Chaturmas 2022: জীবনে অনেক বড় হতে চান? তাহলে আগামী ৪ মাস ভুলেও এই কাজগুলি করবেন না

Importance of Chaturmas: মাঙ্গলিক কাজ যেমন বিবাহ, মুণ্ডন, জৈন আচার, বিবাহ, গৃহপ্রবেশ, নামকরণ চতুর্মাসের সময় নিষিদ্ধ। কারণ এই সমস্ত কাজ শুভ সময় ও তিথিতে করা হয়।

Chaturmas 2022: জীবনে অনেক বড় হতে চান? তাহলে আগামী ৪ মাস ভুলেও এই কাজগুলি করবেন না
TV9 Bangla Digital

| Edited By: amartya mukhopadhaya

Jul 08, 2022 | 5:22 PM

আষাঢ় মাসের শুক্লপক্ষের একাদশী তিথি থেকে চতুর্মাস (Chaturmas) শুরু হয়। এবার চলতি মাসের ১০ তারিখ, রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে চতুর্মাস। আষাঢ় মাসের একাদশীকে বলা হয় দেবশয়নী একাদশী (Devshayani Ekadashi 2022)। হিন্দু শাস্ত্র অনুযায়ী, এই দিন থেকে ভগবান বিষ্ণু (Lord Vishnu) ৪ মাসের জন্য যোগনিদ্রায় যান। চতুর্মাসে তপস্যা, সাধনা ও উপবাস রাখলে খুব দ্রুত উপকার পাওয়া যায় বলে বিশ্বাস করা হয়। এই চতুর্মাস আষাঢ় শুক্লের একাদশী থেকে শুরু হয়ে কার্তিক মাসের শুক্লপক্ষের একাদশী পর্যন্ত চলে। চতুর্মাস দেবশয়নী একাদশীতে শুরু হয় এবং দেবোত্থান একাদশীতে শেষ হয়। শ্রাবণ, ভাদ্র, আশ্বিন এবং কার্তিক, এই ৪ মাসে হয়। তবে এই চার মাস শুভ ফল পেতে হলে কিছু কাজ এড়িয়ে যাওয়া ভাল। এই সময় কোন কোন কাজ করবেন না, কী কী কাজে মন বসাবেন, সেগুলি দেখে নিন একনজরে…

চতুর্মাসে মাঙ্গলিক কাজ হয় না

মাঙ্গলিক কাজ যেমন বিবাহ, মুণ্ডন, জৈন আচার, বিবাহ, গৃহপ্রবেশ, নামকরণ চতুর্মাসের সময় নিষিদ্ধ। কারণ এই সমস্ত কাজ শুভ সময় ও তিথিতে করা হয়। কিন্তু ভগবান বিষ্ণুর ঘুমের ভঙ্গিতে যাওয়ার কারণে কোনও শুভ কাজ এই সময় হয় না। শাস্ত্রে বলা আছে, যে প্রতিটি শুভ কাজে ভগবান বিষ্ণু-সহ সমস্ত দেব-দেবীকে আবাহন করা হয়। এছাড়াও এই মাসে সূর্য, চন্দ্র ও প্রকৃতির তেজ কমে যায়। সাধুরাও চতুর্মাসের সময় ভ্রমণ করেন না। এই সময় যতটা সম্ভব আশ্রম বা মন্দিরে উপবাস ও সাধনা করেন তাঁরা।

চতুর্মাসে কী কী করলে শুভ ফল পাবেন, জেনে নিন একনজরে…

১. চতুর্মাসে উপবাস, ধ্যান, জপ, ধ্যান, পবিত্র নদীতে স্নান, দান, একটি পাতায় ভক্ষণ করা অত্যন্ত ফলদায়ক বলে মনে করা হয়। এই মাসে ধর্মকর্ম করলে বিশেষ ফল পাওয়া যায় এবং ভগবান নারায়ণের কৃপা সবসময় থাকে।

২. চতুর্মাসের সময় কেউ কেউ চার মাস ধরে একটি মাত্র খাবার খেয়ে রাজসিক ও তামসিক খাবার ত্যাগ করে। এ সময় ব্রহ্মচর্য পালন করা উচিত, তাতে শক্তি সঞ্চয় হয়।

৩. চতুর্মাসের সময়, ভগবান বিষ্ণু, দেবী লক্ষ্মী, ভগবান শিব এবং দেবী পার্বতী, শ্রী কৃষ্ণ, রাধা এবং রুক্মিণীজি, পিতৃদেব, ভগবান গণেশের সঙ্গে সকাল-সন্ধ্যা পুজো করার নিয়ম। এছাড়াও, এই সময়ে ঋষি-সাধুদের সঙ্গে সৎসঙ্গ করা উপকারী।

৪. চতুর্মাসের সময় দান করা বিশেষ ফলদায়ক বলে মনে করা হয়। এই ৪ মাসে দান করা জীবন, সুরক্ষা, স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এছাড়াও, এই সময়কালে পূর্বপুরুষদের জন্য পিন্ড দান বা তর্পণ করা ভাল। তাতে আত্মা শান্তি পায়। এই মাসে করা পূজা ও সাধনা শীঘ্রই ফল দেয়।

চতুর্মাসে কোন কোন কাজ এড়িয়ে যাবেন

১. চতুর্মাসে কোনও শুভ কাজ করা নিষিদ্ধ। এছাড়াও, এই চার মাসে চুল এবং দাড়ি কাটা উচিত নয়। কালো ও নীল কাপড় পরিধান করা উচিত নয়। কথিত আছে যে এই মাসে নীল বস্ত্র দেখলে যে দোষ হয় তা ভগবান সূর্যনারায়ণকে দেখলে দূর হয়।

২. চতুর্মাসে, পরনিন্দা বিশেষভাবে ত্যাগ করা উচিত এবং যে ব্যক্তি পরনিন্দা শুনছে তাকেও পাপী বলে গণ্য করা হয়। এ মাসে ভ্রমণ থেকেও বিরত থাকতে হবে এবং অনৈতিক কাজ থেকে দূরে থাকতে হবে।

৩. চতুর্মাসে তেলের তৈরি জিনিস থেকে দূরে থাকুন। এর সঙ্গে দুধ, চিনি, বেগুন, শাক, টক, মিষ্টি, সুপারি, তামসিক খাবার, দই, তেল, লেবু, মরিচ ডালিম, নারিকেল, উড়দ ও ছোলার ডালও ত্যাগ করলে জীবনে ভাল ফল পাবেন।

এই খবরটিও পড়ুন

৪. শ্রাবণের মতো চতুর্মাসের চার মাসে শাক-সবজি যেমন পালং শাক ইত্যাদি, ভাদ্র মাসে দই, আশ্বিনে দুধ এবং কার্তিক মাসে পেঁয়াজ, রসুন ও উরদ ডাল ইত্যাদি বর্জন করতে হবে।

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla