স্মুদি তো অনেক খেলেন, এবার চেখে দেখুন বানানা স্লাস!

একবার বানানোর পর ফ্রিজে প্রায় ৪ ঘণ্টা ঠান্ডা করার নিয়ম। আর এই ঠাণ্ডা পানীয়ের অসাধারণ স্বাদ একবার নিলে আপনি এর প্রেমে পড়ে যাবেন নিঃসন্দেহে।

স্মুদি তো অনেক খেলেন, এবার চেখে দেখুন বানানা স্লাস!
ছবিটি প্রতীকী

ফলের রস কি একঘেঁয়ে হয়ে গিয়েছে? তাহলে জুসের বলদে এবার থেকে পান করুন কলার স্লাস!নামটা অচেনা লাগতেই পারে। কিন্তু এ পুষ্টিগুণ অন্যান্য ফলের রসের তুলনায় ঢের ভাল। গ্রীষ্ম কেন, যে কোনও ঋতুতেই এই স্বাস্থ্যকর পানীয় খেলে শরীর ও মন সতেজ হয়ে উঠবে, গ্যারান্টি!বন্ধুদের সঙ্গে ক্যাজুয়াল পার্টি বা ঘরোয়া কোনও অনুষ্ঠানের জন্য চটপট ও সহজ রেসিপি হিসেবে বানানা স্লাস তৈরি করতে পারেন।তবে এই স্লাস খাওয়ার নিয়ম হল, ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করা। একবার বানানোর পর ফ্রিজে প্রায় ৪ ঘণ্টা ঠান্ডা করার নিয়ম। আর এই ঠাণ্ডা পানীয়ের অসাধারণ স্বাদ একবার নিলে আপনি এর প্রেমে পড়ে যাবেন নিঃসন্দেহে।

বানানা স্লাসের জন্য কী কী লাগবে

২ ১/২ কাপ স্ম্যাসড কলা, ১ ১/৪ কাপ কমলা লেবুর রস,১ ১/২ কাপ আনারসের রস, ১ ১/৪ কাপ চিনি, ৩ টেবিলস্পুন লেবুর রস, ১ ১/ ২ পিন্ট স্প্রাইট

কীভাবে বানাবেন

প্রথমে একটি বড় পাত্রে ২ ১/৪ কাপ জল নিয়ে তাতে চিনি দিন। আভেনে জল ফুটে গেলে বন্ধ করে আলাদা করে রেখে দিন। এবার অপর একটি বোলে লেবুর রস, আনারসের জুস, কমলালেবুর রস একসঙ্গে যোগ করে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। তারপর তিনটি জুসের মিশ্রনের সঙ্গে স্ম্যাসড কলা যোগ করে ভাল করে ঘেঁটে নিতে হবে। সবকিছু একসঙ্গে গুলে গেলে এবার চিনির সিরাপটি ঢেলে ফের একবার মিশ্রণটি নেড়ে নিতে হবে।

বানানা স্লাস তৈরি হলে সুন্দর সুন্দর গ্লাসে পরিবেশন করে ফ্রিজের মধ্যে ৪ ঘণ্টা রেখে দিন। ৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলে স্লাসের মিশ্রণটি ফ্রিজ থেকে বের করে আনুন।

স্মুদি বা মকটেল গ্লাসে যদি পরিবেশন করেন তাহলে স্লাসের মিশ্রণটি গ্লাসের হাফ ভরতি করে রাখুন। বাকি হাফ গ্লাস ভরতি করুন স্প্রাইট দিয়ে। এবার আপনার বানানা স্লাস পরিবেশন করার জন্য উপযুক্ত হয়েছে। কিছু কলা কুচনো দিয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন মজাদার ও পুষ্টিকর বানানা স্লাস।

আরও পড়ুন: সকালের টিফিন বা ডিনার, জমে উঠুক দেশি স্টাইলের মশালা পাস্তা!

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla