Dhupguri: ‘জান দেব তবু জমি দেব না’, ধূপগুড়িতে তৈরি হল ভূমি রক্ষা কমিটি!

Farmer's Agitation: রাস্তা তৈরির জন্য কৃষকরা জমি দিতে অস্বীকার করেছিলেন আগেই। এবার ভূমি রক্ষা কমিটি তৈরি করে ফেললেন তাঁরা! প্রস্তুতি নয়া আন্দোলনের।

Dhupguri: 'জান দেব তবু জমি দেব না', ধূপগুড়িতে তৈরি হল ভূমি রক্ষা কমিটি!
ব্যানার টাঙিয়ে আন্দোলনের প্রস্তুতি। নিজস্ব চিত্র।

ধূপগুড়ি: পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রামে ভূমি উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির আন্দোলন মোড় নিয়েছিল এক রাজনৈতিক লড়াইয়ে। তখন রাজ্যে বিরোধীর ভূমিকায় থাকা তৃণমূল এই আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছিল। এখন রাজ্য শাসন করছে সেই দল। প্রায় ১৪ বছর আগে সেই আন্দোলনের মতো যেন এক ক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে জলপাইগুড়ির ধূপগুড়িতে! রাস্তা তৈরির জন্য কৃষকরা জমি দিতে অস্বীকার করেছিলেন আগেই। এবার ভূমি রক্ষা কমিটি তৈরি করে ফেললেন তাঁরা! প্রস্তুতি নয়া আন্দোলনের।

ফোর লেন রাস্তা তৈরি হবে। তার জন্য লাগবে জমি। কিন্তু নিজেদের চাষাবাদের জমি কিছুতেই ছাড়তে চান না কৃষকরা। সোমবার থেকে নতুন করে অনিচ্ছুক কৃষকদের আন্দোলন শুরু হল ধূপগুড়িতে। জমি দিতে তাঁরা অস্বীকার করেছিলেন আগেই কৃষকরা আগেই, চলছিল পালা করে জমি পাহারা দেওয়ার কাজ। এবার চাষের খেতে রীতিমতো পোস্টার ও ব্যানার লাগিয়ে ভূমি রক্ষা কমিটি গঠন করে শুরু হল আন্দোলন।

ভূমি রক্ষা কমিটি গঠন করে আন্দোলনের প্রস্তুতি ছুরু করেছেন কৃষকরা। সোমবার সকাল থেকে খলাইগ্রাম এলাকার ফোর লেন রাস্তার কাজের জন্য যে কৃষি জমি অধিগ্রহণের কথা বলেছিল প্রশাসন, সেই জমিতেই দেখা গেল পোস্টার ও ব্যানার ঝুলিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন অনিচ্ছুক কৃষকরা। বলে রাখা প্রয়োজন, এর আগে গত ১৯ নভেম্বর এই জমি পুলিশকে নিয়ে মাপতে আসেন হাইওয়ে কর্তৃপক্ষ। সেই সময় কৃষকদের প্রবল বাধার মুখে পড়তে হয় তাঁদের। পুলিশের সঙ্গে রীতিমতো ধ্বস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়। ঝাঁটা নিয়ে রাস্তায় নামতে দেখা যায় মহিলাদের। এবার সেই জমি রক্ষাতেই পোস্টার লাগানো হল জমিতে। কৃষকদের পরিষ্কার কথা, ‘জান দেব তবু জমি দেব না’। যদিও প্রশাসনের দাবি, ফোর লেন রাস্তার জমিজট মিটে গিয়েছে অনেকটাই। খুব দ্রুত রাস্তার কাজ শুরু করা হবে।

এদিকে জয়ন্ত ঘোষ ও রমাপ্রসাদ বসাকের মতো জমি মালিকরা বলছেন, জমির সমস্যা শুধুমাত্র ৬০০ মিটার নয়। ভেমটিয়া থেকে খলাই গ্রাম পর্যন্ত দীর্ঘ ৮ কিলোমিটার রাস্তায় সমস্যা রয়েছে। প্রশাসনের আধিকারিকরা মিথ্যে কথা বলছেন বলে অভিযোগ তাঁদের। জানান, “আমরা জমি দিব না, তাই ভূমি রক্ষা কমিটি করেছি, এখন আমরা পালা করে জমি পাহারা দিচ্ছি যাতে জমিতে আসতে না পারে। তাই জমিতে ব্যানার লাগিয়ে প্রশাসন কে জানিয়ে দিলাম, আন্দোলন নতুন করে শুরু করছি’।

ধূপগুড়ি পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান তথা জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদক রাজেশ কুমার সিং অবশ্য দাবি করেছেন, জমির সমস্যা মিটে গিয়েছে। শুধুমাত্র ৫০০ মিটার রাস্তার জায়গা নিয়ে সমস্যা রয়েছে। কৃষকদের সঙ্গে কথা বলে সেই সমস্যা মেটানোর চেষ্টা চলছে। গত ১৯ নভেম্বরের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটুক, সেটা কেউ চান না বলে জানান রাজেেশ বাবু।

আরও পড়ুন: Kolkata Sikh Woman Married to Pakistani: স্বামীর সঙ্গে পাকিস্তানে গিয়ে লাহোরের যুবককে বিয়ে করলেন কলকাতার শিখ মহিলা

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla