‘গণহত্যার থেকে কম কিছু নয়’, অক্সিজেনের অভাবে রোগীমৃত্যু নিয়ে যোগীরাজ্যকে তুলোধনা আদালতের

এলাহাবাদ হাই কোর্টের তরফে লখনউ ও মিরাটের জেলাশাসকদের আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গোটা ঘটনার তদন্ত করে, পরবর্তী শুনানির দিন রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 9:24 AM, 5 May 2021
'গণহত্যার থেকে কম কিছু নয়', অক্সিজেনের অভাবে রোগীমৃত্যু নিয়ে যোগীরাজ্যকে তুলোধনা আদালতের
ফাইল চিত্র।

এলাহাবাদ: চারিদিকে কেবলই করোনা রোগী মৃত্যুর খবর। অধিকাংশেরই মৃত্যু হচ্ছে অক্সিজেনেরর অভাবে। এই পরিস্থিতিতে কড়া ভাষায় আক্রমণ করল এলাহাবাদ হাইকোর্ট। রোগীমৃত্যুর প্রসঙ্গ তুলে আদালতের তরফে বলা হয়, ” অক্সিজেনের অভাবে রোগী মৃত্যু গণহত্যার থেকে কম কিছু নয়”।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় লখনউ ও মিরাট জেলায় অক্সিজেনের অভাবে করোনা রোগীর মৃত্যুর খবর ভাইরাল হওয়ার পরই আদালতে এই মামলা দায়ের করা হয়। আদালতের তরফে জানানো হয়, কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব যে অক্সিজেন সরবরাহ যেন সবসময় চালু থাকে।

বিচারপতি সিদ্ধার্থ ভর্মা ও বিচারপতি অজিত কুমার জনস্বার্থ মামলার শুনানিতে বলেন, “অক্সিজেনের সরবরাহ না থাকায় যেভাবে করোনা রোগীর মৃত্যু হচ্ছে, তা অত্যন্ত দুঃখজনক। হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাব অপরাধ এবং গণহত্যার চেয়ে কম কিছু নয়।” উন্নত প্রযুক্তি থাকা সত্বেও রোগীমৃত্যুর প্রসঙ্গে তাঁরা বলেন, “যেখানে বিজ্ঞান এত উন্নত স্তরে পৌঁছে গিয়েছে যে হার্ট ট্রান্সপ্ল্যাট ও ব্রেইন সার্জারি সম্ভব হচ্ছে, সেখানে কীভাবে এই ধরের ঘটনা ঘটছে।”

আদালতের তরফে লখনউ ও মিরাটের জেলাশাসকদের আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গোটা ঘটনার তদন্ত করে, পরবর্তী শুনানির দিন রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে আগামী শুনানির দিনের জন্য অনলাইনে আবেদনের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে এলাহাবাদ হাইকোর্টের তরফে।

গত রবিবার মিরাটের মেডিক্যাল কলেজের আইসিইউ ট্রমা সেন্টারে পাঁচ রোগীর মৃত্যুর খবর ভাইরাল হয়। একইভাবে সান হাসপাতাল, গোমতী নগর, লখনউ ও অন্যান্য বেসরকারি হাসপাতালগুলিতেও অক্সিজেনের ঘাটতি থাকায় রোগী ভর্তি নেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে আদালতকে। এই বিষয়গুলিও খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জেলাশাসকদের।

আরও পড়ুন: উপত্যকায় বড় নাশকতার ছক বানচাল, নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে খতম ২ লস্কর-ই-তৈবা জঙ্গি