kidneys Health: ভাতের সঙ্গে একমুঠো নুন চাই-ই চাই! দৈনন্দিন কিছু অভ্যাসের কারণেই ক্ষতি হচ্ছে কিডনি

বেশ কিছু দৈনন্দিন অভ্যাসের কারণে কিডনির চরম ক্ষতি হয়, যেগুলি এড়িয়ে গেলে সুস্থ থাকবেন আপনি। বাজে অভ্যেসগুলি দেখে নিন একবার...

kidneys Health: ভাতের সঙ্গে একমুঠো নুন চাই-ই চাই! দৈনন্দিন কিছু অভ্যাসের কারণেই ক্ষতি হচ্ছে কিডনি
দৈনন্দিন কিছু অভ্যাসের কারণেই ক্ষতি হচ্ছে কিডনি

শরীর থেকে বর্জ্য ও অতিরিক্ত তরল অপসারণ করতে কিডনির গুরুক্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। শরীরের মধ্যে জল, লবণ ও খনিজগুলির ভারসাম্য বজায় রাখতে অ্যাসিড অপসারণ করতে সাহায্য় করে। শুধু ভারসাম্য বজায় রাখতেই নয়, স্নায়ু, পেশী ও শরীরের টিস্যুগুলি সঠিকভালে কাজ করছে কিনা তারও যত্ন নিতে কিডনির ভূমিকা অনবদ্য। তবে বেশ কিছু দৈনন্দিন অভ্যাসের কারণে কিডনির চরম ক্ষতি হয়, যেগুলি এড়িয়ে গেলে সুস্থ থাকবেন আপনি। বাজে অভ্যেসগুলি দেখে নিন একবার…

ব্যাথানাশক ওষুধের অতিরিক্ত ব্যবহার

শরীরের কোথাও ব্যাথা যন্ত্রণা উপশম করতে দোকান থেকে ননস্টেরয়েডাল অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ড্রাগস কিনে হামেশাই খান। তবে জানেন কী, এই মেডিসিনগুলির কিডনির জন্য চরম ক্ষতিকর। বিশেষ করে কারোর যদি কিডনির রোগ থাকে। তবে ডাক্তারের সুপারিশ ছাড়া অতিরিক্ত বেইন কিলার খাবার খাবেন না।

প্রায়ই কাঁচা নুন খান

যে সব খাবারে সোডিয়ামের পরিমাণ বেশি থাকে, যেগুলি রক্তচাপ বাড়ায়। এইবাবে কিডনি রোগের ঝুঁকি বাড়ায়। নুনের পরিবর্তে, আপনি ভেষজ বা মশলা দিয়ে আপনার খাবারের স্বাদের মাত্রা ঠিক করতে পারেন।

প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়া

প্রক্রিয়াজাত খাবারে সোডিয়াম ও ফসফরাসের পরিমাণ বেশি থাকে। কিডনি রোগে আক্রান্তদের প্যাকেটজাত খাবার এড়িয়ে চলা উচিত। বেশি মাত্রায় ফসফরাসযুক্ত , প্রক্রিয়াজাত খাবার গ্রহণে কিডনি ও হাড়ের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

নিজেকে হাইড্রেট না রাখা

নিজেকে হাইড্রেট রাখা সর্বদা দরকার। হাইড্রেটের ফলে কিডনিকে শরীর থেকে সোডিয়াম ও টক্সিন পরিস্কার করতে সাহায্য করে। পর্যাপ্ত জল পান করা কিডনিতে স্টোন এড়াতে সাহায্য করে। কম পরিমাণে জল পান করার প্রয়োজন থাকলে তাঁদের কিডনির সমস্যা রয়েছে। কিডনি সুস্থ রাখতে প্রতিদিন ৩-৪ লিটার জল পান করা উচিত।

পর্যাপ্ত ঘুমের দরকার

সার্বিক স্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য একটি ভাল ঘুম অত্যন্ত প্রয়োজন। স্লিপ-ওয়াক চক্র দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়, যা কিডনি প্রায় ২৪ ঘণ্টারও বেষি কাজ করতে সক্ষম।

অতিরিক্ত চিনি খাওয়া

অত্যাধিক চিনি গ্রহণের ফলে ওবেসিটির সম্ভাবনা থাকতে পারে। উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ায়। উভয়ের কারণেই কিডনি রোগের কারণ হতে পারে। বিস্কুট, মশলা, সিরিয়াল, সাদা রুটি এড়িয়ে চলুন। এগুলিতে বেশি পরিমাণ শর্করা থাকে।

ধূমপান করা এড়িয়ে চলুন

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। যাঁরা ধূমপান করেন. তাঁদের প্রস্রাবে প্রোটিন থাকার সম্ভাবনা বেশি থাকে। যা কিডনি নষ্ট হওয়ার লক্ষণ।

অতিরিক্ত অ্যালকোহল পান করুন

প্রতিদিন চার পেগের বেশি অ্যালকোহল পান করলে দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগের ঝুঁকি দ্বিগুণ হয়ে যায়।

নিয়মিত ব্যায়াম না করা

খুব বেশি সময় ধরে বসে থাকলে কিডনি রোগের সম্ভাবনা তৈরি হয়। কিডনির স্বাস্থ্যের পক্ষে একটি নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। নিয়মিত শারীরিক ক্রিয়াকলাপের ফলে উচ্চ রক্তচাপ ও উন্নত বিপাক উন্নত হয়। যা কিডনির স্বাস্থ্যের পক্ষে ভাল।

 

আরও পড়ুন: World Arthritis Day 2021: বাত নিয়ে যে ভুল ধারণাগুলি এখনও বিদ্যমান, তা জেনে নিন…

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla