‘অশোকদার মতো নেতাকে শুধু বাংলায় নয়, ভারতে দরকার,’ সিপিএম প্রার্থীর হয়ে প্রচার প্রাক্তন বিপক্ষের

"শিলিগুড়ি তথা উত্তরবঙ্গবাসীর জন্য বহু উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন অশোক ভট্টাচার্য। সৎ এবং কাজের মানুষ তিনি। অনেক রাজনৈতিক নেতা আছেন, তবে অশোকদার মতো নেতা শুধু বাংলায় নয়, ভারতেও দরকার।'' ভিডিয়ো বার্তা বাইচুং ভুটিয়ার (Baichung Bhutia)।

'অশোকদার মতো নেতাকে শুধু বাংলায় নয়, ভারতে দরকার,' সিপিএম প্রার্থীর হয়ে প্রচার প্রাক্তন বিপক্ষের
অলংকরণ: অভীক দেবনাথ

শিলিগুড়ি: ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটে তৃণমূল প্রার্থী (TMC Candidate) ছিলেন ‘পাহাড়ি বিছে’ বাইচুং ভুটিয়া (Baichung Bhutia)। তাঁর বিপক্ষে ছিলেন সিপিএমের (CPIM) অশোক ভট্টাচার্য (Ashok Bhattacharya)। সেবার ১৫ হাজার ভোটে হেরেছিলেন বাইচুং। একুশের বিধানসভা ভোটে (West Bengal Assembly Election 2021) সেই প্রাক্তন ফুটবলারের আবেদন, ‘অশোকদার মতো স্বচ্ছ ভাবমূর্তি ও সৎ মানুষদের ভোটে জেতান।’

এক সময় বিপক্ষে দলের হয়ে প্রার্থী হলেও শিলিগুড়ির সিপিএম বিধায়ক অশোক ভট্টাচার্য ও বাইচুং ভুটিয়ার সম্পর্ক কখনোই খারাপ ছিল না। ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে এবং ২০১৬-র বিধানসভা ভোটে তৃণমূলের টিকিটে ভোটে লড়াই করা সেই বাইচুং মাস কয়েক আগে নিজে থেকেই অশোকবাবুর হয়ে তিনি ভোট প্রচারের ইচ্ছা প্রকাশ করেন। আর সোমবার এক ভিডিয়ো বার্তায় শিলিগুড়িবাসীর কাছে বাইচুংয়ের আবেদন, অশোক ভট্টাচার্যের মতো কাজের মানুষকে যেন বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করেন তাঁরা।

আগামী ১৭ এপ্রিল পঞ্চম দফায় রয়েছে শিলিগুড়ির ভোট। তার আগে বাইচুং এক ভিডিয়ো বার্তায় বলেন, “সবার কাছে আমার আবেদন, যাঁরা মানুষের সঙ্গে কাজ করতে পারেন তাঁদের ভোট দিন। আগে আমি তাঁর বিরুদ্ধে শিলিগুড়িতে লড়েছি। আমার মতে, অশোকদা ভালো লোক।” বাইচুং যোগ করেন, “শিলিগুড়ি তথা উত্তরবঙ্গবাসীর জন্য বহু উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন অশোক ভট্টাচার্য। সৎ এবং কাজের মানুষ তিনি। অনেক রাজনৈতিক নেতা আছেন, তবে অশোকদার মতো নেতা শুধু বাংলায় নয়, ভারতেও দরকার।” বাইচুং এই ভিডিয়ো বার্তা শেষ করতে গিয়ে বলেন, “আপনার ভোট ভালো মানুষ, ভালো নেতাকে দিন।”

আরও পড়ুন: বিজেপি প্রার্থীর গাড়িতে ইটবৃষ্টি, অভিযোগের আঙুল তৃণমূলের দিকে

অতীতে দার্জিলিং লোকসভা ও শিলিগুড়িতে বিধানসভায় অশোক ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে তৃণমূলের হয়ে লড়াই করা বাইচুং সিকিমে গিয়ে নিজের দল গড়েছেন। তবে অশোক ভট্টাচার্যের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক সর্বদাই ভালো। তাই আবার একটা বিধানসভা ভোটের মুখে সিপিএম প্রার্থীর হয়ে ভোট চাইলেন অতীতে তাঁরই বিপক্ষে লড়াই করা প্রাক্তন ফুটবলার।