High cholesterol levels: শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কি বেড়ে গিয়েছে? পায়ের এমন লক্ষণ দেখেই বুঝে নিন…

Legs: পায়ের নীচের অংশে নিয়মিত ব্যথা, জ্বালা ভাব, ক্র্যাম্প ধরা এসবই হল কোলেস্টেরল বৃদ্ধির লক্ষণ। নিয়মিত এই সমস্যা হলে ফেলে না রেখে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন

High cholesterol levels: শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কি বেড়ে গিয়েছে? পায়ের এমন লক্ষণ দেখেই বুঝে নিন...
কোলেস্টেরল বাড়ছে কিনা বুঝে নেবেন যে সব লক্ষণে

জীবন চলে নিজের খেয়ালখুশিতে। কিন্তু জীবনযাত্রা যদি হয় খামখেয়ালি তাহলে শরীর হয়ে যায় একাধিক রোগের উন্মুক্ত দ্বার। আজকাল কম-বেশি সকলেই নানারকম শারীরিক সমস্যায় ভুগছেন। ডায়াবিটিসে, কোলেস্টেরল, উচ্চরক্তচাপের মত সমস্যা বাড়িতে বাড়িতে।

এই সব সমস্যার জন্য কিন্তু দায়ী আমাদের লাইফস্টাইল। যখন ইচ্ছে খাওয়া, দিনে ৬ ঘন্টার কম ঘুম, অত্যধিক মাত্রায় জাঙ্ক ফুড খাওয়া কিন্তু এই সব রোগের জন্য দায়ী। আজ থেকে দশ বছর আগেও একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর কোলেস্টেরলের সমস্যা আসত। কিন্তু এখন খুব কম বয়সেই আসছে কোলেস্টেরলের মত সমস্যা।

কোলেস্টেরল একরকম মোম জাতীয় পদার্থ, যা তৈরি হয় আমাদের লিভারেই। ভিটামিন ডি এবং শরীরের ভারসাম্যরক্ষাকারী নানা হরমোন তৈরির মাধ্যমেই তৈরি হয় এই কোলেস্টেরল। কোলেস্টেরল জলে অদ্রবণীয়, লিপটোপ্রোটিন নামক একরকম কণার মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন অংশে পরিবাহিত হয়।

এই কোলেস্টেরল যখন পরবর্তীতে চর্বি এবংলাইপোপ্রোটিনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে লো-ডেনসিটি লাইপোপ্রোটিন (LDL) গঠন করে তখনই তা শরীরের জন্য ক্ষতিকারক। কারণ এই LDL ত্রমনীতে রক্তপ্রবাহ বআটকে দেয়। যা হৃদরোগের অন্যতম কারণ। অতিরিক্ত তেল-মশলার খাবার খেলে এই সমস্যা আরও অনেক বেশি বাড়ে।

পায়ে কোলেস্টেরল জমছে কিনা যে ভাবে বুঝবেন-

কোলেস্টেরলের মাত্রা যতক্ষণ পর্যবন্ত না মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত অনেকেই বুঝতে পারেন না। সামান্য সমস্যা হলেও তা এড়িয়ে যান। এদিকে কোলেস্টেরল বাড়লে তা কিন্তু আমাদের প্রতিদিনের জীবনযাত্রার উপর খারাপ প্রভাব ফেলে। আর তাই নিয়মিত রক্তপরীক্ষা করানো জরুরি। বছরে অন্তত দুবার তো অবশ্যই। কোলেস্টেরল বাড়লে টান ধরে পায়ের পেশিতে। এছাড়াও ারও যে সব সমস্যা দেখা দেয়-

পায়ে ব্যথা

কোলেস্টেরল বাড়লে পায়ের কোশে রক্ত এবং অক্সিজেন ঠিকমতো পৌঁছতে পারে না। বিশেষত পায়ের নীচের অংশে। সেই সঙ্গে পা ভারি লাগে, অল্পেই ক্লান্তি আসে। যাঁদের কোলেস্টেরলের মাত্রা খুব বেশি তাঁদের ক্ষেত্রে পায়ে জ্বালাভাব এবং ব্যথা থাকে। আর এই ব্যথা তখনই বেশি বোঝা যায় যখন হাঁটাচলা করেন। সামান্যতম দূরত্ব হাঁটতেও খুব কষ্ট হয়।

পায়ে ক্র্যাম্পস ধরে

প্রায়শই পায়ে ক্র্যাম্পস ধরা কোলেস্টেরল বৃদ্ধির অন্যতম একটি কারণ। আর এই ক্র্যাম্পস পায়ের পাতা, গোড়ালিতে সবচেয়ে বেশি হয়। সমস্যা সবচেয়ে বেশি হয় রাতে ঘুমনোর সময়। এরকম সমস্যা হলে পা ঝুলিয়ে বসুন। তাতে খানিক আরাম পেতে পারেন।

ত্বক আর নখের রঙে আসে পরিবর্তন

রক্ত সঞ্চালনে সমস্যা হলে নখের রঙেও আসে পরিবর্তন। সেই সঙ্গে প্রয়োজনীয় পুষ্টি এবং অকিসিজেনও ঠিকমত এসে পৌঁছয় না। এতে পায়ের নীচের অংশ বেশ চকচক করে আর নখ মোটা হয়ে যায়।

আরও পড়ুন:  Diet Tips: এই তিন ডায়েট টিপস মেনে চলতে পারলেই শরীর থাকবে সুস্থ! নিদান বিশেষজ্ঞদের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla