বাম নেতাদের সঙ্গে বৈঠক টিম পিকে-র! ‘দল ভাঙাতে এলে হাত পুড়বে’: অশোক

এর আগে শিলিগুড়ির দুই বিদায়ী সিপিএম কাউন্সিলরও তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। দুর্গা সিং ও পরিমল মিত্র নামের দুই নেতা দীর্ঘদিনের সিপিএম কাউন্সিলর ও মেয়র পারিষদ ছিলেন। তাঁরা এখন তৃণমূলেই আছেন।

বাম নেতাদের সঙ্গে বৈঠক টিম পিকে-র! 'দল ভাঙাতে এলে হাত পুড়বে': অশোক
সিপিএম নেতা অশোক ভট্টাচার্য- ফাইল চিত্র

শিলিগুড়ি: আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের কয়েকমাস বাকি থাকতে ভোটকুশলীর সক্রিয়তা এবার উত্তরবঙ্গে। শিলিগুড়ি পুরবোর্ডের একাধিক সদস্য তথা বিদায়ী কাউন্সিলরদের সঙ্গে সম্প্রতি প্রশান্ত কিশোরের (Prashant Kishor) সংস্থা আই প্যাকের (I-PAC) সদস্যরা বৈঠক করেছেন বলে খবর। তারপরই সিপিএমের পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছে, দল ভাঙানোর চেষ্টা করছে টিম পিকে।

TV9 বাংলার কাছে এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে বিদায়ী সিপিএম কাউন্সিলর রিঙ্কি দাস জানিয়েছেন, দিনকয়েক আগেই শিলিগুড়ি পুরসভার বিদায়ী ডেপুটি মেয়র তথা বাম শরিক দলের নেতা রামভজন মাহাতোর ঘরে এসে হাজির হন আইপ্যাকের চার সদস্য। চা খেতে খেতেই নানা বিষয়ে আলোচনা করেন তাঁরা। রিঙ্কির অভিযোগ, তাঁরা চেষ্টা চালান দল ভাঙিয়ে বাম কাউন্সিলরদের তৃণমূলে যোগ দেওয়ার প্রস্তাবে রাজি করাতে। সেই সময় ২২ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর রিঙ্কি দাস নিজে, প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র রামভজন মাহাতো এবং কংগ্রেসের এক বিদায়ী কাউন্সিলর উপস্থিত ছিলেন।

রিঙ্কির দাবি, নানা সমীক্ষার নামে তাঁদের বেশ কিছু প্রশ্ন করার পাশাপাশি নাম ও টেলিফোন নম্বর নিয়ে যান আই প্যাকের সদস্যরা। তবে প্রস্তাব যে রকমই আসুক, দল বদলের কোনও প্রশ্নই নেই বলে এদিন জানান রিঙ্কি।

ঘটনা জানাজানি হতেই পাল্টা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পুর প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান অশোক ভট্টাচার্য। তাঁর দাবি, “বামেরা আদর্শ নিয়ে দল করে। তৃণমূলের কিছু মানুষ বিজেপিতে যাচ্ছেন। তৃণমূল সেই শূন্যস্থান পূরণে অন্য দল ভাঙাচ্ছে বা দল ভাঙানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। কিন্তু শিলিগুড়ি বামেদের শহর। এখানে এসব প্রচেষ্টা ব্যর্থ হবে। বিজেপি আর তৃণমূল অর্থাৎ বিজেমূল এখানে এসব করে লাভবান হবে না।”

আরও পড়ুন: ‘ভুল করে’ বিজেপিতে যাওয়া শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ সিরাজ ফিরলেন তৃণমূলে

উল্লেখ্য, এর আগে শিলিগুড়ির দুই বিদায়ী সিপিএম কাউন্সিলরও তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। দুর্গা সিং ও পরিমল মিত্র নামের দুই নেতা দীর্ঘদিনের সিপিএম কাউন্সিলর ও মেয়র পারিষদ ছিলেন। তাঁরা এখন তৃণমূলেই আছেন। এবার ভোটের মুখে ফের বিদায়ী বাম কাউন্সিলরদের ভাঙানোর অভিযোগ ওঠায় জেলার রাজনীতিতে হইচই শুরু হয়েছে। যদিও জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র বেদব্রত দত্ত জানান, “এবার বিধানসভা নির্বাচন হলে দেখবেন বামেদের আর মৌরুসিপাট্টা থাকবে না। মানুষ ওদের চায় না। ফলে দল ভাঙানোর চেষ্টার অভিযোগ ভিত্তিহীন।”‘

আরও পড়ুন: বেরল না রফাসূত্র, বাম কংগ্রেসের আসন সমঝোতার বৈঠকে মেজাজ হারালেন অধীর