সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতেই লভ জিহাদ শব্দ আবিষ্কার করেছে বিজেপি: অশোক গেহলট

কেন্দ্রীয়মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত টুইটে লেখেন, হাজার হাজার অল্পবয়সী মেয়েরা লভ জিহাদের নামে ধর্মান্তকরণের (Religion change) ফাঁদে পা দিয়েছে। তিনি বলেন,"যদি এটা ব্যক্তি স্বাধীনতার বিষয় হয়, তবে মহিলাদের তাদের নিজের ধর্মই বহাল রাখতে দেওয়া হোক।"

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতেই লভ জিহাদ শব্দ আবিষ্কার করেছে বিজেপি: অশোক গেহলট
ফাইল চিত্র।
ঈপ্সা চ্যাটার্জী

|

Nov 27, 2020 | 2:58 PM

TV9 বাংলা ডিজিটাল: ‘লভ জিহাদ'(Love Jihad)-র বিরুদ্ধে কড়া আইন আনতে উঠেপড়ে লেগেছে মধ্য় প্রদেশ, উত্তর প্রদেশের মতো রাজ্য যেখানে শাসকদল হিসাবে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি(BJP)। সেই বিষয়কেই তুলে ধরে কেন্দ্রের শাসকদলের বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট (Ashok Gehlot)। বিজেপির দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে তিনি বলেন,” ‘লভ জিহাদ’ শব্দটি বিজেপির তৈরি, যা দেশকে ভাগ করতে ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি (Communal harmony) নষ্ট করতে কাজে লাগাচ্ছে।”

উত্তর প্রদেশ(Uttar Pradesh)-ও ‘লভ জিহাদের’ বিরুদ্ধে আইন প্রণয়নের খবর আসার পরই আজ সকালে একের পর এক টুইট (Tweet) করে বিজেপিকে আক্রমণ করেন কংগ্রেস শাসিত রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী। প্রথম টুইটে তিনি বলেন,”বিবাহ ব্যক্তি স্বাধীনতার বিষয়। আইন এনে তা পরিবর্তন করা সম্পূর্ণভাবে অসাংবিধানিক এবং কোনও আদালতেই এটি দাঁড়াতে পারবে না। ভালবাসায় জিহাদের কোনও জায়গা নেই।”

এরপরই তিনি আরেকটি টুইটে লেখেন,”এমন পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে যেখানে প্রাপ্তবয়স্কদের সিদ্ধান্তও রাজ্যের হাতে থাকবে। বিবাহ সম্পূর্ণভাবে ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত এবং ওরা (বিজেপি) এতে বদল আনছে, যা ব্যক্তি স্বাধীনতা ছিনিয়ে নেওয়ার সমান।” তৃতীয় টুইটে তিনি লভ জিহাদের বিরোধিতা করাকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিঘ্নিত করা, সামাজিক দ্বন্দ্ব-বিভেদকে বাড়িয়ে তোলা ও সংবিধানের অবজ্ঞা করা বলে অ্যাখ্যা দেন।

তবে চুপ থাকেনি বিজেপিও। অশোক গেহলটের টুইটের পাল্টা টুইট করে কেন্দ্রীয়মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত (Gajendra Singh Shekhawat) লেখেন, হাজার হাজার অল্পবয়সী মেয়েরা লভ জিহাদের নামে ধর্মান্তকরণের (Religion change) ফাঁদে পা দিয়েছে। তিনি বলেন,”যদি এটা ব্যক্তি স্বাধীনতার বিষয় হয়, তবে মহিলাদের তাদের নিজের ধর্মই বহাল রাখতে দেওয়া হোক।” টুইটবার্তায় তিনি রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে লেখেন,”প্রিয় অশোকজী, লভ জিহাদ হল একটি ফাঁদ, যা হাজার হাজার কমবয়সী মেয়েদের প্রথমে বিশ্বাস করায় যে বিয়ে ব্যক্তিগত বিষয়, পরে যা অন্য রূপ নেয়। যদি এটা ব্যক্তি স্বাধীনতারই বিষয় হয়, তবে মহিলাদের কেন তাদের বিয়ের আগের নাম বা ধর্ম রাখতে দেওয়া হয় না?”

লভ জিহাদকে সাম্প্রদায়িকতার রং দেওয়া নিয়ে কংগ্রেসের দিকে আক্রমণ শানাতেও ছাড়েননি গজেন্দ্র সিং। তিনি বলেন, “অশোকজী, সাম্প্রদায়িক শব্দ, দাঙ্গা ও হিংসা ছড়ানো কংগ্রেসের বিশেষ ক্ষমতা। বিজেপি সবকা বিকাশ-এ বিশ্বাসী তাই মহিলারা যাতে কোনও রকম অবিচারের শিকার না হন, তা নিশ্চিত করা হবে।”

আরও পড়ুন:ভুটানে দ্বিতীয় দফায় ‘রুপে কার্ড’-এর উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর

সম্প্রতি লভজিহাদ ও তা কেন্দ্র করে খুনের নানা ঘটনার কারণে রাজনৈতিক দলগুলির মুখ্য আলোচ্য বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে এই বিষয়। ফেব্রুয়ারি মাসেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে সংসদে বলা হয় যে লভ জিহাদের কোনও আইনি ব্যাখ্যা নেই। মঙ্গলবার মধ্য প্রদেশ (Madhya Pradesh) সরকারের তরফ থেকে ঘোষণা করা হয়, লভ জিহাদের বিষয়ে কড়া আইন আনা হবে। মধ্য প্রদেশের স্বরাষ্ট্র দপ্তরের মন্ত্রী নরোত্তম মিশ্রও জানান, ‘মধ্য প্রদেশ ফ্রিডম অব রিলিজিয়ন বিল ২০২০’ নামে একটি বিল আনা হচ্ছে, এই আইনে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করা হবে। অপরাধ প্রমাণিত হলে পাঁচ বছর অবধি সাজাও দেওয়া হবে।

একই পথে হাটার ঘোষণা করে হরিয়ানা (Haryana) সরকারও। সেখানেও লভ জিহাদের বিরুদ্ধে আইন তৈরি করার জন্য একটি কমিটি তৈরি করা হয়েছে। আজ যোগী সরকারের তরফেও একই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করা হয়। ইতিমধ্যেই আইন দফতরকে এই বিষয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলেও জানানো হয়।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla