কার্যত নজিরবিহীন, কয়লাকাণ্ডে সকাল সাড়ে ৬টায় সিবিআই দফতরে জ্ঞানবন্ত

সূত্রের খবর, যে সময় এ রাজ্যে রমরমিয়ে কয়লা (Coal Scam) পাচার হয়েছে, সে সময় এডিজি আইনশৃঙ্খলা ছিলেন জ্ঞানবন্ত সিং।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 11:46 AM, 4 May 2021
কার্যত নজিরবিহীন, কয়লাকাণ্ডে সকাল সাড়ে ৬টায় সিবিআই দফতরে জ্ঞানবন্ত
ফাইল চিত্র।

কলকাতা: সাত সকালে সিবিআই দফতরে হাজিরা দিলেন রাজ্যের ডিরেক্টর অব সিকিউরিটি জ্ঞানবন্ত সিং। কয়লা পাচারকাণ্ডে মঙ্গলবার নিজাম প্যালেসে হাজিরা দেন তিনি। তবে সকাল সাড়ে ৬টায় সিবিআই দফতরে কারও হাজিরা কার্যত নজিরবিহীন। সূত্রের খবর, রাজ্যের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা জ্ঞানবন্ত সোমবারই সিবিআইয়ের কাছে এই সময় চেয়েছিলেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দিনভর ব্যস্ত থাকার কারণেই সকাল সকাল সিবিআই দফতরে যেতে চান তিনি। তাতে সম্মতিও দেন তদন্তকারীরা।

আরও পড়ুন: ভোটের ময়দানেই নেই শোভন, বেহালা পূর্বে জিতে রত্নার মনে এখন প্রশান্তির ‘বৈশাখী হাওয়া’

গত ১ মে জ্ঞানবন্ত সিংকে নোটিস পাঠায় সিবিআই। কয়লাকাণ্ডে এই আইপিএসকে তলব করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। ৪ মে নিজাম প্যালেসে তাঁকে হাজিরা দিতে বলা হয়েছিল। সেইমতই এদিন হাজির হন তিনি। সূত্রের খবর, যে সময় এ রাজ্যে কয়লা পাচার ফুলে ফেঁপে ওঠে, সে সময় রাজ্যের এডিজি আইনশৃঙ্খলা ছিলেন জ্ঞানবন্ত।

এর আগে পশ্চিমাঞ্চলের আইজিও ছিলেন তিনি। যে পশ্চিমাঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে এই কয়লার চোরা কারবার চলেছে। এরইমধ্যে একাধিক বার কয়লাকাণ্ডের মূল চক্রী অনুপ মাজি ওরফে লালার সঙ্গেও জিজ্ঞাসাবাদ পর্ব চলে সিবিআইয়ের। সেখান থেকেই জ্ঞানবন্ত সিংয়ের সূত্র মেলে বলে খবর।

এদিন প্রায় আড়াই ঘণ্টা জ্ঞানবন্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। মনে করা হচ্ছে, তদন্তকারীরা তাঁর কাছে বেশ কয়েকটি উত্তর খুঁজেছেন। রাজ্যে যখন কয়লা পাচারের রমরমা, একজন পদাধিকারী প্রশাসক হিসাবে কী ব্যবস্থা নিয়েছিলেন তিনি। একইসঙ্গে বিনয় মিশ্র ও তাঁর ভাই বিকাশ মিশ্রের কয়লা সিন্ডিকেটের সঙ্গে তাঁর কোনও যোগাযোগ ছিল কি না তাও জানতে চান তদন্তকারীরা।

আরও পড়ুন: কয়লা পাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন, রাস্তার ধার থেকে উদ্ধার সিভিক ভলেন্টিয়ারের রক্তাক্ত দেহ

অন্যদিকে লালার ডান হাত যুব তৃণমূল নেতা বিনয় মিশ্রকে নিয়েও বড়সড় পদক্ষেপ করতে চলেছেন তদন্তকারীরা। সোমবার বিনয় মিশ্রকে আবারও তলব করা হয়েছিল। তবে তিনি হাজির হননি। এবার পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য লিগ্যাল টিমের সঙ্গে আলোচনা করছে সিবিআই। কলকাতা হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করেছে বিনয়, আদালতকে জানাতে চলেছে তারা।

একইসঙ্গে তাঁর রক্ষা কবচের মেয়াদও শেষ হয়েছে সোমবার। এদিনই বিনয়কে ইমেল করে তাঁর অবস্থান জানতে চেয়েছে সিবিআই। বিনয়ও ইমেলেই জবাব দিয়েছেন, সশরীরে হাজিরা দেওয়ার ইচ্ছা থাকলেও কোভিডের কারণে বাইরে বেরোচ্ছেন না। ভিডিয়ো কনফারেন্সে হাজিরা দিতে পারবেন।