করোনার টিকা নিয়েই অসুস্থ, কালনায় দশম শ্রেণির ছাত্রের মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য

Corona Vaccine Death: মৃতের এক আত্মীয় নাসরুল শেখের দাবি, ভ্যাকসিনের কারণেই মৃত্যু হয়েছে। ভ্যাকসিন নেওয়ার আগে পর্যন্ত আমাদের বাচ্চা সুস্থ ছিল, কোনও সমস্যাই ছিল না, প্রাণবন্ত বাচ্চা। গ্রামের লোকের বিপদে আপদে ঝাঁপিয়ে পড়ত ইউসুফ। কোভ্যাক্সিন ভ্যাকসিন নেওয়ার পর থেকেই খেতে পারছিল না, পেটে ব্যাথাও শুরু হয়। তারপর পায়ে ব্যথা শুরু হয়, হাঁটাচলাও বন্ধ হয়ে যায় ওর।

করোনার টিকা নিয়েই অসুস্থ, কালনায় দশম শ্রেণির ছাত্রের মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য
নিজস্ব চিত্র

কালনা: দিন কয়েক আগেই করোনার টিকা নিয়েছিল দশম শ্রেণির ছাত্রটি। তারপর থেকেই শরীর দুর্বল এবং পেটে ব্যথার সমস্যা হতে শুরু করে পূর্ব বর্ধমান জেলার কালনা বাসিন্দা ইউসুফ মোল্লা নামের ওই ছাত্রের। তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায় পরিবারের লোকজন, প্রথম দিকে চিকিৎসায় সাড়া দিলেও পরের দিকে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে কালনা মেডিকেল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরই সারা দেশে শুরু হয়েছে ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের করোনার টিকাকরণ। সারা দেশের পাশাপাশি এ রাজ্যেও শুরু হয়েছে ১৮ বছরের নীচে টিকাকরণ। গত ছয় জানুয়ারি কালনার সিংহজুলি সমুদ্রগঢ়ের সিংহজুলি হাই মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র ইউসুফ মোল্লাও করোনা টিকাকরণের প্রথম ডোজটি নেয়। মৃতের পরিবারের দাবি টিকা নেওয়ার পরই ওই ছাত্র অসুস্থ হয়ে পড়ে। শারীরিকভাবে দুর্বলতা অনুভব করার পাশাপাশি বাড়িতে পেটে ব্যথার সমস্যার কথা জানায় সমুদ্রগঢ় পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বনপুকুর এলাকার বাসিন্দা ওই ছাত্র। এরপরই তাকে প্রথমে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ এবং পরে কালনা মহকুমা হাসপাতালের এমার্জেন্সি বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয় চিকিৎসার জন্য। বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা চলছিল ওই ছাত্রের।

জানা গিয়েছে বৃহস্পতিবার রাতে ইউসুফের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে কালনা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাকে মৃত ঘোষণা করে চিকিৎসকরা। এরপরই মৃতের পরিবার দাবি করে ভ্যাকসিনের কারণেই মৃত্যু হয়েছে ওই ছাত্রের। মৃতের এক আত্মীয় এই জানিয়েছেন, ভ্যাকসিন নেওয়ার পর থেকেই খাওয়া দাওয়া ছেড়ে দিয়েছিল ওই পড়ুয়া, তাকে প্রথমে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ এবং পরে কালনা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু কোথাও তাকে স্যালাইন দেওয়া হয়নি।

মৃতের অন্য এক আত্মীয় নাসরুল শেখের দাবি, ভ্যাকসিনের কারণেই মৃত্যু হয়েছে। ভ্যাকসিন নেওয়ার আগে পর্যন্ত আমাদের বাচ্চা সুস্থ ছিল, কোনও সমস্যাই ছিল না, প্রাণবন্ত বাচ্চা। গ্রামের লোকের বিপদে আপদে ঝাঁপিয়ে পড়ত ইউসুফ। কোভ্যাক্সিন ভ্যাকসিন নেওয়ার পর থেকেই খেতে পারছিল না, পেটে ব্যাথাও শুরু হয়। তারপর পায়ে ব্যথা শুরু হয়, হাঁটাচলাও বন্ধ হয়ে যায় ওর। হাসপাতালে নিয়ে গেলেও অবস্থার উন্নতি হয়নি। ইতিমধ্যে মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কালনা মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিস।

এ ব্যাপারে কালনা মহাকুমা হাসপাতালের সুপার অরূপরতন করণ জানিয়েছেন, ময়নাতদন্তের জন্য জন্য ওই ছেলেটির মৃতদেহ আমাদের কাছে এসেছে। সারা দেশজুড়েই টিকাকরণ চলছে, কিন্তু টিকা নিয়ে মৃত্যু হয়েছে আমাদের কাছে এমন কোনও খবর নেই। হয়ত ছেলেটির অন্য কোনও সমস্যা ছিল। তবে যেহেতু ময়নাতদন্তের জন্য আমাদের কাছে মৃতদেহ এসেছে, আমরা আজ ময়নাতদন্ত করে মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করব। তবে বাড়ির লোকের মনে হচ্ছে টিকাকরণের ফলে মৃত্যু হয়েছে যা অস্বাভাবিক। কারণ সারা পৃথিবীজুড়ে টিকাকরণ চলছে কিন্তু তার জন্য মৃত্যু হয়েছে বলে তেমন কোনও খবর পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন: Omicron Scare: করোনা রুখতে ‘বিপদজ্জনক দেশ’ হিসেবে আরও ৮টি দেশের নাম তালিকভুক্ত করল ভারত!

Published On - 5:30 pm, Fri, 14 January 22

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla