Booster Dose For COVID-19: বিদেশে বাধ্যতামূলক হলেও, বুস্টার ডোজ়ে আপাতত ‘না’ ভারতের! কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা?

India Not Ready for Booster Dose: আমেরিকা সহ একাধিক পাশ্চাত্য়ের দেশে বুস্টার ডোজ় দেওয়া শুরু হয়েছে। যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভাল, তাদেরকেও বাধ্যতামূলকভাবে বুস্টার ডোজ় নিতে বলা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের তুমুল সমালোচনা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও।

Booster Dose For COVID-19: বিদেশে বাধ্যতামূলক হলেও, বুস্টার ডোজ়ে আপাতত 'না' ভারতের! কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা?
এখনই বুস্টার ডোজ়ে অনুমোদন দিতে নারাজ কেন্দ্র। ফাইল ছবি

নয়া দিল্লি: করোনা সংক্রমণ (COVID-19) ঘিরে এক বছরেই চিত্রটা বদলে গিয়েছে অনেকটা। গত বছর এই সময়ে যখন বিভিন্ন দেশ করোনা টিকা (COVID Vaccine) প্রস্তুত করার কাজেই লেগেছিল, বর্তমানে সেখানে করোনার দুটি ডোজ়ের পর অতিরিক্ত সুরক্ষা দিতে বুস্টার ডোজ়(Booster dose)-ও দেওয়া হচ্ছে। তবে ভারতে এখনই বুস্টার ডোজ় আনতে চাইছে না কেন্দ্র, এমনটাই সূত্রের খবর। বিশেষজ্ঞদের দাবি, দেশের অধিকাংশ জনগণই যেহেতু করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে আপনাআপনিই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়ে গিয়েছে। এছা়ডাও করোনা টিকার দুটি ডোজ়ই সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা দিতে যথেষ্ট বলে মনে করছেন অনেক বিশেষজ্ঞ।

দেশে করোনা টিকার সরবরাহ বাড়তেই বহু চিকিৎসক ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন, পাশ্চাত্যের দেশগুলির মতোই ভারতেও যেন দ্রুত বুস্টার ডোজ় দেওয়ার কাজ শুরু হয়। বিশেষত যাদের সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, যেমন বয়স্ক ও কো-মর্ডিবিটি যুক্ত ব্যক্তিদের বুস্টার ডোজ় দেওয়া হোক অতিরিক্ত সুরক্ষার জন্য।

তবে কেন্দ্রীয় সূত্রে খবর, আপাতত দেশের সমস্ত প্রাপ্তবয়স্কদের করোনা টিকার দুটি ডোজ় দিতেই আগ্রহী কেন্দ্র। আগামী জানুয়ারি মাসের মধ্যেই এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণের চেষ্টা করা হচ্ছে। এরপরে করোনা টিকা বিদেশে রফতানির উপর জোর দেওয়া হবে।  উল্লেখ্য, এখনও অবধি দেশের মোট প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ৮১ শতাংশ করোনা টিকার কমপক্ষে একটি ডোজ় পেয়েছেন। ৪৩ শতাংশ জনগণ করোনা টিকার দুটি ডোজ়ই পেয়েছেন।  এখনও ১৮ বছরের কম বয়সীদের টিকাকরণ শুরু হয়নি।

টিকাকরণ নীতি নিয়ে ওয়াকিবহাল সূত্রের খবর, আপাতত দেশের প্রাপ্তবয়স্কদের সম্পূর্ণ টিকাকরণেই জোর দিচ্ছে কেন্দ্র। দেশের একটি বড় সংখ্যক জনগণই করোনা আক্রান্ত হওয়ায়, তাদের দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে উঠেছে। এর উপর করোনা টিকার দুটি ডোজ় দেওয়া হলে, তা সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা জোগানোর জন্য যথেষ্ট। আগে থেকে তৈরি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কারণেই উৎসবের মরশুমে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা খুব একটা বৃদ্ধি পায়নি গতবারের মতো।

সূত্রের খবর, প্রাপ্তবয়স্কদের দুটি টিকাকরণ হয়ে গেলে বুস্টার ডোজ় নিয়ে চিন্তাভাবনা করবে কেন্দ্র। এক্ষেত্রে বুস্টার ডোজ়টি ঐচ্ছিক হবে, অর্থাৎ কেউ চাইলে নিতে পারেন, তবে সকলের জন্যই বুস্টার ডোজ় বাধ্যতামূলক করা হবে না। যদিও এই বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে কিছু জানানো হয়নি।

এপ্রিল ও মে মাসে বিশ্বে করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যার হিসাবে শীর্ষ স্থানে ছিল ভারত। সরকারি সমীক্ষা অনুযায়ী, দেশের প্রায় ৭০ শতাংশ জনগণই জুলাই মাসের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আমেরিকার পর বিশ্বে সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ভারতেই। অক্টোবর-নভেম্বর মাসে উৎসবের মরশুম থাকায়, ফের একবার দেশে সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাবে বলেই আশঙ্কা করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। তবে দুর্গাপুজো ও দীপাবলি কাটানোর পরও দেখা গিয়েছে আক্রান্তের সংখ্যায় খুব একটা রদবদল হয়নি।

এদিকে, আমেরিকা সহ একাধিক পাশ্চাত্য়ের দেশে বুস্টার ডোজ় দেওয়া শুরু হয়েছে। যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভাল, তাদেরকেও বাধ্যতামূলকভাবে বুস্টার ডোজ় নিতে বলা হয়েছে। এই সিদ্ধান্তের তুমুল সমালোচনা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও।

ভারতের যে টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি রয়েছে, তার মধ্যে সেরাম ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়ার তরফে জানানো হয়েছে, আগামী বছরের শুরুতেই তারা কেন্দ্রের কাছে বুস্টার ডোজ়ের অনুমোদনের জন্য আবেদন করতে পারে। অন্যদিকে, ডঃ রেড্ডিজ ল্যাবরেটরি, রাশিয়ার স্পুটনিক ভি-লাইট নামক টিকাকে বুস্টার ডোজ় হিসাবে অনুমোদন পাওয়ানোর চেষ্টা করছে।

আরও পড়ুন: Abhinandan Varthaman Awarded Vir Chakra: মাঝ আকাশেই ধ্বংস করেছিলেন পাক যুদ্ধবিমান, ‘বীর চক্র’ পেলেন বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের ‘হিরো’ অভিনন্দন

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla