Monsoon Season Care: বর্ষায় চুল ঝরছে বেশি! খুশকি-সহ সব সমস্যা ঠেকাতে এই ৪ হেয়ার মাস্ক দারুণ কাজের

Hair Care Tips: বর্ষায় এমনিতেই চুলে পড়ার সমস্যা বেড়ে যায়। অতিরিক্ত মাত্রায় বেড়ে গেলে অবশ্যই চিকিত্‍সকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

Monsoon Season Care: বর্ষায় চুল ঝরছে বেশি! খুশকি-সহ সব সমস্যা ঠেকাতে এই ৪ হেয়ার মাস্ক দারুণ কাজের
TV9 Bangla Digital

| Edited By: dipta das

Jul 06, 2022 | 10:32 AM

বর্ষাকালে (Monsoon Season) ত্বকের সংক্রমণের পাশাপাশি মাথার ত্বকের সংক্রমণেরও সমস্যাও তৈরি হয়। এই ঋতুতে বাতাসে তীব্র আর্দ্রতা থাকায় চুলের নানান সমস্যা তৈরি হয়। তৈলাক্ত মাথার ত্বক, ফ্যাটযুক্ত চুল, ব্যপক খুশকির (Dandruff) পাশাপাশি চুলকানি অনুভূত হয়। এতে চুলের গোড়া আলগা হয়ে যায়। ফলে চুল ঝরে (Hairfall Problems) যাওয়ার মাত্রা অনেকটাই বেড়ে যায়। সমস্যাটি উপেক্ষা করার মত একেবারেই উচিত নয়। সময়মত চিকিত্‍সা না করালে মাথার ত্বকের উপর কালো ছোপ-সহ চুলের গুরুতর ক্ষতি হতে পারে। বর্ষায় এমনিতেই চুলে পড়ার সমস্যা বেড়ে যায়। অতিরিক্ত মাত্রায় বেড়ে গেলে অবশ্যই চিকিত্‍সকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। গরম, আর্দ্রতা বর্ষা ঋতুর বৈশিষ্ট্য। এই মরসুমে প্রতিদিন আপনার চুল ১৫০টিরও বেশি পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সাধারণত মহিলাদের প্রতিদিন ৫০টির বেশি চুল পড়ে। তবে বর্ষাকালে সেই সংখ্যাটি ১৫০-২০০টির মত হতে পারে।

বর্ষাকালে চুলের যত্নে উপকারী হেয়ার মাস্ক

মেথি ও লেবুর রসের হেয়ার মাস্ক

মেথিতে খুশকি দূর হয় এবং প্রদাহরোধী বৈশিষ্ট্য রয়েছে। অন্যদিকে লেবুতে রয়েছে ভিটামিন সি এবং লিমোনয়েড যা মাথার ত্বকে জমে থাকা জীবাণুর বিরুদ্ধে দারুণ কাজ করে।

মেথি বীজের গুঁড়োর সঙ্গে তাজা লেবুর রস দিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। এবার সেই পেস্টটি গোটা মাথায় প্রয়োগ করুন। ৩০ মিনিচের জন্য অপেক্ষা করুন। এরপর হালকা মাত্রার কোনও ভেষজ শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুল ধুয়ে নিন।

হেনা ও সরিষের তেল

ভেষজ মেহেদি শুধুমাত্র আপনার চুলের জেল্লা ও বাহারি প্রাকৃতিক রঙের জন্যই উপকারী নয়, এটি চুলকে সুরক্ষিতও করে। চুলকে শক্তিশালী করার বৈশিষ্ট্য রয়েছে মেহেদি পাতার। এর কারণে মাথার ত্বকের ফলিকলগুলিতে পুষ্টির অনুপ্রবেশকে সহজতর করে। তাতে মাথার ত্বকের স্বাস্থ্য এবং চুলের বৃদ্ধি পায়।

এক কাপ মেহেদি পাতা নিন। সেগুলিকে ২৫০ মিলি ফুটন্ত সরিষের তেলে যোগ করুন। এবার তেলের রং পরিবর্তন হলে ঠাণ্ডা হতে দিন। তারপর ছেঁকে নিয়ে আপনার মাথার ত্বকে লাগান। আধা ঘন্টা পরে, আপনার মাথার ত্বকে ভালভাবে ম্যাসাজ করুন এবং একটি হালকা শ্যাম্পু দিয়ে আপনার চুল ধুয়ে ফেলুন।

নিম ও হলুদের পেস্ট

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি এই হেয়ার মাস্কটি অ্যান্টিমাইক্রোবিয়ালও। কারণ এই পেস্টটি তৈরি করা হবে নিম ও হলুদ গুঁড়ো দিয়ে। তাতে জীবাণুগুলির সঙ্গে লড়াই করতে, খুশকি, চুলকানি এবং প্রদাহের মতো সমস্যাগুলি প্রতিরোধ করতে সহায়তা করবে।

একটি উপকারী পেস্ট তৈরি করতে প্রথমে তাজা নিম পাতা এবং হলুদের শিকড় গুঁড়ো একসঙ্গে যোগ করুন। এই মিশ্রণটি এবার আপনার মাথার ত্বকে আলতোভাবে ম্যাসাজ করুন এবং ২০ থেকে ৩০ মিনিটের জন্য রেখে দিন। হালকা মাত্রার শ্যাম্পু দিয়ে ধোওয়ার পর কন্ডিশনার ব্যবহার করুন।

দই ও অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা জেলের সাহায্যে জ্বালা এবং চুলকানি মাথার ত্বককে প্রশমিত করে। দইয়ের প্রলেপের জেরে ল্যাকটিক অ্যাসিড বৈশিষ্ট্য আলতোভাবে তাদের এক্সফোলিয়েট করে। এই মাস্কটি ব্যবহার করলে চুলের গোড়া থেকে মৃতকোষ, ময়লা এবং অন্যান্য জমা থেকে নোংরা থেকে মুক্তি পাবেন। মাথার ত্বক ও চুলের জেল্লা বৃদ্ধি পাবে তাতে।

এই খবরটিও পড়ুন

প্রথমে প্রয়োজনীয় পরিমাণ দইয়ের সঙ্গে এক টেবিল চামচ তাজা অ্যালোভেরা জেল যোগ করে একটি পেস্ট তৈরি করুন। এরপর আপনার মাথার ত্বক এবং চুলে পেস্টটি প্রয়োগ করে যতক্ষণ না শুকোচ্ছে ততক্ষণ অপেক্ষা করুন। এরপর একটি হালকা, সুগন্ধ-মুক্ত শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ও চুল ধুয়ে ফেলুন।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla