করোনা আতঙ্কের মাঝে পাকা ধানে মই বৃষ্টি, দুশ্চিন্তায় কৃষকরা

পূর্বাভাস মতোই হচ্ছে বৃষ্টি (Storm and rain), আর তাতেই জেরবার কৃষকরা। মাঠে পড়ে পাকা ধান। সে সবের কী হবে ভেবে মাথায় হাত কৃষকদের।

করোনা আতঙ্কের মাঝে পাকা ধানে মই বৃষ্টি, দুশ্চিন্তায় কৃষকরা

ঘাটাল: আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস (Weather update) ছিলই। আর সেই মতো গত কয়েকদিন ধরেই বৃষ্টি। আর তার জেরেই ক্ষতি হচ্ছে ধান জমিতে। এমনটাই জানাচ্ছেন কৃষকরা (farmers)। জলে ভরে যাচ্ছে খেত।

পূর্বাভাস অনুযায়ী গত কয়েক দিন ধরে ঝোড়ো হাওয়া, আর বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি দেখা গিয়েছে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায়। বিকেল হলেই মেঘলা আকাশ। বুধবার রাতে একেবারে সব কে ছাপিয়ে গেল প্রচন্ড বৃষ্টিতে, এমনকি বৃহস্পতিবার সকাল থেকেও মেঘলা আকাশ ও ঝিরিঝিরি বৃষ্টি চলে পশ্চিম মেদিনীপুরে।

হাওয়া আর বৃষ্টি দুইয়ে মিলে বোরো ধানে প্রচুর ক্ষতির আশঙ্কা করছে ঘাটাল ও চন্দ্রকোনার কৃষকেরা। শুরু হয়েছে ধান তোলার মরসুম,তাই মেশিন ও লেবার দিয়ে ধান কাটা শুরু করেছে কৃষকরা। সেই জন্য ধান কাটা হয়ে মাঠে পড়ে রয়েছে। এমনকি অনেকের পাকা ধান এই ঝড় বৃষ্টির ফলে মাটিতে পড়ে গিয়েছে। বুধবার রাতের ঝোড়ো হওয়া আর বৃষ্টিতে তাই ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আগামিদিনেও তাই ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করছে ধান চাষীরা।

তাঁদের দাবি এর ফলে নষ্ট হয়ে যাবে ধান, প্রচুর ক্ষতি হয়ে যাবে। শুধু ঘাটাল নয়, ঘাটালের, অজয়নগর, চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের ডিঙ্গাল মনোহরপুর সহ বেশ কয়েকটি গ্রামে একই ছবি।

আরও পড়ুন: বাংলায় আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ‘ট্রিপল মিউট্যান্ট’, কতটা ভয়ঙ্কর এই ‘বেঙ্গল স্ট্রেন’?

মেদিনীপুরের বাসিন্দা, পেশায় কৃষক কুশাধ্যায় শা বলেন, ‘ এখন ধান পাকার মুখে তাই, মাঠে বৃষ্টি আর হাওয়ায় ধান পড়ে যাচ্ছে। তাই ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। শুধু ঘাটাল নয়, গোটা এলাকায় এই ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।