Kirti Azad joins TMC : গান্ধীদের থেকে ‘আজাদি’ নিয়ে কীর্তি এখন মমতার, আরও চওড়া বিরোধী ঐক্যের ফাটল?

Trinamool Congress: এই দুই নেতাকেই এবার নিজের দলে টেনে কংগ্রেসকে কি কোনও বার্তা দিতে চাইলেন মমতা?

Kirti Azad joins TMC : গান্ধীদের থেকে 'আজাদি' নিয়ে কীর্তি এখন মমতার, আরও চওড়া বিরোধী ঐক্যের ফাটল?
কীর্তি আজাদকে উত্তরীয় পরিয়ে দলে স্বাগত জানালেন মমতা

নয়াদিল্লি : রাজধানীতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জাতীয় স্তরে নিজেদের রাজনৈতিক অস্তিত্ব প্রমাণের লড়াই। আর সেই লড়াইয়ে নেমে কি ক্রমেই বন্ধু হারাচ্ছেন মমতা? প্রশ্নটা উঠছে, কারণ যত দিন এগোচ্ছে, তত বিজেপি বিরোধী জোট যেন কর্পূরের মতো উবে যাচ্ছে। এই যেমন আজই, তৃণমূলে যোগ দিলেন কংগ্রেস নেতা তথা তিরাশির বিশ্বকাপ জয়ী দলের অন্যতম সদস্য কীর্তি আজাদ। তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন আরও এক প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা অশোক তানওয়ার। হরিয়ানার রাজনীতির আঙিনায় অশোক তানওয়ারে যথেষ্ট দাপট রয়েছে। আর এই দুই নেতাকেই এবার নিজের দলে টেনে কংগ্রেসকে কি কোনও বার্তা দিতে চাইলেন মমতা?

দুই নেতাই অবশ্য তৃণমূলে আসতে পেরে যথেষ্ট আপ্লুত। কীর্তি আজাদ। এককালে বিজেপির সাংসদ ছিলেন। তারপর বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে কংগ্রেস। কিন্তু সেখানেও মন বসল না। এবার মমতার শিবিরে নাম লেখালেন তিনি। বললেন, যতদিন তিনি রাজনীতির দুনিয়ায় থাকবেন, ততদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বেই কাজ করবেন। তাঁর বক্তব্য,” দেশের আজ ওনার মতো নেতার প্রয়োজন আছে। রাজনীতি করলে দিদির মতাদর্শেই করব। আমি ধন্য, দিদি আমাকে আজ তৃণমূলের সদস্য করলেন।”

কীর্তি আজাদের পাশাপাশি তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ তথা হরিয়ানার দাপুটে কংগ্রেস নেতা অশোক তানওয়ার। হরিয়ানা প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতিও ছিলেন তিনি। রাজনৈতিক মহলে, সোনিয়া-পুত্র রাহুল গান্ধীর ঘনিষ্ঠ বলেও যথেষ্ট পরিচিতি ছিল তানওয়ারের। কিন্তু পরবর্তী সময়ে প্রদেশ কংগ্রেসের বিবাদের জেরে ২০১৯ সালে কংগ্রেসে ত্যাগ করেন তিনি এবং আপনা ভারত মোর্চা নামে নিজের সংগঠন তৈরি করেন। এবার সেই এককালের রাহুল-ঘনিষ্ঠ তানওয়ারকেও নিজের দলে টেনে নিলেন মমতা। আর শুধু তাই নয়, গোয়ার সাংগঠনিক কাজে তানওয়ারের উপরেই ভরসা রাখছেন মমতা। এর পাশাপাশি, হরিয়ানাতেও নিজের সংগঠনের বিস্তারের ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন। আজ তানওয়ারের যোগদান পর্ব শেষে মমতা বলেন, ” আমি হরিয়ানা যেতে চাই। যেদিন অশোক তানওয়ার ডাকবেন, সেদিনই চলে যাব।”

এদিকে মমতা দিল্লি যাত্রা মানেই এতদিন পর্যন্ত যে চেনা ছবিগুলি দেখা যেত, তার মধ্যে রয়েছে কেজরিওয়ালের সঙ্গে মমতার সাক্ষাৎ, সোনিয়ার সঙ্গে দেখা… কিন্তু এবার এখনও পর্যন্ত তেমন কিছুই হতে পারে বলে খবর নেই। মাঝে সোনিয়ার সঙ্গে মমতা দেখা করতে পারেন বলে একটি গুঞ্জন ছড়ালেও, তার কোনও নিশ্চয়তা নেই। তাহলে কি একে একে কংগ্রেসী নেতাদের ভাঙিয়ে তৃণমূলে টানাতেই চটেছেন গান্ধীরা? আর কেজরিওয়াল? দুদিন আগে পর্যন্তও দিল্লি সরকার, পশ্চিমবঙ্গ সরকার একে অন্যের সাফল্যে টুইটে অভিবাদন জানাত। কিন্তু এখন ছবি বদলাচ্ছে। সম্প্রতি গোয়ায় কেজরিওয়ালের ঘর ভাঙিয়ে মমতা বেশ কয়েকজন আম আদমি পার্টির স্থানীয় নেতা ও কর্মীকে দলে টেনেছেন। আর সেটা যে কেজরি খুশি মনে মেনে নিয়েছেন, এমনটা বলা মুশকিল। তার উপর আবার গোয়ায় কেজরি এবং মমতা দুজনেই আলাদা আলাদাভাবে প্রচারে নেমেছেন। অর্থাৎ, সেখানে সম্মুখ সমরে মমতা – কেজরি – গান্ধীরা। আর এই সব যাঁতাকলের মধ্যে পড়েই কি তৃণমূলের সাধের বিজেপি বিরোধী জোটের ফাটল চওড়া হচ্ছে?

আরও পড়ুন : Supreme Court on Tripura: ‘নির্বাচন স্থগিত চরম এবং শেষ পদক্ষেপ’, ২৫ নভেম্বরই ত্রিপুরায় পৌরভোটের নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টে

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla