পিরিয়ডসের সময় অবশ্যই নজর থাকুক হাইজিনে, মেনে চলুন এই সাতটি নিয়ম

তলপেটে প্রবল যন্ত্রণা, কোমরে ব্যথা, হেভি ফ্লো--- এইসব ছাড়াও অনেকসময়েই মেন্সট্রুয়াল হাইজিনের দিকে নজর না থাকার কারণে অন্যান্য অনেক সমস্যা দেখা যায়।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 14:51 PM, 22 Feb 2021
পিরিয়ডসের সময় অবশ্যই নজর থাকুক হাইজিনে, মেনে চলুন এই সাতটি নিয়ম
পেটে ব্যথা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে নিজের ইচ্ছেমতো পেনকিলার খাবেন না।

পিরিয়ডস বা ঋতুস্রাবের সময় বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হন মহিলারা। তলপেটে প্রবল যন্ত্রণা, কোমরে ব্যথা, হেভি ফ্লো– এইসব ছাড়াও অনেক সময়েই মেন্সট্রুয়াল হাইজিনের দিকে নজর না থাকার কারণে অন্যান্য অনেক সমস্যা দেখা যায়। তাই পিরিয়ডসের সময় অবশ্যই হাইজিনের প্রতি নজর দিন। নয়তো দীর্ঘমেয়াদি অনেক সমস্যা দেখা দিতে পারে। অন্যান্য অনেক রোগ বাসা বাঁধতে পারে মহিলাদের শরীরে।

যে বিষয়গুলো অবশ্যই খেয়াল রাখবেন

১। সঙ্গে অবশ্যই একস্ট্রা স্যানিটারি ন্যাপকিন রাখুন। নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে প্যাড বদল করা দরকার।

২। প্যাড বদল করার সময় চেষ্টা করবেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন বাথরুম ব্যবহার করার। অপরিষ্কার বাথরুমে গেলে ইনফেকশন হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আজকাল অনেকেই মেন্সট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করেন। যদি কোনও মহিলা সেটা ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, তাহলে তিনি সেটা করতে পারেন।

৩। যাঁদের পক্ষে শপিং মলে গিয়ে প্যাড চেঞ্জ করা সম্ভব, তাঁরা সেটাই করুন। আপনি যদি কর্মরতা হন, তাহলে নিজের কাজের জায়গার বাথরুম ব্যবহার করুন। এই সময় পাবলিক টয়লেট বা সুলভ শৌচালয় এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। প্রয়োজনের খাতিরে একান্তই ব্যবহার করতে হলে সঙ্গে অবশ্যই রাখুন পি-সেফ। পিরিয়ডসের কয়েকটা দিন নিজের বাড়ির বাইরে যে কোনও বাথরুমে গেলেই পি-সেফ ব্যবহার করা উচিত।

৪। পেটে ব্যথা হলে চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে নিজের ইচ্ছেমতো পেনকিলার খাবেন না। এতে সাময়িকভাবে ব্যথা কমলেও পরবর্তীকালে অন্য সমস্যায় পড়তে পারেন। এক্ষেত্রে পেটে হাল্কা গরম সেঁক দিতে পারেন। অনেকে বলেন বরফ সেঁক দিলেও যন্ত্রণা কমে, আরাম হয়।

৫। অনেক মহিলার ক্ষেত্রেই পিরিয়ডসের সময় ভীষণ মুড সুইংস হয়। এ সব ক্ষেত্রে সঙ্গে রাখুন চকোলেট। কারণ বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, মুড সুইংস কমাতে ভীষণ ভাবে সাহায্য করে চকোলেট।

৬। ভ্যাজাইনাল এড়িয়া অর্থাৎ ভ্যাজাইনা এবং সংলগ্ন এলাকা পরিষ্কার করুন। পিরিয়ড চলাকালীন প্যাড বদল করার আগে সম্ভব হলে প্রতিবারই জল দিয়ে ভাল করে ভ্যাজাইনাল এলাকা ধুয়ে নিন। সম্ভব হলে ওয়াক্সিং করে রাখতে পারেন আগে থেকেই। এর ফলে ইচিং (চুলকানি) বা র‍্যাশ, এ সব সমস্যা থেকে দূরে থাকা যায়।

৭। খাওয়াদাওয়ার অনিয়ম না করাই ভাল। যা পছন্দ তাই খান। তবে সঠিক সময়ে। কিন্তু খুব মশলাদার খাবার এই ক’দিন এড়িয়ে চলাই ভাল। তার ফলে অ্যাসিডিটি বা বদহজমের সমস্যা এড়ানো যায়। পরিমিত পরিমাণ জল খাওয়া অবশ্যই প্রয়োজন।