ভুয়ো পরিচয় দিয়ে ব্যাঙ্ক ম্যানেজারকে ফোন, লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের ম্যানেজারকে ভুয়ো পরিচয় দিয়ে ফোন করে এক ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক।

ভুয়ো পরিচয় দিয়ে ব্যাঙ্ক ম্যানেজারকে ফোন, লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক
প্রতীকী চিত্র

দুর্গাপুর: রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের ম্যানেজারকে ভুয়ো পরিচয় দিয়ে ফোন করে এক ব্যবসায়ীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক। ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করলেন ব্যবসায়ী।

জানা গিয়েছে, গত ৪ মে ফোনে দুর্গাপুরের বেনাচিতি বাজারের মোটর সাইকেল শো রুমের মালিকের পরিচয় দিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের বেনাচিতি শাখার ম্যানেজারকে টাকা চান ট্রান্সফারের অনুরোধ করেন এক ব্যক্তি। বিকেল চারটে নাগাদ সেই ফোনে অনুরোধ করা হয় অসুস্থতাজনিত কারণে অতি সত্ত্বর টাকার দরকার। দুটি অ্যাকাউন্ট নম্বর দিয়ে একটিতে ৬,৪৩,৯৫৬ ও অন্যটিতে ৪,৯৭,৩০০ টাকা ট্রান্সফারের আবেদন করা হয়। কিন্তু ব্যাঙ্ক ম্যানেজার জানান, এই মুহূর্তে এত টাকা ব্যাঙ্কে নেই। এরপর তিনি সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের মালিককে ফোন করলে তিনি আকাশ থেকে পড়েন। জানান এমন কোনও ফোন তিনি করেননি। তিনি ব্যাঙ্ক ম্যানেজারকে জানান, ফোনে কেউ অন্য অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফারের অনুরোধ করলে যেন তাঁকে জানানো হয়।

কিন্তু ওই একই দিনে অন্য একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কেও একই ভাবে ওই ব্যবসায়ীর নাম করেই ফোন করা হয়। সেখানেও অন্য অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফারের কথা বলা হয়। ফোনের ওপার থেকে নাকি জানতে চাওয়া হয়, অ্যাকাউন্টে কত টাকা আছে? উত্তরে ব্রাঞ্চ ম্যানেজার খোঁজ খবর নিয়ে তাকে পরিমাণ জানাতেই মোট এক লক্ষ ৭০ হাজার টাকা একটি অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দিতে বলা হয়। এই কথা মতো ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ টাকা ট্রান্সফার করে দেয়।

এদিকে এদিন দুর্গাপুরের বেনাচিতি বাজারের ওই অটোমোবাইল ব্যবসায়ীর অফিসের অ্যাকাউন্ট সেকশন হিসেব মেলাতে গিয়ে দেখেন এই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের তাদের একাউন্ট থেকে এক লক্ষ উনসত্তর হাজার নয়শো টাকা উধাও! ব্যাঙ্কের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তাঁরা। সব শুনে বুঝতে দেরি হয়নি ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের যে তাদের বোকা বানিয়ে লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারক দল। এর পর আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের সাইবার সেলে অভিযোগ দায়ের করেন অটোমোবাইল ব্যবসায়ী।

শোরুম ম্যানেজার অনুপ রঞ্জন সরকারের প্রশ্ন, কোনওরকম কনফার্মেশন ছাড়া কীভাবে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ স্রেফ ফোনের কথাতে বিশ্বাস করে এতগুলো টাকা অন্য অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করে দিল? এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের দুর্গাপুরের বেনাচিতি শাখার চিফ ম্যানেজার শ্যামা প্রসাদ কুলাভি জানান তদন্ত শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন: এই ফাঁদে পা দিলেই অ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব হতে পারে সব টাকা! সতর্ক করল স্টেট ব্যাঙ্ক 

পুলিশ সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, দিল্লির একটি ব্যাঙ্কের শাখায় ওই টাকা ট্রান্সফার করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের সাইবার সেল।