Atal Pension Yojona : এই স্কিমের মাধ্যমে বছরে পাবেন ৬০ হাজার টাকা, বিশদে জেনে নিন

Atal Pension Yojona : এই স্কিমের মাধ্যমে বছরে পাবেন ৬০ হাজার টাকা, বিশদে জেনে নিন
প্রতীকী চিত্র

APY : ভারত সরকার অটল পেনশন যোজনাা নামে মাসিক ৫ হাজার টাকার পেনশনের একটি স্কিম নিয়ে এসেছে। ১৮ থেকে ৪০ বছরের যে কেউ এই স্কিমের জন্য আবেদন করতে পারেন।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: অঙ্কিতা পাল

May 20, 2022 | 1:54 PM

ভবিষ্য়তের জন্য সঞ্চয় করে রাখা বুদ্ধিমানের কাজ। রোজকার ছোটোখাটো সঞ্চয় তো থাকেই। কিন্তু বৃদ্ধ বয়সে বড় সঞ্চয় অনেক কাজে আসতে পারে। তাই এখন থেকেই অল্প অল্প করে খরচ করার পাশাপাশি সঞ্চয়ের দিকেও নজর দেওয়াও জরুরি। এরকম বহু পেনশন যোজনা রয়েছে যেখানে চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার পর আপনি আপনার দৈনন্দিন জীবন নির্বাহের জন্য আশ্বস্ত থাকতে পারেন। কেন্দ্রীয় সরকারের এরকম একটি জনপ্রিয় পেনশন স্কিম হল অটল পেনশন যোজনা।

অটল পেনশন যোজনা কী?

২০১৫ সালে এই পেনশন যোজনা নিয়ে আসে ভারত সরকার। প্রাথমিকভাবে তা অসংগঠিত ক্ষেত্রের জন্য হলেও পরে তা ভারতের সমগ্র নাগরিকদের জন্যই এই পেনশন যোজনা শুরু করা হয়। তবে তার জন্য নির্ধারিত বয়সসীমার মধ্যে থাকতে হবে। অ্যাকাউন্ট খোলার সময়ে কোনও নাগরিকের বয়স অনুযায়ী বিনিয়োগের সীমা নির্ধারিত হয়। কোনও ব্যক্তি ১ হাজার থেকে ৫ হাজারের মধ্যে মাসিক পেনশন পেতে পারেন।

অটল পেনশন যোজনার সুবিধা

এই যোজনার আওতায় কোনও ব্যক্তির ৬০ বছর হয়ে গেলে তিনি মাসিক পেনশন পাবেন। এছাড়াও অটল পেনশন যোজনা আয়কর আইনের ৮০ সি এর আওতায় ১.৫ লাখ টাকার কর ছাড় দেয়।

অটল পেনশন যোজনার জন্য যোগ্যতা

১৮-৪০ বছরের যেকোনও ভারতীয় নাগরিক অটল পেনশন যোজনার জন্য অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন। তার জন্য সেই ব্যক্তিকে একটি ব্যাঙ্ক সেভিংস অ্যাকাউন্ট, আধার কার্ড ও মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। অটল পেনশন যোজনার রেজিস্ট্রেশনের জন্য আধার কার্ডকে প্রাথমিক কেওয়াইসি বলে বিবেচনা করা হবে।

অটল পেনশন যোজনায় বিনিয়োগ

এই যোজনার ক্ষেত্রে বিনিয়োগের পরিমাণ নির্ভর করে যিনি বিনিয়োগ করতে ইচ্ছুক তাঁর বয়সের উপর। ৫০০০ টাকা মাসিক পেনশনের জন্য যিনি এই যোজনায় অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন তাঁর বয়স ১৮ হলে তাঁকে মাসে ২১০ টাকা দিতে হবে। ২০ বছর বয়সে দিতে হবে ২৪৮ টাকা। ২৫ বা ৩০ বছরে এই যোজনা শুরু করলে দিতে হবে ৩৭৬ বা ৫৭৭ টাকা। ৩৫ বছরের কোনও নাগরিক যদি মাসিক ৫০০০ টাকা পেনশনের জন্য এই যোজনা শুরু করেন তাহলে তাঁকে জমা করতে হবে মাসে ৯০২ টাকা করে। ৪০ বছরে শুরু করলে মাসে ১৪৫৪ টাকা করে দিতে হবে।

কীভাবে আবেদন করবেন?

কাছাকাছি কোনও ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসেই এই আবেদন করা যাবে। ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসের যে শাখায় আপনার সেভিংস অ্যাকাউন্ট রয়েছে সেখানেই এই যোজনার জন্য আবেদন করতে পারেন। এছাড়াও অনলাইনে এর জন্য আবেদন করা যাবে। নেটব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমে বা আধার ই-কেওয়াইসি (Aadhaar e-KYC)অপশনে গিয়ে গিয়ে আবেদন করা যেতে পারে। তবে এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, যে অ্যাকাউন্ট থেকে এই স্কিম করা হবে সেখানে যেন পর্যাপ্ত ব্যালেন্স থাকে। কারণ প্রতি মাসে এই স্কিমের জন্য নির্ধারিত টাকা কেটে নেওয়া হবে।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA