সাফাইকর্মীদের কর্মবিরতিতে নাজেহাল শিলিগুড়ি, ঝাঁটা হাতে নামলেন কাউন্সিলররা, বৈঠকের ডাক মন্ত্রীর

শুক্রবার দুপুর আড়াইটেয় শুরু হবে বৈঠক।

সাফাইকর্মীদের কর্মবিরতিতে নাজেহাল শিলিগুড়ি, ঝাঁটা হাতে নামলেন কাউন্সিলররা, বৈঠকের ডাক মন্ত্রীর
শিলিগুড়িতে ঝাঁটা হাতে পথে কাউন্সিলররা, তড়িঘড়ি বৈঠকের ডাক মন্ত্রী গৌতম দেবের, নিজস্ব চিত্র

শিলিগুড়ি: তিনদিন ধরে গোটা শিলিগুড়ি শহরে জমছে আবর্জনা। আস্ত একটা শহর পরিণত হতে চলেছে ডাম্পিং গ্রাউন্ডে। কারণ, অনির্দিষ্টকালীন কর্মবিরতির পথে শিলিগুড়ির সাফাইকর্মীরা (cleansing Staff)। তাঁদের দাবি না মানলে শহর সাফাইয়ের কাজ পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে বলেই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তাঁরা।

অবস্থা বেগতিক বুঝে শুক্রবার দুপুরে তড়িঘড়ি বৈঠকের ডাক দিয়েছেন রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব। শুক্রবার দুপুর আড়াইটেয় শুরু হবে বৈঠক। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, বুধবার থেকে কর্মবিরতি চলছে সাফাইকর্মীদের (cleansing Staff)। বাড়ি বাড়ি থেকে তোলা হয়নি কোনও আবর্জনা। তিনদিনের আবর্জনা জমছে ঘরেই। রাস্তা জুড়েও ময়লা। গোটা শহরে পুতিগন্ধে জেরবার স্থানীয়রা।

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও মেলেনি চাকরি, অনির্দিষ্টকালের জন্য অনশনে হবু শিক্ষকরা

বেতন বৃদ্ধি, অস্থায়ী কর্মীদের (cleansing Staff) স্থায়ীকরণ-সহ মোট দশ দফা দাবিতে সরব হয়েছেন সাফাইকর্মীরা। তাঁদের অভিযোগ, পৌরনিগমের কর্তাদের সঙ্গে একাধিক বৈঠকেও তাঁদের সমস্যার কোনও সমাধান হয়নি। তাই বাধ্য হয়েই এই পথ বেছেছেন তাঁরা। শুক্রবার সকালে, শহর পরিষ্কার রাখতে তাই বাধ্য হয়েই যৌথভাবে পথে নেমেছেন তৃণমূল ও বাম কাউন্সিলররা। এ দিন সকালে, ঝাঁটা হাতে তাঁদেরকেই রাস্তা পরিষ্কার করতে দেখা গেল।

এ ঘটনায় পুরপ্রশাসক মণ্ডলীর চেয়ারম্যান অশোক ভট্টাচার্য জানান, এ আন্দোলন দুর্ভাগ্যজনক। অস্থায়ী কর্মীদের (cleansing Staff) স্থায়ীকরণ বা বেতন বৃদ্ধির ক্ষমতা শিলিগুড়ি পৌরনিগমের হাতে নেই। বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই আন্দোলনকে কোনও বিশেষ রাজনৈতিক দল মদত দিচ্ছে বলেই মনে করছেন শিলিগুড়ির বিধায়ক।