Delhi COVID Restriction: ‘রোগী ভর্তির সংখ্যা কম, আগামী ২-৩দিনও সংক্রমণ কমতে থাকলে…’ ভাল খবরের ইঙ্গিত দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Delhi Health Minister on COVID Restriction: মুম্বইয়ের করোনা সংক্রমণের হারের সঙ্গে তুলনা টেনে সত্যেন্দর জৈন বলেন, "সংক্রমণের হারের উপর নির্ভর করতে পারে না যে সংক্রমণ শীর্ষে পৌঁছেছে কিনা। হাসপাতালে ভর্তির হার এখনও নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে এবং আক্রান্তের হারও একটি নির্দিষ্ট হারে পৌঁছে গিয়েছে।"

Delhi COVID Restriction: 'রোগী ভর্তির সংখ্যা কম, আগামী ২-৩দিনও সংক্রমণ কমতে থাকলে...' ভাল খবরের ইঙ্গিত দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী
দিল্লির একটি হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে করোনা রোগীদের। ছবি:PTI

নয়া দিল্লি: নতুন বছরের শুরু থেকেইকরোনা(COVID-19)-র দৈনিক সংক্রমণের উর্ধ্বমুখী হার দেখছে রাজধানী দিল্লি (Delhi)। সংক্রমণ বাড়তেই জারি করা হয়েছে একাধিক বিধিনিষেধ(COVID Restrictions)-ও। ফলও মিলছে হাতেনাতে, ধীরে ধীরে কমছে আক্রান্তের সংখ্যা।  এই পরিস্থিতিতেই খুশির খবর দিলেন দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দর জৈন। এ দিন তিনি জানান, আগামী ২-৩দিনও যদি সংক্রমণের হার নিম্নমুখী থাকে, তবে বিধিনিষেধ শিথিল করা যেতে পারে।

হাসপাতালে রোগী ভর্তির সংখ্যা কম:

এ দিন দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দর জৈন (Satyendar Jain)বলেন, “যদি আগামী দুই-তিনদিনে রাজ্যে করোনা সংক্রমণ কমে যায়, তবে বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া বা শিথিল করা হতে পারে। দিল্লিতে করোনা সংক্রমণ এখন স্থিতিশীল পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে, শীঘ্রই সংক্রমণের হার নিম্নমুখী হবে।”

মুম্বইয়ের করোনা সংক্রমণের হারের সঙ্গে তুলনা টেনে সত্যেন্দর জৈন বলেন, “সংক্রমণের হারের উপর নির্ভর করতে পারে না যে সংক্রমণ শীর্ষে পৌঁছেছে কিনা। হাসপাতালে ভর্তির হার এখনও নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে এবং আক্রান্তের হারও একটি নির্দিষ্ট হারে পৌঁছে গিয়েছে। হাসপাতালগুলিতে এখনও বিপুল সংখ্যক শয্যা ফাঁকা রয়েছে। যাদের কো-মর্ডিবিটি রয়েছে, তাদেরই মূলত সমস্যা হচ্ছে। তাছাড়া হাসপাতালে খুব একটা করোনা আক্রান্ত চিকিৎসা করাতে আসছেন না।”

আক্রান্তের সংখ্যার পূর্বাভাস:

মঙ্গলবার দিল্লিতে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২১ হাজার ২৫৯ জন। গত বছরের ১ মে-র পর এটিই সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা। একদিনে মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের, যা গত ১৬ জুনের পর সর্বোচ্চ সংখ্যা। রাজ্যে সংক্রমণের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫.৬৫ শতাংশ।  দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, আজ দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার পার করতে পারে।

কী কী বিধিনিষেধ রয়েছে দিল্লিতে?

সংক্রমণ বাড়তেই মঙ্গলবার দিল্লিতে নতুন করে বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। দিল্লি বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর বা ডিডিএমএ-র নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, দিল্লির সমস্ত প্রাইভেট অফিস, রেস্তরাঁ এবং বার বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।  সমস্ত বেসরকারি অফিসের কর্মচারীদের বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবা প্রদানকারী অফিসগুলিই খোলা থাকবে। এছাড়া রেস্তরাঁ থেকে খাবার সরবরাহ এবং টেকওয়ে সুবিধা পাওয়া যাবে। ১১ জানুয়ারি থেকেই এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। গতমাস থেকেই নৈশ কার্ফু জারি রয়েছে শহরে।

লকডাউনে ‘না’ মুখ্যমন্ত্রীর:

অন্য়দিকে, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল জানান যে সংক্রমণ বাড়ার কারণেই বাধ্য হয়ে বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে, তবে দিল্লিতে সম্পূর্ণ লকডাউন করা হবে না। তিনি বলেন, “গোটা দেশজুড়েই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। দিল্লিতেও সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে আমরা দেখেছি যে আপাতত সংক্রমণের গতি কমে এসেছে দিল্লিতে। আশা করছি এই ধারাই বজায় থাকবে এবং ধীরে ধীরে সংক্রমণ কমে আসবে।”

আরও পড়ুন: Covid in BJP Headquater: বিজেপির সদর দফতরে করোনার থাবা, একসঙ্গে আক্রান্ত ৪২ কর্মী

Published On - 3:53 pm, Wed, 12 January 22

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla