‘কোন ক্ষমতাবলে বদলির নির্দেশ?’ চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকদের নিয়ে অস্বস্তি আরও বাড়ল রাজ্যের

Calcutta High Court: এভাবে বদলির কোনও নিয়ম নেই বলেও পর্যবেক্ষণে জানিয়েছেন বিচারপতি। আগামিকাল ফের মামলাটির শুনানি রয়েছে আদালতে।

'কোন ক্ষমতাবলে বদলির নির্দেশ?' চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকদের নিয়ে অস্বস্তি আরও বাড়ল রাজ্যের
প্রাথমিকে নিয়োগ নিয়ে টানা পাঁচ ঘণ্টার শুনানি চলে শনিবার। ফাইল চিত্র।

কলকাতা: রাজ্যের শিক্ষা দফতরের সামনে দাঁড়িয়ে বিষপান করছেন চুক্তিভিত্তিক শিক্ষিকারা। গত মাসের এই ছবি এখনও রাজ্যবাসীর মনে টাটকা। ‘অনৈতিক’ বদলির নির্দেশ প্রত্যাহার করার দাবিতেই বিষপান করেন ওই শিক্ষিকারা। সেই বদলির একটি মামলা দিয়েই মঙ্গলবার আদালতের সামনে মারাত্মক অস্বস্তির মধ্যে পড়ল রাজ্য সরকার। মামলাটি বিচারপতি সৌগত ভট্টাচার্যের এজলাসে উঠলে নিজের পর্যবেক্ষণে তিনি জানিয়ে দেন, চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকদের বদলির কোনও নির্দিষ্ট নীতি নেই। এভাবে বদলির কোনও নিয়ম নেই বলেও পর্যবেক্ষণে জানিয়েছেন তিনি। আগামিকাল ফের মামলাটির শুনানি রয়েছে আদালতে।

সূত্রের খবর, মুর্শিদাবাদের ভোকেশনাল টিচার অনিমা নাথ এই মামলাটি করেছেন। তাঁকে হুগলির বলাগড় থেকে সোজা মালদায়, কয়েকশো কিলোমিটার দূরে বদলি করা হয়েছিল। সেই বদলির নির্দেশ বাতিল করতে চেয়েই হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন তিনি। মামলাটির শুনানি চলাকালীন বিচারপতি সৌগত ভট্টাচার্য জানতে চান, কীসের ভিত্তিতে এই বদলির নির্দেশ জারি করল রাজ্য? কোন ক্ষমতাবলে এই নির্দেশ? এমন প্রশ্নও তোলা হয়েছে। সূত্রের খবর, আগামিকাল, অর্থাৎ বুধবার শুনানি শুরু হলে এই বিষয় বিস্তারিত মতামত জানাতে হবে রাজ্য সরকারকে।

উল্লেখ্য,এসএসকে শিক্ষিকাদের যেই আন্দোলন মূলত স্থায়ীকরণের দাবিতে শুরু হয়েছিল, সেই আন্দোলনই পরবর্তী সময়ে বদলি আটকানোর দাবিতে আরও তুঙ্গে ওঠে। আন্দোলনকারী শিক্ষক শিক্ষিকাদের উত্তরবঙ্গে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। কোন আইনে এই বদলি করা হয়েছে, একটি মামলায় সেটাও জানতে চেয়েছেন মামলাকারীরা। এর পাশাপাশি এসএসকে ডিরেক্টরের বিরুদ্ধে শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের কাজের রীতি ভাঙারও অভিযোগ তোলা হয়েছে। মেরেকেটে ১০ হাজার চাকরির বেতন। এই বেতনে যদি আবার কয়েকশো কিলোমিটার দূরে উত্তরবঙ্গে বদলি করে দেওয়া হয়, তবে সংসার চলবে নাকি পেট? এহেন প্রশ্ন তোলেন শিক্ষিকারা।

আরও পড়ুন: Post Poll Violence: ভোট পরবর্তী হিংসা তদন্তে রাজ্যে প্রথম তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ে হানা সিবিআইয়ের

ঠিক সেই কারণেই বদলির সিদ্ধান্ত আটকাতে বহু দুয়ারে দরবার করেছিলেন ওই শিক্ষিকারা। কিন্তু কোনও কিছুতেই লাভ না হওয়ায় তাঁরা বিকাশ ভবনের সামনে বিষপান করেন ৫ এসএসকে শিক্ষিকা। এরপর আদালতেরও দ্বারস্থ হন বদলি হওয়া শিক্ষিকারা। হাইকোর্টের বিচারপতি অরিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বেঞ্চে এই মামলাটি দায়ের করা হয়। একই ধরনের আরেকটি মামলা দায়ের হয়েছিল বিচারপতি সৌগত ভট্টাচার্যের এজলাসে। যেখানে রাজ্য সরকারের বদলির নির্দেশ কী ভিত্তিতে সেই প্রশ্ন তুলেছিলেন আবেদনকারী। আদালতের আজকের পর্যবেক্ষণ যে রাজ্য সরকারকে যথেষ্ট অস্বস্তিতে রাখবে, সেটা বলাই যায়।

আরও পড়ুন: WB By-Election: নজিরবিহীন নিরাপত্তার বহর তিন কেন্দ্রে, আধাসেনায় মুড়েই বঙ্গে ভোট চায় কমিশন

আরও পড়ুন: WB By-Election: নজিরবিহীন নিরাপত্তার বহর তিন কেন্দ্রে, আধাসেনায় মুড়েই বঙ্গে ভোট চায় কমিশন

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla