EarthQuake in Kolkata: কাকভোরে তীব্র ভূমিকম্পে কাঁপল কলকাতা, রিখটার স্কেলে মাত্রা ৬.১

Tremors Felt in Kolkata: পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি অসম, ত্রিপুরাতেও কম্পন অনুভূত হয়।

EarthQuake in Kolkata: কাকভোরে তীব্র ভূমিকম্পে কাঁপল কলকাতা, রিখটার স্কেলে মাত্রা ৬.১
ভূমিকম্পে কেঁপে কলকাতা। ফাইল চিত্র।

কলকাতা: সাত সকালে ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল কলকাতা। শুক্রবার ভোরের দিকে এই কম্পন অনুভূত হয়। চট্টগ্রাম থেকে ১৭৫ কিলোমিটার পূর্বে এই ভূমিকম্পের উৎসস্থল। রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৬.১। ইন্দো-মায়ানমার সীমান্তের এই ভূমিকম্পের জেরে কলকাতার পাশাপাশি কেঁপে ওঠে ত্রিপুরা এবং অসমও।

ন্যাশনাল সেন্টার ফর সেসমলজির তথ্য অনুযায়ী, শুক্রবার কাকভোরে কেঁপে ওঠে পশ্চিমবঙ্গ, অসম, ত্রিপুরা। ভোর ৫টা ১৫ মিনিট নাগাদ এই ভূকম্পন হয়। এখনও কোথাও কোনও ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। যেহেতু রিখটার স্কেলে এই ভূমিকম্পের তীব্রতা ৬ পার করে গিয়েছে, তাই বিশেষজ্ঞদের পরিভাষায় এই ভূমিকম্প ‘ভেরি স্ট্রং’ বা অতিরিক্ত তীব্র হিসাবেই ধরা হচ্ছে।

তখনও ভোরের আলো স্পষ্ট হয়নি। বাইরে শিরশিরে হাওয়া। ঘুমে কাতর কলকাতা। এরই মধ্যে হঠাৎ কোথাও দুলে উঠল শোওয়ার খাট। কোথাও আবার মনে হল যেন আস্ত বাড়িটা কাঁপছে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই থামল কম্পন। শুধু কলকাতা নয়, বিভিন্ন জেলাতেও এই ভূমিকম্প বোঝা গিয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনা, নদিয়া থেকে শুরু করে হাওড়া, হুগলির কোনও কোনও অংশের মানুষ এই কাঁপন টের পেয়েছেন। বেলা বাড়লে আরও স্পষ্ট হবে চিত্রটা।

ভূমিকম্পে কলকাতার কেঁপে ওঠা কোনও বিরল ঘটনা নয়। ভূবিজ্ঞানীদের মতে, কলকাতার ভূপৃষ্ঠের প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার নীচে একটি চ্যুতি রয়েছে। তার মধ্যে যে পরিমাণ শক্তি রয়েছে তাতে ৬.৫ অবধিও রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের তীব্রতা হতে পারে। অন্যদিকে পলির স্তরও একটা অন্যতম আশঙ্কার কারণ। বিশেষজ্ঞদের মতে, মাটির নীচের কম্পন এই পলিমাটির ভিতর দিয়েই ঘুরে ঘুরে উপরের দিকে ওঠার সম্ভাবনা থাকে। সে ক্ষেত্রে যত বেশি পাক খাবে, ভূকম্পনও ততই তীব্র অনুভূত হবে।

আরও পড়ুন: Exclusive: পিএইচডি ডিগ্রি ছাড়াই ইন্টারভিউয়ে ডাক! যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক নিয়োগে বড়সড় দুর্নীতি

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla