহার বা লাল-নীল বাতির অহংকার এবং ঔদ্ধত্য মানুষ মেনে নেয় না।”

আরও পড়ুন: সবুজ সাথীর ১২ লাখ সাইকেল বিলি হবে নভেম্বরেই, ৮ লক্ষ পড়ুয়া পাবেন ট্যাব: মুখ্যমন্ত্রী 

এদিন বিজেপির রাজ্য সভাপতি অভিযোগ করেছেন, তাঁর ঘোর সন্দেহ রয়েছে এবারের নির্বাচনেও অনেক ভুয়ো অফিসার ছিল। এ নিয়ে দিলীপ ঘোষকে পাল্টা কটাক্ষ ছুড়েছেন মদন। তিনি বলেন, “দেবাঞ্জনদের ওরাই পুট করেছে। ওদের কাছেই লিস্টটা আছে। বিজেপি অফিস রেড করলে দেবাঞ্জনদের লিস্ট পাওয়া যাবে। ওদের প্লান ছিল পশ্চিমবঙ্গকে ধনে প্রাণে মারব। ভ্যাকসিন না দিয়ে মারব, আট দফা ভোট করে মারব।”

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla