Mahima Chaudhry: ‘আমাদের সময়ে শুধুমাত্র ভার্জিন নায়িকাদেরই পর্দায় দেখতে চাইতেন ওঁরা’

তবে শুধু নায়িকাদের ক্ষেত্রে এমনটা হতো এমনটাও নয় বলে মনে করছেন মহিমা। নায়কদেরও এমন অবস্থার মুখোমুখি হতে হয়েছে।

Mahima Chaudhry: 'আমাদের সময়ে শুধুমাত্র ভার্জিন নায়িকাদেরই পর্দায় দেখতে চাইতেন ওঁরা'
মহিমা চৌধুরী।

‘পরদেশ’ ছবি দিয়েই বলিউডে পা রেখেছিলেন মহিমা চৌধুরী। বর্তমানে শো-বিজ থেকে এক প্রকার অবসরই নিয়েছেন তিনি। নায়িকাদের তৎকালীন অবস্থা ও এখনকার অবস্থা নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেতা। তাঁর মতে তাঁর সময়ে শুধুমাত্র ভার্জিন নায়িকাদেরই পর্দায় দেখতে পছন্দ করতেন দর্শক।

তাঁর কথায়, “ইণ্ডাস্ট্রি এখন আগের থেকে অনেকটাই আলাদা। নায়িকাদের অবস্থার উত্তরণ ঘটেছে। ভাল পারিশ্রমিক, ভাল চরিত্র পাচ্ছেন তাঁরা। তাঁদের হাতে ক্ষমতা এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি।” মহিমার কথায়, তাঁর সময়ে একজন অভিনেত্রীর ব্যক্তিগত সম্পর্কও তাঁর কেরিয়ারের উপর যথেষ্ট প্রভাব বিস্তার করত। তিনি যোগ করেন, “যেই মুহূর্তে কাউকে ডেট করা শুরু করলেন কোনও অভিনেত্রী মানুষ তাঁকে ভুলে যেতে শুরু করত। ভার্জিন নায়িকা যে কোনওদিনও চুমু খায়নি এমন কাউকেই পর্দায় দেখতে পছন্দ করতেন দর্শক।” এখানেই থামেননি মহিমা। তিনি আরও যোগ করেন, “যদি সেই নায়িকা বিয়ে করে নেয় তাহলে তাঁর কেরিয়ার শেষ। আর যদি মা হয়ে যায় তো একেবারেই শেষ।”

তবে শুধু নায়িকাদের ক্ষেত্রে এমনটা হতো এমনটাও নয় বলে মনে করছেন মহিমা। নায়কদেরও এমন অবস্থার মুখোমুখি হতে হয়েছে। তিনি জানান, কয়ামত সে কয়ামত তাক যখন মুক্তি পেয়েছিল তখন আমির খান যে বিবাহিত তা কাউকে জানতে দেওয়া হয়নি। গোবিন্দার ক্ষেত্রেও অনুরূপ হয়েছিল বলে দাবি মহিমার। তবে এখন চিত্রটা অনেকটাই আলাদা। দীপিকা থেকে প্রিয়াঙ্কা– বিয়ের পরেও চুটিয়ে কাজ করছেন তাঁরা। ব্যক্তিগত জীবনের সমীকরণ বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি তাঁদের ক্ষেত্রে।

মহিমার বক্তব্য, “এখন নায়িকাদের মানুষ বিভিন্ন চরিত্রে আপন করে নিচ্ছে। এমনকি রোম্যান্টিক চরিত্রেও বিবাহিত নায়িকারা দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে চলেছেন।” ব্যক্তিগত ও পেশাগত জীবনকে এক করেই এগিয়ে চলেছেন তাঁরা।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla