Pride Month: ৭ বলিউড ছবি যা তুলে ধরেছে এলজিবিটিকিউআইএ+ সম্প্রদায়ের গল্প

এলজিবিটিকিউআইএ+ সম্প্রদায়ের সম্মানে ‘প্রাইড মান্থ’ হিসাবে পালন করা হয় জুন মাস। সচেতনতা বাড়াতে, গ্রহণযোগ্যতা শেখাতে, গর্বের ইতিহাস নিয়ে আলোচনা করতে এবং সর্বোপরি, এলজিবিটিকিউআইএ + সম্প্রদায়ের প্রতি ভালবাসা এবং সহানুভূতি জানাতে উদযাপিত হয়। বলিউডে এমন কিছু পরিচালক আছেন যাঁরা ফিল্মের মাধ্যমে সেক্সুয়ালিটির ভিন্ন রূপকে তুলে ধরেছে। তেমন ফিল্মে সাজানো এই গ্যালারি।

  • Publish Date - 4:50 pm, Sat, 5 June 21 Edited By: শুভঙ্কর চক্রবর্তী
1/7
কাপুর অ্যান্ড সন্স প্রয়াত ঋষি কাপুর, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, ফাওয়াদ খান, রত্না পাঠক শাহ এবং রজত কাপুর অভিনীত শকুন বাত্রার পারিবারিক গল্পে এ ছবি। দু'ভাই রাহুল (ফাওয়াদ খান) এবং অর্জুনের (সিদ্ধার্থ মালহোত্রা) গল্প। কাহিনীটি নতুন মোড় নেয় যখন রাহুলের মা সুনিতা কাপুর (রথনা পাঠক শাহ) আবিষ্কার করন যে তাঁর 'নিখুঁত' ছেলে একজন সমকামী। হঠাৎ, তার প্রতি তার ভালবাসা এবং স্নেহ ম্লান হতে শুরু করে এবং গ্রহণযোগ্যতায় পরিবর্তিন ঘটে। সিনেমায় একবার নয়, ‘গে’ শব্দের উল্লেখ রয়েছে একাধিকবার। ফাওয়াদ খানের অভিনয় এবং ‘সিনেমা স্টিরিওটাইপ’ ভেঙে ফেলে সিনেমার মাত্রা বেড়েছে।
2/7
আলিগড় ২০১৫ সালের হন্সল মেহতা পরিচালিত ছবি। প্রফেসর রামচন্দ্র সিরাসের জীবনভিত্তিক গল্প। তাঁকে এক রিকশাচালকের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখা যাওয়ায় তাঁকে আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বরখাস্ত করা হয়েছিল। ছবিতে প্রফেসরের চরিত্রে অভিনয় করেন মনোজ বাজপেয়ী। রাজকুমার রাও এক গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন।
3/7
বম্বে টকিজ অল্প বয়সি ছেলে অবিনাশ। যে নিজের শর্তে বাঁচে। নিজের যৌনতা সম্পর্কে খোলাখুলি বলার পর বাবা-মা তাঁকে অস্বীকার করেছিলেন। সামাজিক রীতিনীতি এবং স্টিরিওটাইপ প্রথা থেকে বিরক্ত অবিনাশ জীবনের এক নতুন অধ্যায় শুরু করে। একটি জনপ্রিয় ম্যাগাজিন ইন্টার্নশিপ করে এবং গায়ত্রী (রানি মুখার্জি) নামে এক সহকর্মীর সঙ্গে পরিচিত হন। প্রেমহীন এক বিয়েতে আটকে গিয়েছেন গায়ত্রী। আবিষ্কার করেন যে তাঁর স্বামী দেব (রণদীপ হুডা) একজন সমকামী। ছবির শেষে দেব অবিনাশের প্রতি তাঁর আকর্ষণ উপলব্ধি করে।
4/7
এক লড়কি কো দেখা তো অ্যায়সা লগা সুইটি চৌধুরী। সহজ সরল মেয়ে। পাঞ্জাবি পরিবারে বড় হয়ে ওঠা। ছোট থেকেই সে ‘কনে’ হতে চেয়েছিল তবে বড় হওয়ার পর সে বুঝতে পারে যে সে চায় তার কোনও বর হোক। সুইটি কীভাবে সমকামিতার জন্য তার পরিবার এবং সমাজের চরম বিরোধিতার মুখোমুখি হন, এ গল্প নিয়ে ছবি। অভিনয়ে সোনম কাপুর, অনিল কাপুর এবং রাজকুমার রাও।
5/7
শুভ মঙ্গল জ়্যাদা সাবধান আয়ুষ্মান খুরানা এবং জিতেন্দ্র কুমার অভিনীত যৌন সম্পর্কের গল্প। ছবিতে দুই সমকামী পুরুষ আমান ও কার্তিক। গোঁড়া ভারতীয় সমাজে সমকামী দম্পতি হওয়ার জন্য কার্তিক ও আমানকে যে লড়াইয়ের মুখোমুখি হতে হয়েছে, সে গল্পই তুলে ধরা হয়েছে। আমানের পরিবার উভয়কে আলাদা করার জন্য চেষ্টা করে, তবে কার্তিক এক পাও পিছু নেয় না সমস্ত প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে লড়াই করে সে আমানকে বিয়ে করে।
6/7
মার্গারিটা উইদ এ স্ট্র শোনালি বোসের ছবি ‘মার্গারিটা উইথ এ স্ট্র’। লাইলার চরিত্রে অভিনয় করেছেন কল্কি কোয়েচলিন। একজন প্রতিভাবান লেখক এবং সংগীতশিল্পী। যিনি সেরিব্রাল প্যালসিতে ভুগছেন। লাইলা একজন লেসবিয়ান। সমকামিতা এবং তার সঙ্গে অক্ষমতার গল্প তুলে ধরেছে ছবি।
7/7
মাই ব্রাদার নিখিল নিখিল কাপুরের (সঞ্জয় সুরি) জীবনের চারপাশে ঘোরাফেরা করছে। রাজ্য স্তরের সাঁতারু যিনি তাঁর পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে পছন্দ করে। নিখিলের এইচআইভি রিপোর্ট পজিটিভ আসায় সব বদলে যায়। পরিবারের সবাই তার বিরুদ্ধে যায় এবং তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করে। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে সমকামী এবং এইডসে আক্রান্ত বলে তাকে জেলে রাখে। নিখিলের বোন অনামিকা (জুহি চাওলা) এবং বয়ফ্রেন্ড নাইজেল (পূরব কোহলি) তার কাছে একমাত্র আশার আলো হয়ে দাঁড়ায়।