‘২ মে বিকেল থেকে কর্তব্য পালন করছে না পুলিশ’, সাম্প্রতিক হিংসার ঘটনা নিয়ে রাজ্যকে তোপ বিজেপির

সামনে আসছে একের পর এক হিংসার ঘটনা। ৬ কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে দাব বিজেপির (BJP)।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 13:10 PM, 4 May 2021
'২ মে বিকেল থেকে কর্তব্য পালন করছে না পুলিশ', সাম্প্রতিক হিংসার ঘটনা নিয়ে রাজ্যকে তোপ বিজেপির
সাংবাদিক বৈঠকে অনির্বাণ গঙ্গোপধ্যায়

কলকাতা: ভোট আবহে হিংসার ঘটনা প্রতিনিয়ত সামনে এসেছে। আর ভোটের ফলাফল সামনে আসার পর গত দু’দিন ধরে ফের শিরোনামে অশান্তির খবর। জায়গায় জায়গায় রাজনৈতিক দলের কর্মীদের মৃত্যুর ঘটনা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) শান্তি বজায় রাখার বার্তা দেওয়া সত্ত্বেও বদলায়নি পরিস্থিতি। আর সেই হিংসার পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যকে তোপ দাগল বিজেপি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, মুখ্য সচিব ও রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনকে একহাত নিলেন বিজেপি নেতা সম্বিত পাত্র (Sambit Patra) ও অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায় (Anirban Ganguly)।

মঙ্গলবার ভার্চুয়াল সাংবাদিক বৈঠকে একের পর এক তোপ দাগেন তাঁরা। ‘মমতা জি, আপনারা জয়ের মর্যাদা পেয়েছেন। আপনি নিজে একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রী। যে মায়েদের আজ ধর্ষণ করা হচ্ছে, যে মেয়েদের বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে, তারা কি বাংলার মেয়ে নয়? তাদের প্রতি কি এই জাতীয় আচরণ করা উচিত?’ , এই ভাষাতেই সরাসরিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন সম্বিত পাত্র।

তিনি মনে করিয়ে দেন, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাকেও পাথর ছোঁড়া হয়েছিল। রাজ্যে বিজেপির কর্মীরা বছরের পর বছর এ ভাবে আক্রমণের শিকার হয়েও ধৈর্য্য ধরে কাজ করছেন, হাতে অস্ত্র তুলে নেননি বলে উল্লেখ করেন সম্বিত পাত্র। সম্বিত পাত্রের দাবি, ‘বিজেপি আর তৃণমূলের একটাই তফাৎ। তৃণমূলে পিসি-ভাইপোর পরিবারই একটা দল। আর বিজেপিতে গোটা দলটাই একটা পরিবার।’

অশান্তির ঘটনায় রাজ্যের প্রশাসনের গাফিলতি নিয়ে মুখ খোলেন বিজেপি নেতা তথা বোলপুরের প্রার্থী অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়। রাজ্যে পুলিশ তৃণমূলে চাপে কোনও দায়িত্ব পালন করতে পারছে না বলে মন্তব্য করেন তিনি। বলেন, ‘পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। ২ মে বিকেল থেকে পুলিশের গাফিলতি চোখে পড়ছে। পুলিশের ওপর চাপ বাড়ানো হচ্ছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেও এটা করেছে, এখনও সেটাই করছে।’ মুখ্যসচিবের কাছে আর্জি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে বদল হতেই পারে। তাই বলে এ ভাবে অন্য দিকে তাকিয়ে থাকবেন না।’

আরও পড়ুন: কার্যত নজিরবিহীন, কয়লাকাণ্ডে সকাল সাড়ে ৬টায় সিবিআই দফতরে জ্ঞানবন্ত

এই ইস্যুতে বাংলায় আসছেন জেপি নাড্ডার। কলকাতায় এসে প্রথমে তিনি হেস্টিংসে সদর দফতরে যাবেন। সেখানে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন খবর। রাজ্যের একাধিক বিজেপি দফতর ভাঙচুর করা হয়েছে। সেগুলি পর্যবেক্ষণ করতে যেতে পারেন তিনি। বিজেপির দাবি, রাজ্যে নির্বাচনের ফল ঘোষণার পরই খুন হয়েছেন তাঁদের ৬ কর্মী। তাঁদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারেন নাড্ডা।