Duare Ration: তৃণমূল কার্যালয়ে মিলছে দুয়ারে রেশনের সামগ্রী! তীব্র বিতর্ক

Paschim Medinipur: দুয়ারে রেশন (Duare Ration) প্রকল্পের সামগ্রী বিলি নিয়ে আবারও বিতর্কে শাসক দল।

Duare Ration: তৃণমূল কার্যালয়ে মিলছে দুয়ারে রেশনের সামগ্রী! তীব্র বিতর্ক
তৃণমূল পার্টি অফিস থেকে বিলি হচ্ছে রেশন! নিজস্ব চিত্র।

পশ্চিম মেদিনীপুর: দুয়ারে রেশন (Duare Ration) প্রকল্পের সামগ্রী বিলি নিয়ে আবারও বিতর্কে শাসক দল। তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) দলীয় কার্যালয় থেকে রেশন সামগ্রী বণ্টনের অভিযোগে উত্তাল পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনার জাড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন স্থানীয়রা। শুরু রাজনৈতিক তরজাও।

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের জাড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের নেকড়বাগ গ্রামে। গত ১৩ জানুয়ারি এখানকার তৃণমূল কংগ্রেসের একটি দলীয় কার্যালয় থেকে গ্রাহকদের রেশন বণ্টনের ছবি ইতিমধ্যে ভাইরাল। সেই ভিডিয়োয় দেখা যায় তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ের ভিতর থেকে রেশন দেওয়া হচ্ছে। রেশন নিতে তৃণমূল পার্টি অফিসের সামনে মানুষের লম্বা লাইন দেখা যায়। আর এই ছবি সামনে আসতেই শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক। শুরু শাসক-বিরোধী রাজনৈতিক তরজা। এদিকে দুয়ারে রেশন প্রকল্পের রেশন কেন তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয় থেকে বণ্টন করা হবে তা নিয়ে কাঠগড়ায় রেশন ডিলার।

জানা গিয়েছে, রেশন ডিলার দেবাংশু ঘোষাল দুয়ারে রেশন প্রকল্পের রেশন নিয়ে সেদিন নেকড়বাগ গ্রামে গিয়ে সোজা ঢোকেন তৃণমূল কার্যালয়ে। সেখান থেকেই ওই গ্রামের গ্রাহকদের রেশন সামগ্রী বণ্টন করেন তিনি। যদিও বিতর্কের প্রেক্ষিতে রেশন ডিলারের দাবি, সেদিন খারাপ আবহাওয়া ছিল। তার পর ওই গ্রামে কোনও বড় ছাদ না পাওয়ায় তিনি স্থানীয়দের কথাতেই ওই দলীয় কার্যালয়ে রেশন বিলি করেন।

যদিও এলাকার একাংশের দাবি গ্রামে প্রাথমিক স্কুল রয়েছে। সেখানে কেন রেশন দেওয়া হল না? বিতর্কের পর অবশ্য সেই স্কুলে বসে বাকি গ্রাহকদের রেশন সামগ্রী দেন ডিলার। তবু তরজা অব্যাহত। এ বিষয়ে চন্দ্রকোনা ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সূর্যকান্ত দোলুই জানান, “তৃণমূল পার্টি অফিস থেকে মাল দিতে হবে বা নিয়ে যেতে হবে এরকম কাউকেই বলে দেওয়া হয়নি। ওইদিন বৃষ্টি শুরু হয়ে যাওয়ায় তড়িঘড়ি কাছে পার্টি অফিসে মাল রেখে রেশন বণ্টন করা হয়। তবুও রেশন ডিলারকে শো-কজ় করেছে ব্লক প্রশাসন”।

শুরু রাজনৈতিক তরজা:

এদিকে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে বিজেপির রামজীবনপুর মণ্ডলের বিজেপি নেতা সঞ্জীব কালিন্দীর কটাক্ষ, “পশ্চিমবঙ্গে সরকার ও তৃণমূল দল দুটোই এক হয়ে গিয়েছে। প্রশাসনিক ক্ষমতার দম্ভে শাসকদল তৃণমূল মানুষকে তাদের পার্টি অফিসে যেতে বাধ্য করছে। রেশন সামগ্রী রেশন দোকান থেকেই বণ্টন হবে। সরকারি রেশন সামগ্রী কেন মানুষ তৃণমূলের দলীয় কার্যালয় থেকে নিতে যাবে?” গোটা ঘটনাকে ঘিরে কার্যত বিতর্কে শাসকদল ও রেশন ডিলার। যদিও বিডিও রথীন্দ্র নাথ অধিকারী বলেন, “ইতিমধ্যে ওই রেশন ডিলারকে শো-কজ় করা হয়েছে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখে হচ্ছে”।

আরও পড়ুন: Crime: ‘সেক্স টয়’ কিনতে চেয়েছিলেন জলপাইগুড়ির শিক্ষক, ৩৭ লাখ টাকা খরচ করার পর জানলেন…

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla