‘রাজ্যে লকডাউনের সম্ভাবনা নেই, হচ্ছে না নৈশ কার্ফু’

"লকডাউন করলেই সব কমে যাবে? মানুষকে একটু সময় দিতে হবে না? বাইরে থেকে হাজার হাজার লোক আসছে, করোনা সেখানেও ছড়াচ্ছে। লকডাউন করলে তো মানুষের কষ্ট হবে।''

  • TV9 Bangla
  • Published On - 16:19 PM, 19 Apr 2021
'রাজ্যে লকডাউনের সম্ভাবনা নেই, হচ্ছে না নৈশ কার্ফু'
ফাইল চিত্র

পশ্চিমবঙ্গ: করোনার (Corona) দ্বিতীয় ঢেউয়ে হু-হু করে বাড়ছে সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে বিভিন্ন রাজ্য সরকার এলাকাভিত্তিক লকডাউন ঘোষণা করেছে। কোথাও কোথায় জারি হয়েছে নৈশ কার্ফু। এদিকে এ রাজ্যে করোনা সংক্রমণ সাড়ে ৮ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে গেলেও বড় কোনও বিধিনিষেধ আরোপ হচ্ছে না বলেই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) । সোমবার মালদহ থেকে সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি বলেন, “লকডাউন করলেই সব কমে যাবে? মানুষকে একটু সময় দিতে হবে না? বাইরে থেকে হাজার হাজার লোক আসছে, করোনা সেখানেও ছড়াচ্ছে। লকডাউন করলে তো মানুষের কষ্ট হবে।”

সোমবারই ঘোষণা করা হয়েছে, মঙ্গলবার থেকে বন্ধ থাকবে রাজ্যের সমস্ত স্কুল। গরমের ছুটি এগিয়ে আনা হয়েছে। সাংবাদিক বৈঠক থেকে ওয়ার্ক ফ্রম হোমে জোর দিতে বলেন মমতা। তিনি জানান, অফিসগুলিতে ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ চালাতে হবে। তাঁর কথায়, “আতঙ্কে নয়, সচেতন থাকতে হবে। রাজ্যজুড়ে ৪০০ অ্যাম্বুল্যান্স কাজ করবে। যাঁদের প্রয়োজন তাঁরাই হাসপাতালে ভর্তি হন, যাঁদের প্রয়োজন নেই, তাঁরা ভর্তি হবেন না।”

এদিকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক নিয়ে চিন্তাভাবনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে জানান তিনি। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “অকারণ ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আমরা পরিস্থিতি সামলাচ্ছি। বাইরে থেকে অনেক লোক আসছে। সেই কারণে করোনা সংক্রমিত হচ্ছে।”

আরও পড়ুন: কার্ফু নয়, করোনা রোধে এক সপ্তাহের লকডাউন জারি দিল্লিতে

তিনি জানান, বাজারে অনেক ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে না। টিকাও মিলছে না। তবে করোনা রোগীদের জন্য সাড়ে চার হাজার বেড বাড়ছে রাজ্যে। ১০০টি হাসপাতাল করোনার জন্য তৈরি করা হয়েছে। ৫৮টি বেসরকারি হাসপাতাল নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ২০০ সেফ হোম তৈরি হয়েছে, সেখানে ১১ হাজার শয্যা রয়েছে। করোনা আটকাতে রাজ্য সবরকম পদক্ষেপ করছে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।