‘ত্রিপুরার বহু তৃণমূল নেতা গরু পাচারে অভিযুক্ত’, জেলে ঢোকানোর হুঁশিয়ারি বিপ্লব দেবের

Biplab Deb: তৃণমূলের দাবি, সিপিএম, বিজেপি, কংগ্রেসে থেকে ৭০ জনের বেশি নেতা যোগ দিয়েছেন। রয়েছেন সুস্মিতা দেবের মতো প্রাক্তন কংগ্রেস নেত্রী। মাথাব্যথা বেড়েছে বিজেপির অন্দরেও। কারণ, সুদীপ রায় বর্মনের সঙ্গে বিজেপির বিচ্ছেদ ও তৃণমূল ঘনিষ্ঠতার জল্পনা ছড়িয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে তৃণমূলে নতুন করে যোগ দেওয়া নেতাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারির হুঁশিয়ারি দিলেন মুখ্য়মন্ত্রী বিপ্লব দেব ।

'ত্রিপুরার বহু তৃণমূল নেতা গরু পাচারে অভিযুক্ত', জেলে ঢোকানোর হুঁশিয়ারি বিপ্লব দেবের
ফাইল চিত্র।


ত্রিপুরা: একুশের ভোটে বাংলা জয়ের পর তৃণমূলের পাখির চোখ এখন বিজেপি শাসিত ত্রিপুরা। ২০২৩ সালের বিধানসভা ভোটকে লক্ষ্য করে সংগঠনে জোর দিচ্ছে ঘাসফুল শিবির। ইতিমধ্যেই বিজেপি শাসিত ত্রিপুরায় পালা করে আসছেন তৃণমূল নেতারা। তাদের দাবি, সিপিএম, বিজেপি, কংগ্রেসে থেকে ৭০ জনের বেশি নেতা যোগ দিয়েছেন। রয়েছেন সুস্মিতা দেবের মতো প্রাক্তন কংগ্রেস নেত্রী। মাথাব্যথা বেড়েছে বিজেপির অন্দরেও। কারণ, সুদীপ রায় বর্মনের সঙ্গে বিজেপির বিচ্ছেদ ও তৃণমূল ঘনিষ্ঠতার জল্পনা ছড়িয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে তৃণমূলে নতুন করে যোগ দেওয়া নেতাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারির হুঁশিয়ারি দিলেন মুখ্য়মন্ত্রী বিপ্লব দেব (Biplab Deb)। রবিবার তাঁর এক ফেসবুক পোস্ট ঘিরে জোর শোরগোল ত্রিপুরার রাজনৈতিক মহলে। কিন্তু কেন গ্রেফতারির হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন বিপ্লব?

এদিন এক ফেসবুক পোস্টে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী লেখেন, “আমি ২০১৫ সালে ত্রিপুরায় দায়িত্ব নিয়ে আসি এবং ২০১৭ সালেই বড়জলা উপনির্বাচনে দলের সাংগঠনিক কাজে ঝাঁপিয়ে পড়ি। তখন এই বড়জলার প্রত্যেকের বাড়িতে আমি গিয়েছি। বড়জলার প্রত্যেকে আমাকে চেনে আমিও তাদের চিনি। এখন দেখা যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ থেকে একটি দল আমাদের রাজ্যে এসেছে। এ দলের নেতৃত্বরা পশ্চিমবঙ্গে গরু পাচারের মতো অসামাজিক সঙ্গে যুক্ত। এখানেও যাদের দলে টানছে তারাও এ ধরনের অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত। আর আমার কাছে তথ্য প্রমাণ রয়েছে যার ভিত্তিতে তাদের আমি গ্রেপ্তার করাবো।’ (বানান অপরিবর্তিত)

প্রসঙ্গত, তৃণমূলের অতি সক্রিয়তায় ত্রিপুরায় বিজেপি বিরোধী দলগুলিতে ভাঙন ধরছে। অনেকেই যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলে। আবার তৃণমূলের দাবি, একাধিক বিজেপি নেতা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। ইচ্ছা করলেই বিপ্লব দেবের সরকার তাঁরা ফেলে দিতে পারেন। কিন্তু মানুষের সমর্থনেই ত্রিপুরায় ক্ষমতায় আসবেন বলে মন্তব্য করেছেন কুণাল ঘোষ। এই প্রেক্ষিতে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের পোস্টে যেন সেই দাবি একপ্রকার মান্যতা পেল। কারণ, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিরোধী ভোটকে তৃণমূলের দিক থেকে বিজেপির দিকে আনতে দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যেও বার্তা দিয়ে তিনি লিখেছেন, “আমি দলের কার্যকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলবো প্রত্যেক বিরোধী সিপিএম এর সমর্থকদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য। তাদের কাছে গিয়ে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের খতিয়ান তুলে ধরুন। তাদের বোঝান ২৫ বছরের সরকার কি করেছে আর আমরা গত সাড়ে তিন বছরে কি করেছি ও করছি।’ (বানান অপরিবর্তিত)।

উল্লেখ্য, একদা মুকুল রায় ঘনিষ্ঠ সুদীপ রায় বর্মন যে তৃণমূলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রাখছেন। সম্প্রতি দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের মাঝপথেই রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করে বেরিয়ে যান সুদীপ। তার পরেও তাঁর দাবি মানেনি দল। এই পরিস্থিতিতে বিপ্লব দেবের ফেসবুকে পোস্ট বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। এদিকে বিপ্লব দেবের এই ফেসবুক পোস্টের প্রেক্ষিতে তৃণমূলের প্রতিক্রিয়া জানতে চেয়ে বেশ কয়েকজন নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছিল। কিন্তু ফোন তোলেননি। প্রতিক্রিয়া পেলে আপডেট করা হবে এই প্রতিবেদন। আরও পড়ুন: ‘প্রধানমন্ত্রীর নামেই প্রচার চালাব আমরা’, মহাপঞ্চায়েত থেকেই নয়া ‘মিশনে’র ঘোষণা তিকাইতের 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla