ছাগল খেয়েছে ফসল! দুই পরিবারের ঝামেলায় লাগল রাজনীতির রঙ

সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল পশ্চিম মেদিনীপুরের (Paschim Medinipur) চন্দ্রকোণা (Chandrakona)।

ছাগল খেয়েছে ফসল! দুই পরিবারের ঝামেলায় লাগল রাজনীতির রঙ
নিজস্ব চিত্র

পশ্চিম মেদিনীপুর: জমির ফসল খেয়ে গিয়েছে ছাগল! ভোট আবহে সেই বিবাদেই চড়ল রাজনীতির রঙ। তৃণমূল (TMC) বিজেপি (BJP) সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল পশ্চিম মেদিনীপুরের (Paschim Medinipur) চন্দ্রকোণা (Chandrakona)। আহত হয়েছেন দু’পক্ষের দুই মহিলা-সহ ৬ জন। লাঠির আঘাতে মাথা ফেটেছে এক বিজেপি কর্মীরও।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গ্রামেরই এক বাসিন্দার জমির ফসল খেয়ে যায় প্রতিবেশীর ছাগল। জানা যায়, ওই প্রতিবেশী বিজেপি কর্মী। এই নিয়ে বিবাদের সূত্রপাত। দুই পরিবারের মধ্যে বচসা শুরু হয়। তারপর তা চরম আকার নেয়। অভিযোগ, এলাকার বিজেপি বুথ সভাপতি শিবপ্রসাদ সাঁতরা ও তার পরিবারের সদস্যদের লাঠি রড দিয়ে বেধড়ক মারধর করে এলাকার তৃণমূল নেতা বামাপদ সাঁতরা ও তাঁর অনুগামীরা।

আরও পড়ুন:  মুখ থুবড়ে পড়েছিল দেহটা, মাথা থ্যাতলানো, রাস্তার ধারে চাপ চাপ রক্ত! গ্রামের পুজোর ভাসানে মর্মান্তিক ঘটনা

সংঘর্ষে আহত হন ৩ বিজেপি কর্মী। বিজেপির পাল্টা প্রতিরোধে আহত হন ৩ তৃণমূল কর্মী। অভিযোগ পাল্টা অভিযোগ ঘিরে তপ্ত এলাকা। আহতদের চন্দ্রকোণা গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিজেপি নেতা সৌরভ দাস বলেছেন, এলাকায় সন্ত্রাস তৈরি করতেই তৃণমূল এই কাজ করছে। যদিও চন্দ্রকোণার ব্লক তৃণমূল সভাপতি জগজিৎ সরকারের দাবি, বিজেপি ইচ্ছে করে রাজনৈতিক মোড় দিচ্ছে। এটি সম্পূর্ণ একটি পারিবারিক বিবাদ।