প্রয়োজনীয়তা পূরণে দেশ সম্পূর্ণ আত্মনির্ভর হয়ে উঠেছে: প্রধানমন্ত্রী

বারাণসীর স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, "বিগত ছয় বছরে বারাণসী ও তার আশেপাশের অঞ্চলে স্বাস্থ্য পরিষেবায় ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। গোটা পূর্বাঞ্চলে করোনা মোকাবিলা সম্ভব হয়েছে উন্নত পরিকাঠামোর কারণেই।"

প্রয়োজনীয়তা পূরণে দেশ সম্পূর্ণ আত্মনির্ভর হয়ে উঠেছে: প্রধানমন্ত্রী
ফাইল চিত্র।
ঈপ্সা চ্যাটার্জী

|

Jan 22, 2021 | 5:12 PM

নয়া দিল্লি: টিকাকরণের অভিজ্ঞতা কেমন, জানতে নিজের নির্বাচনী কেন্দ্রের টিকাদাতা ও গ্রহীতাদের সঙ্গে কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। স্বাস্থ্য পরিষেবায় উন্নয়নের খতিয়ান দিয়ে বৈঠকে তিনি জানালেন, বিগত ছয় বছরে বারাণসী (Varanasi) ও তার আশেপাশের অঞ্চলগুলিতে স্বাস্থ্য পরিকাঠামোয় ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে।

২০১৪ সাল থেকে বারাণসী কেন্দ্র থেকেই বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী হিসাবে দাঁড়ান প্রধানমন্ত্রী। তাই টিকাকরণের পরবর্তী ধাপে মতামত সংগ্রহেও নিজের কেন্দ্রকেই অগ্রগণ্যতা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

টিকাদাতা ও গ্রহীতাদের সঙ্গে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে আলাপচারিতা চলাকালীনই প্রধানমন্ত্রী বলেন, “করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশেই দুটি ভ্যাকসিন আবিষ্কার করা হয়েছে। সেই ভ্যাকসিন অন্যান্য দেশেও রপ্তানি করা হচ্ছে। দেশ ধীরে ধীরে নিজের প্রয়োজনীয়তা পূরণে আত্মনির্ভর হয়ে উঠছে। একইসঙ্গে ভারত অন্যান্য দেশগুলিকেও সাহায্য করছে।”

বারাণসীর স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “বিগত ছয় বছরে বারাণসী ও তার আশেপাশের অঞ্চলে স্বাস্থ্য পরিষেবায় ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। গোটা পূর্বাঞ্চলে করোনা মোকাবিলা সম্ভব হয়েছে উন্নত পরিকাঠামোর কারণেই। বর্তমানে বারাণসী অন্যান্য রাজ্যের মতোই দ্রুত গতিতে টিকাকরণ প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।”

আরও পড়ুন: ফেসবুক থেকে তথ্য চুরি! কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার নামে মামলা দায়ের সিবিআইয়ের

তিনি আরও বলেন, “বিশ্বের বৃহত্তম টিকাকরণ কর্মসূচি চলছে আমাদের দেশে। বর্তমানে আমাদের দেশ একটি নয়, দুটি ভ্যাকসিন তৈরি করেছে। সেই ভ্যাকসিন দেশের প্রতিটি কোণায় পৌঁছে যাচ্ছে। এই ক্ষেত্রে ভারত সম্পূর্ণ আত্মনির্ভর হয়ে উঠেছে বলা যায়। আগে আমার উপর চাপ দেওয়া হচ্ছিল যে কবে ভ্যাকসিন আসবে। সেইসময়ই আমি জানিয়েছিলাম এটি রাজনীতিবিদদের উপর নয়, দেশের বৈজ্ঞানিকদের উপর নির্ভর করছে। বৈজ্ঞানিকদের গবেষণা সম্পূর্ণ হওয়ার পরই ভ্যাকসিনগুলিকে বাজারে আনা হয়েছে।”

টিকা গ্রহীতারা কেমন আছেন, সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী জানতে চাইলে গ্রহীতারা জানান, তাঁরা সকলেই সুস্থ রয়েছেন। বিশেষ কোনও পার্শবপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়নি কারোর মধ্যেই। প্রথম ধাপে এখনও পর্যন্ত মোট ২০ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনা টিকা পেয়েছেন বলে প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়।

আরও পড়ুন: মেঘালয়ে জঙ্গলের মাঝে গর্তে পড়ে মৃত্যু ৬ পরিযায়ী শ্রমিকের

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla